দৌলতপুরে অ্যাম্বুলেন্স ড্রাইভারের মাতলামি

 

দৌলতপুর প্রতিনিধি: কুষ্টিয়ার দৌলতপুর হাসপাতালের অ্যাম্বুলেন্স ড্রাইভার ভরত ঠাকুরের মাতলামিতে অতিষ্ঠ হয়ে পড়েছে এলাকাবাসী, রোগীর স্বজন ও চিকিৎসকরা। প্রতিদিন সে মাতাল অবস্থায় অ্যাম্বুলেন্স চালানোর কারণে মুমূর্ষু রোগী ও তার স্বজনরা বাধ্য হয়ে মাইক্রোবাস বা অন্য কোন উপায়ে হাসপাতালে যাচ্ছে। গতকাল শনিবার বিকেলে মাতাল অবস্থায় অ্যাম্বুলেন্স ড্রাইভার ভরত ঠাকুরকে আটক করলে হাসপাতালের স্টাফরা পুলিশের কাছ থেকে তাকে ছিনিয়ে নিয়েছে।

দৌলতপুর থানার ওসি আমিনুল ইসলাম জানান, শনিবার বিকেলে অ্যাম্বুলেন্স ড্রাইভার ভরত ঠাকুর মদ্যপান করে হাসপাতাল চত্বরে মাতলামি শুরু করলে হাসপাতাল থেকে থানায় ফোন করে থানায় জানালে পুলিশ মাতাল অবস্থায় ড্রাইভার ভরত ঠাকুরকে (৪৫) আটক করে। তাকে প্রাথমিক চিকিৎসা দেবার জন্য হাসপাতালে নিয়ে যাওয়া হলে টিএইচএ ডা. মোতাহারুল ইসলামের নির্দেশে হাসপাতালের স্টাফরা পুলিশের কাছ থেকে তাকে ছিনিয়ে নেয়। ওসি আরো জানান, এ ঘটনা নিয়ে টিএইচএ পুলিশের সাথে ন্যাক্কারজনক আচরণ করেন। এ ব্যাপারে জানার জন্য টিএইচএ ডা. মোতাহারুল ইসলামের সেল ফোনে যোগাযোগ করার চেষ্টা করা হয়। কিন্তু তিনি ফোন রিসিভ করেননি। উল্লেখ্য, সম্প্রতি মাতলামির কারণে কুষ্টিয়া জেনারেল হাসপাতাল থেকে ওই অ্যাম্বুলেন্স ড্রাইভার ভরত ঠাকুরকে দৌলতপুর হাসপাতালে বদলি করা হয়।

Leave a comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *