চিকিৎসক সমাজ ও সাহিত্য অঙ্গনে শোকের ছায়া : শোক প্রকাশ

চিরনিদ্রায় শায়িত হলেন ডা. দেলওয়ার

 

স্টাফ রিপোর্টার: বেদনা বিধূর পরিবেশে ডা. জেডএইচএম ওয়াহিদ আশরাফ দেলওয়ারকে চিরনিদ্রায় শায়িত করা হয়েছে। জান্নাতুল মওলা কবরস্থান জামে মসজিদে বাদ জোহর নামাজে জানাজা শেষে দাফন কাজ সম্পন্ন করা হয়। এর আগে চুয়াডাঙ্গা সিভিল সার্জন কার্যালয়ের সামনে প্রথম দফা নামাজে জানাজার আয়োজন করা হয়। গতপরশু রাত ১টার দিকে তিনি তার ইমার্জেন্সি সড়কস্থ নিজ বাড়িতে হৃদরোগে আক্রান্ত হয়ে ইন্তেকাল করেন।

ডা. জেডএইচএম ওয়াহিদ আশরাফ দেলওয়ারের মৃত্যুর খবরে চুয়াডাঙ্গায় নেমে আসে শোকের ছায়া। অনেকেই তাকে শেষবারের মতো দেখতে ছুটে যান তার বাড়িতে। এদের মধ্যে চুয়াডাঙ্গা পৌর মেয়র রিয়াজুল ইসলাম জোয়ার্দ্দার টোটন, চুয়াডাঙ্গা জেলা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক বিএনপি চেয়ারপারসনের উপদেষ্টা সাবেক সংসদ সদস্য শামসুজ্জামান দুদু অন্যতম। নামাজে জানাজায় সিভিল সার্জনসহ অধিকাংশ চিকিৎসক শরিক হন।

ডা. দেলওয়ার চুয়াডাঙ্গা সদর হাসপাতাল, জেলা কারাগার, সদর উপজেলা স্বাস্থ্য কর্মকর্তা, সিভিল সার্জন কার্যালয়ের মেডিকেল অফিসারসহ বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ পদে দায়িত্ব পালন করেন। তিনি বিভিন্ন সামাজিক সংগঠনের সাথেও জড়িত ছিলেন। অবসর জীবনযাপন করলেও তিনি তার স্থাপিত নারদিতা ক্লিনিকে দায়িত্ব পালন করে আসছিলেন। তার মৃত্যুতে অনেকেই শোক প্রকাশ করে বিবৃতি দিয়েছেন।

বিশিষ্ট চিকিৎসক চুয়াডাঙ্গা লেখক সংঘের সভাপতি লেখক কবি ডা. দেলওয়ার হোসেনের আকস্মিক মৃত্যুতে উদীচী, চুয়াডাঙ্গা জেলা সংসদের সভাপতি অ্যাড. নওশের আলী ও সাধারণ সম্পাদক হাবিবি জহির রায়হান এক শোকবার্তায় উদীচী, চুয়াডাঙ্গার সকল সদস্যদের পক্ষ থেকে গভীর শোক প্রকাশসহ শোকসন্তপ্ত পরিবারের প্রতি সমবেদনা জ্ঞাপন করেছেন। চুয়াডাঙ্গা লেখক সংঘের নবগঠিত কমিটির সভাপতি ডা. জেডএইচএম ওয়াহিদ আশরাফ দেলওয়ারের আকস্মিক মৃত্যুতে দামুড়হুদা উপজেলা সাহিত্য পরিষদ শোকাহত বলে জানিয়ে বিবৃতি দিয়েছেন সাহিত্য পরিষদের সম্পাদক আব্দুল আলিম। তিনি শোকসন্তুপ্ত পরিবারের প্রতি সমাবেদনা জানিয়ে তার বেদেহী আত্মার মাগফেরাত কামনা করেছেন। পৃথক শোকবার্তায় কার্পাসডাঙ্গা সাহিত্য সংসদের সভাপতি সুকলাল ও সাধারণ সম্পাদক শরীফ সাথী বলেছেন, আমরা শোকাহত। চুয়াডাঙ্গা জেলার সাহিত্যাঙ্গনে এতো বড় একজন গুণী মানুষের চলে যাওয়ায় ব্যাপক শূন্যতার সৃষ্টি হলো।

এদিকে চুয়াডাঙ্গা মানবতা সংস্থা শোকবার্তায় একটি ছবি যুক্ত করে বলেছেন, ডা. দেলওয়ার শুধু চিকিৎসক ছিলেন না। তিনি ছিলেন সমাজ ও সাংস্কৃতিক অঙ্গনে নিবেদিত প্রাণ। তিনি দুঃখীদের পাশে দাঁড়াতেন অফুরন্ত হাসি নিয়ে। তার গুণের কারণেই তাকে মানবতা সংস্থা সম্মানসূচক সদস্য পদ প্রদান করে। তাকে নিয়ে শীতার্তদের মাঝে শীতবস্ত্রও বিতরণ করা হয় গত ১২ ডিসেম্বর। ক’দিনের মধ্যেই তিনি চলে গেলেন। রেখে গেলেন স্মৃতি। থাকলো তার নাম আর ফ্রেমে বাধা ছবি। সংস্থার নির্বাহী পরিচালক অ্যাড. মানি খন্দকার শোকবার্তায় ডা. দেলওয়ারের শোকসন্তুপ্ত পরিবারের প্রতি সমবেদনা জানিয়ে মরহুমের বিদেহী আত্মার মাগফেরাত কামনা করেছেন।

Leave a comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *