চুয়াডাঙ্গায় অজ্ঞান পার্টির খপ্পরে পড়ে শিক্ষক হাসপাতালে

 

স্টাফ রিপোর্টার: চুয়াডাঙ্গায় অজ্ঞান পার্টির খপ্পরে পড়েছেন স্কুলশিক্ষক আব্দুস সামাদ। স্কুল থেকে বাড়ি ফেরার পথে বাসের ভেতরে তিনি অজ্ঞান পাটির খপ্পরে পড়েন। বাসের ভেতরে যাত্রীবেশী অজ্ঞানপাটির সদস্যরা তাকে গ্যাস্ট্রিকের ট্যাবলেট খাওয়ানোর নাম করে এক ধরনের গাছড়ার ওষুধ খাইয়ে দেয়। স্কুলশিক্ষক সামাদকে উদ্ধার করে চুয়াডাঙ্গা সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। তিনি চুয়াডাঙ্গা জেলা শহরের পান্না সিনেমা হলপাড়ার মৃত রজব আলী মণ্ডলের ছেলে। গতকাল বুধবার দুপুর ১২টার দিকে ঘটনাটি ঘটে বলে পারিবারিকসূত্রে জানা গেছে।

আরও জানা গেছে, আব্দুস সামাদ ঝিনাইদহ জেলা সদরের উত্তর নারায়ণপুর মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের বিএসসি শিক্ষক। গতকাল সকালে তিনি স্কুলের  উদ্দেশে বাড়ি থেকে বাসযোগে ঝিনাইদহ যান। পরে তাকে এসএসসি ব্যবহারিক পরীক্ষার কর্তব্য পালনের জন্য স্কুল থেকে চুয়াডাঙ্গার কার্পাসডাঙ্গা মাধ্যমিক বিদ্যালয়ে যেতে বলা হয়। তিনি পুনরায় চুয়াডাঙ্গায় ফেরার জন্য বাস ওঠেন। বাসের মধ্যে পাশে বসা জনৈক ব্যক্তি তাকে হামদর্দ কোম্পানির গ্যাসের ওষুধ খেতে পিড়াপিড়ি করলে তিনি ওই ওষুধ পানি দিয়ে খান। বাসটি সরোজগঞ্জ পৌঁছুলে তার মাথায় যন্ত্রণা শুরু হয় এবং তিনি জ্ঞান হারান। বাসটি চুয়াডাঙ্গা টার্মিনালে এলে স্থানীয়রা তাকে উদ্ধার করে চুয়াডাঙ্গা সদর হাসপাতালে ভর্তি করে। প্রায় ৫ ঘণ্টা অজ্ঞান থাকার পর তার জ্ঞান ফেরে। অজ্ঞানপার্টির সদস্যরা তার কাছে থাকা মাত্র ১হাজার ৫’শ টাকা ছাড়া আর কোন কিছু নিতে পারেনি বলে তার পরিবারের সদস্যরা জানান।

Leave a comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *