আওয়ামী লীগের নৌকা ডুবে গেছে তা আর তোলা সম্ভব হবে না : খালেদা জিয়া

 

স্টাফ রিপোর্টার: বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়া বলেছেন, আওয়ামী লীগের নৌকা ডুবে গেছে। নিজেরা হেলিকপ্টারে বিভিন্ন জায়গায় উদ্বোধনের নামে যাচ্ছেন, কিছু উদ্বোধন করছেন। আর সেখানে ওরা নির্বাচনী ক্যাম্পেইনের নামে নৌকার পক্ষে ভোট চাচ্ছেন। তবে নৌকা যে ডুবে গেছে- এটা তারা বুঝতে পারছেন না। এই নৌকা ডুবে গেছে, এই নৌকাকে আর আপনারা টেনেও তুলতে পারবেন না। গতকাল শনিবার সদ্য প্রয়াত জাগপা সভাপতি শফিউল আলম প্রধানের এক স্মরণসভায় ও ইফতার মাহফিলে তিনি এসব কথা বলেন। রাজধানীর গুলশানে ইমানুয়েল কনভেনশন সেন্টারে এর আয়োজন করা হয়।

বেগম জিয়া বলেন, নৌকার সাথে যাদের রেখেছেন, আশপাশে যারা আছে, আপনার ডানে-বায়ে যারা আছে, যারা অন্য দল করে আপনার দলে এসেছে-তারা কী জিনিস। আপনি কিন্তু নিজেই বলে দিয়েছেন তারা কী খায়, কী রকম তাদের লাইফ স্টাইল। এসব লোককে দিয়ে দেশের কিছু হবে না, এরা দেশের কিছু করতে পারে না। আপনিও পারবেন না। নিরপেক্ষ সহায়ক সরকারের অধীনে নির্বাচন দিয়ে দেশে গণতন্ত্র ফিরিয়ে আনুন। হাসিনার অধীনে এদেশে কোনো নির্বাচন হবে না, হতে দেয়া হবে না। কোনো দল অংশগ্রহণ করবে না। হাসিনাকে বাদ দিতেই হবে, ক্ষমতা থেকে সরে দাঁড়াতেই হবে।

খালেদা জিয়া বলেন, চালের দাম যে এতো বৃদ্ধি হয়েছে তার জন্য কোনো ব্যবস্থা নিতে পারছে না সরকার, কেন ব্যবস্থা নেয়া হচ্ছে না। সবচেয়ে নিম্নমানের মোটা চালের দাম ৫০ টাকা কেজি। দেশের গরীব মানুষের যে কি করুণ অবস্থা। এছাড়া সব জিনিসের দাম বেড়েছে। বিদ্যুত-গ্যাস-পানির দাম বেড়েছে। বাজেটের সমালোচনা করে তিনি বলেন, বাজেটে কত কর বাড়িয়েছে, ভ্যাটের পরিধি বাড়িয়েছে। যে ১৫ ভাগ ভ্যাট প্রস্তাব করেছেন, সেটার কোনো প্রয়োজন নাই। ব্যাংকে এক লাখ টাকা জমা রাখলে ৮শ’ টাকা কেটে নিয়ে যাবে। কেন মানুষের অর্থ থেকে কাটছে? ব্যাংকের টাকা চুরি করেছে, দুর্নীতি হয়েছে। বেসিক ব্যাংকে টাকা লুট হয়েছে, এখন মানুষের পকেট কেটে টাকা নিচ্ছে। সব বন্ধ করেন।

তিনি বলেন, সামনে নির্বাচন। সেই নির্বাচনে প্রত্যেক ভোটার ভোট দিতে যাবেন। সকলে এটা চায়, সারা পৃথিবীর মানুষ এটা চায়। ইনশাআল্লাহ বাংলাদেশে সেইরকম নির্বাচনই হবে। সেই নির্বাচনের ফলাফল আপনারা বুঝতে পারবেন, ইনশাআল্লাহ বিএনপি ও ২০ দলীয় জোট জিতে এসে এদেশের মানুষকে যা যা ওয়াদা করেছি আমরা আমাদের ভিশন ২০৩০ এ। সবকিছু করবো, আরো কিছু করার আছে, সেটাও করব। তিনি আরো বলেন, এই ঈদে মানুষ দেশে যায়। দেখেছেন রাস্তাঘাটের যে দুরবস্থা। গতকাল পত্রিকায় ছবি দিয়েছে পাঁচ ঘণ্টার রাস্তা ১০ ঘণ্টায় অতিক্রম করতে হচ্ছে।

Leave a comment

Your email address will not be published.