ভুয়া মুক্তিযোদ্ধা :উপ সচিবসহ ৩৫ জন পদস্থ কর্মকর্তার সনদ বাতিল

স্টাফ রিপোর্টার: সরকারের গুরুত্বপূর্ণ মন্ত্রণালয় ও বিভাগে কর্মরত ৫ সচিবের মুক্তিযোদ্ধাসনদ জাল। দন্তে প্রমাণিত হওয়ায় তাদের বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়া হচ্ছে। এদিকে উপসচিবসসহ ৩৫ মুক্তিযোদ্ধার সনদ বাতিল করা হয়েছে। সনদ বাতিলে এসব সচিব শুধু চাকরিচ্যুত হবেন না, মুক্তিযোদ্ধা হিসেবে চাকরিকালে যে বাড়তি সুবিধা নিয়েছেন তাও তাদের সরকারিকোষাগারে ফেরত দিতে হবে। একইসাথে প্রতারণা ও বিশ্বাসভঙ্গের অভিযোগেঅভিযুক্ত হবেন তারা। মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের দায়িত্বশীল একটি সূত্র এতথ্য নিশ্চিত করেছে।

সূত্র জানায়, সচিবদের মধ্যে পাঁচজনের সনদ যেজাল সে সম্পর্কে তদন্তে নিশ্চিত হওয়া গেছে। এ প্রসঙ্গে মুক্তিযুদ্ধ বিষয়কমন্ত্রণালয়ের মন্ত্রী আ.ক.ম মোজাম্মেল হক জানান, জাল মুক্তিযোদ্ধা সনদগ্রহণের শ শ অভিযোগ রয়েছে। এর সবই জাতীয় নিরাপত্তা গোয়েন্দা সংস্থা এবংজেলা প্রশাসন তদন্ত করছে। সচিবদের বিষয়টি দুর্নীতি দমন কমিশন তদন্ত করছে।মন্ত্রী বলেন, প্রতিদিনই বিভিন্ন মন্ত্রণালয় ও বিভাগ থেকে সনদ যাচাই-বাছাইকরার জন্য মন্ত্রণালয়ে অনুরোধপত্র আসে। সেগুলো যাচাই-বাছাই করে সংশ্লিষ্টমন্ত্রণালয়কে জানিয়ে দেয়া হয়। এভাবে অন্তত ১১৬ জনের সনদ সঠিক নয় বলেইতোমধ্যে সংশ্লিষ্ট মন্ত্রণালয় বা বিভাগকে জানিয়ে দেয়া হয়েছে। সর্বশেষগতকাল সোমবার বাতিল করা হয়েছে ৩৫ জনের সনদ। জাতীয় গোয়েন্দা পরিদফতরপ্রতিবেদনের ভিত্তিতে ৩০ জন ও জেলা প্রশাসকের প্রতিবেদনের ভিত্তিতে দুজনের সনদ বাতিল করা হয়েছে। এছাড়া দুজনের বয়স উপযুক্ত না হওয়ায় ও একজনেরএকসাথে দুটি সনদ থাকায় সনদ বাতিল করা হয়েছে।

চাকরির বয়স বাড়ানোর জন্য ৩৫ জন সরকারি কর্মকর্তা-কর্মচারী ভুয়ামুক্তিযোদ্ধা সনদ পেশ করেছিলেন। সরকার তাদের সকলের সনদ বাতিল করেছে।সনদবাতিল হওয়া কর্মকর্তাদের মধ্যে রয়েছেন, ওএসডি থাকা উপসচিব শেখ আলাউদ্দিন, চট্টগ্রাম রেলওয়ের অতিরিক্ত মহাব্যবস্থাপক (পূর্ব) মো. সোলায়মান চৌধুরী, ঢাকা ভ্যাট কমিশনের রাজস্ব কর্মকর্তা (বর্তমানে পিআরএলে) শেখ মাহবুবুলআলম, যমুনা ওয়েল কোম্পানির সাবেক ম্যানেজার মো. গোলাম রব মোল্লা, সোনালী ব্যাংকের এক্সিকিউটিভ অফিসার এটিএম আব্দুল হাই। এছাড়া অন্যরাবিভিন্ন সরকারি প্রতিষ্ঠানের তৃতীয় ও চতুর্থ শ্রেণির কর্মচারী৷সনদবাতিল হওয়া ৩৫ জনের মধ্যে ৩০ জনকে জাতীয় নিরাপত্তা গোয়েন্দা সংস্থার (এনএসআই) প্রতিবেদনের ভিত্তিতে, দুজনকে জেলা প্রশাসকের প্রতিবেদনেরভিত্তিতে, একজনকে দু ঠিকানায় সনদ থাকার ভিত্তিতে এবং দুজনের বয়স উপযুক্তনা থাকায় তাদের সনদ বাতিল করা হয়েছে৷ সোমবার এ সংক্রান্ত প্রজ্ঞাপন জারিকরে মন্ত্রণালয়৷

