যুক্তরাষ্ট্রকে পুতিনের হুশিঁয়ারি

মাথাভাঙ্গা মনিটর: যুক্তরাষ্ট্র ও তার জোট সঙ্গীদের সিরিয়ার বিরুদ্ধে একপাক্ষিক হামলার বিষয়ে হুঁশিয়ারি উচ্চারণ করলেন রাশিয়ার প্রেসিডেন্ট ভ্লাদিমির পুতিন। যুক্তরাষ্ট্রের প্রেসিডেন্ট বারাক ওবামা রাসায়নিক অস্ত্র হামলার অভিযোগের প্রেক্ষিতে সিরিয়ার বিরুদ্ধে শাস্তিমূলক হামলার আহ্বান করেছেন। এদিকে পুতিন জাতিসংঘের অনুমোদন ছাড়া সিরিয়ার বিরুদ্ধে সামরিক পদক্ষেপকে এক ধরনের আগ্রাসন বলে উল্লেখ করেন। পুতিন বলেন, সিরিয়া সরকারের বিরুদ্ধে রাসায়নিক অস্ত্র হামলার প্রমাণের ব্যাপারে কোনো সন্দেহ থাকলে রাশিয়া সামরিক হস্তক্ষেপের ব্যাপারে জাতিসংঘের অনুমোদনকে সহায়তা দিবে না। সিরিয়ায় সামরিক হস্তক্ষেপের প্রাথমিক সিদ্ধান্তের ব্যাপারে গতকাল বুধবার মতৈক্যে পৌঁছেছে যুক্তরাষ্ট্র সিনেটের বৈদেশিক সম্পর্ক বিষয়ক পরিষদ। সিনেট সামরিক হস্তক্ষেপের ব্যাপারে ৬০ দিনের একটি সীমা নির্ধারণ করে দিয়েছে। এক্ষেত্রে শর্ত সাপেক্ষে একবারে ৩০ দিন পর্যন্ত অভিযান চালানো যাবে। পরে কংগ্রেসের অনুমোদন সাপেক্ষে অভিযান আরও ৩০ দিন দীর্ঘায়িত করা যেতে পারে। তবে সিরিয়ায় যুক্তরাষ্ট্রের সশস্ত্র বাহিনী কোনো ধরনের স্থল হামলা করতে পারবে না। পরিষদ যদি এ ব্যাপারে চূড়ান্ত অনুমোদন দেয় তবে আগামী ৯ তারিখে সব সিনেট সদস্য ছুটি থেকে ফিরে আসার পর এ ব্যাপারে তাদের ভোট প্রদান করবেন।২১ আগস্ট কথিত রাসায়নিক অস্ত্র হামলায় এখন পর্যন্ত ১৪’শ ২৯ জন নিহত হয়েছে বলে জানিয়েছে যুক্তরাষ্ট্র। যা অন্যান্য রাষ্ট্র ও সংস্থার দেয়া হিসেবের চেয়ে বেশি। পুতিন বলেন, যদি আসাদ বাহিনীর রাসায়নিক অস্ত্র ব্যবহারের কোনো সুনির্দিষ্ট প্রমাণ পাওয়া যায় তবে তা জাতিসংঘের নিরাপত্তা পরিষদে উত্থাপন করতে হবে।

Leave a comment

Your email address will not be published.