যে৩৫ জনের সনদ বাতিল: গতকাল যাদের সনদ বাতিল করা হয়েছে, তারা হলেন জনপ্রশাসনমন্ত্রণালয়ের ওএসডি (বিশেষ ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা) উপসচিব শেখ আলাউদ্দিন, মোহাম্মদ আলী, রেলপথ মন্ত্রণালয়ের অধীন প্রধান সহকারী মো. শফিয়ার রহমান, মো. আব্দুল ওয়ারেছ, স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের অধীন টাঙ্গাইলের মো. আব্দুলহালিম, বরিশাল শেরেবাংলা মেডিকেল কলেজের সর্দার আজহার আলী খান, ভূমিমন্ত্রণালয়ের অধীন টাঙ্গাইল জোনাল সেটেলমেন্ট অফিসের কপিস্ট কাম বেঞ্চসহকারী আ.ন.ম বজলুর রশীদ, প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয়ের অধীন উচ্চমানসহকারী কাম হিসাবরক্ষক এটিএম শাজাহান, শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের অধীন এমএলএসএসমো. দানেশ মিয়া, কৃষি মন্ত্রণালয়ের অধীন সিরাজগঞ্জের কৃষি সম্প্রসারণকর্মকর্তা মো. আব্বাস আলী খান, পিআরএল ভোগরত ঢাকা উত্তরের কাস্টমসএক্সাইজ ও ভ্যাট কমিশনারেটের রাজস্ব কর্মকর্তা শেখ মাহবুবুল আলম, প্রাথমিক ওগণশিক্ষা মন্ত্রণালয়ের অধীন প্রধান শিক্ষক রনজিত কুমার রায়, স্বরাষ্ট্রমন্ত্রণালয়ের অধীন অডিটর মো. শফিকুল হক, ফরিদপুরের গোপালপুর সরকারিপ্রাথমিক বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষক মো. রওশন আলম, মো. আবু হোসেন মিয়া, স্থানীয় সরকার, পল্লী উন্নয়ন ও সমবায় মন্ত্রণালয়ের নওগাঁ পৌরসভার করআদায়কারী একেএম জালাল উদ্দীন, একই পৌরসভার স্বাস্থ্য সহকারী মো. হাসেমআলী, ময়মনসিংহ ঘুঘুরার চালা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক মো.মজিবুর রহমান, বড় জয়না সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সহকারী শিক্ষক একেএমহাবিবুল্লাহ, চলতি দায়িত্বে থাকা চট্টগ্রাম রেলওয়ের অতিরিক্ত মহাব্যবস্থাপক (পূর্ব) মো. সোলায়মান চৌধুরী, কৃষি মন্ত্রণালয়ের অধীন বীজ বিভাগেরউপপরিচালক আবদুর রশিদ হাওলাদার, দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা ও ত্রাণমন্ত্রণালয়ের অধীন প্রধান হিসাবরক্ষণ কর্মকর্তার কার্যালয়ের কর্মী মো.জয়নাল আবেদীন, কে.এ নিজাহার উদ্দীন, কর অঞ্চল-২’র কর পরিদর্শক মো.দেলোয়ার হোসেন, চাঁদপুরের টিএসআই মো. নুরুন্নবী পাটোয়ারী, যমুনা ওয়েলকোম্পানির সাবেক ম্যানেজার মো. গোলাম রব মোল্লা, সাতক্ষীরার আশাশুনিউপজেলা শিক্ষা অফিসের মো. আবুল হোসেন, সোনালী ব্যাংকের প্রধানকার্যালয়ের সিনিয়র এক্সিকিউটিভ অফিসার এটিএম আব্দুল হাই খান ও পুলিশেরবেতার বিভাগের মো. সোলায়মান বিশ্বাস।এর আগেও ১শ ১৬ জনের গেজেট ও মুক্তিযোদ্ধা সনদ বাতিল করা হয়েছিলো।সব মিলিয়ে এখন পর্যন্ত ১শ ৫১ জনের সনদ বাতিল করা হলো।

এছাড়া জেলা প্রশাসকেরপ্রতিবেদনের ভিত্তিতে ঢাকা জেলা প্রশাসকের কার্যালয়ের অফিস সহকারী কামকম্পিউটার মুদ্রাক্ষরিক মো. হারুন অর রশীদ খান ও মুন্সিগঞ্জ জেলাপ্রশাসকের কার্যালয়ের উচ্চমান সহকারী মো. শাহযাদ আযীমের সনদ বাতিল করাহয়েছে। দুটি সনদ থাকায় এমএ মজিদের সনদ বাতিল হয়েছে। বয়স উপযুক্ত না হওয়ায়মো. বেলাল হোসেন আকন্দ ও মো. আব্দুল মালেকের সনদ বাতিল করা হয়েছে।

মুক্তিযোদ্ধাকাউন্সিল গঠন: প্রায় ৮ মাস পর জাতীয় মুক্তিযোদ্ধা কাউন্সিল গঠন করাহয়েছে। মুক্তিযোদ্ধা বিষয়ক মন্ত্রী মোজাম্মেল হক পদাধিকার বলে এরচেয়ারম্যান। সদস্যরা হলেন- গৃহায়ন ও গণপূর্ত মন্ত্রী মোশাররফ হোসেন, নৌ-পরিবহন মন্ত্রী শাহজাহান খান, আবুল হাসনাত আব্দুল্লাহ এমপি, উপাধ্যক্ষআব্দুস শহীদ এমপি, মোতাহের হোসেন এমপি, সাবেক সচিব রশিদুল আলম, সাধনমজুমদার এমপি ও মেজর (অব.) ওয়াকারুজ্জামান। সদস্যদের মেয়াদ তিন বছর।

Leave a comment

Your email address will not be published.