চালক ও হেলপারসহ ট্রাকের হদিস না মিললেও পাওয়া গেছে ১২ লাখ টাকার ফিড

 

স্টাফ রিপোর্টার: চুয়াডাঙ্গা আলুকদিয়া বাজারের এসএস এন্টারপ্রাইজের গোডাউনে প্রায় ১২ লাখ টাকা মূল্যের পোল্ট্রি ফিড পাওয়া গেছে। পাটুরিয়ার মেঘা ফিড থেকে বরিশালের মুলাদির উদ্দেশে রওনা হওয়া ট্রাকটির হদিস না মিললেও ওই ট্রাকে থাকা ফিডের সন্ধান মেলায় ছিনতাই রহস্যের জট খুলার সম্ভাবনা ফুটে উঠেছে।

গতকাল শুক্রবার স্থানীয়দের সহযোগিতায় চুয়াডাঙ্গা গোয়েন্দা পুলিশের একটি দল আলুকদিয়ার এসএস এন্টারপ্রাইজের গোডাউন থেকে জব্দ করে। জব্দকৃত ফিড অবশ্য গোডাউনেই রেখে সিলগালা করে স্থানীয় বাজার কমিটির নেতৃবৃন্দের জিম্মায় রেখেছে পুলিশ। ফিডের মালিকপক্ষ আজ শনিবার মামলা করতে পারে। অপরদিকে এসএস এন্টারপ্রাইজের মালিক আলোচিত মাসুদ রানা আপেল আত্মগোপন করেছে। মাসুদ রানা আলুকদিয়া বাজারের কামাল উদ্দীনের ছেলে। মাসুদ রানা আপেলকে না পেয়ে পুলিশ জিজ্ঞাসাবাদের জন্য বাজারের লেবার কাবা, মুন্নাফ ও আদম আলীকে গোয়েন্দা পুলিশের দফতরে নিয়েছে। গতরাতে তিনজনের ব্যাপক জিজ্ঞাসাবাদ করা হয়।

জানা গেছে, মানিকগঞ্জের পাটুরিয়ায় রয়েছে মেঘা ফিড। এ কারখানা থেকে গত ৯ সেপ্টেম্বর মানিকগঞ্জ শিবালয়ের নীড় ট্রান্সপোটের ট্রাক (ঢাকা-মেট্টো-১৪-৯০৭০) পোল্ট্রি ও ফিস ফিড লোড হয়। পরদিন মঙ্গলবার সকাল সাড়ে ১০টার দিকে ট্রাকমালিক বাদল মোল্লার সাথে ট্রাকচালক কামালের মোবাইলফোনে শেষ কথা হয়। ওই সময় ট্রাকচালক কামাল জানান, বরিশাল সড়কের ট্যাকের হাট অতিক্রম করছি। এরপর কামালের সাথে যোগাযোগ বিছিন্ন হয়ে যায়। সেই থেকে তার মোবাইলফোনটি বন্ধ রয়েছে। ট্রাক ও চালক হেলপারের সন্ধান না পেয়ে ট্রাকমালিক যেমন উদ্বিগ্ন, তেমনই ফিড বরিশাল মুলাদির চন্দ্রদীপ খামারে না পৌঁছানোর কারণে ফিড মালিক অস্থির হয়ে ওঠেন। শুরু করেন খোঁজাখুঁজি। এদিকে চুয়াডাঙ্গা আলুকদিয়া বাজারের এসএস এন্টারপ্রাইজে ১১ সেপ্টেম্বর বুধবার ১০ কেজির একশ বস্তা ও ৫০ কেজির ৪৮০ বস্তা ফিড নামানো হয়। যে গোডাউনে সার, বীজ ও কীটনাশক রেখে এসএস এন্টারপ্রাইজের মালিক আপেল তা বিক্রি করেন, সেখানে ট্রাকভর্তি ফিড আনলোড করার কারণে অনেকের মধ্যেই সন্দেহ দানা বাধে।

আমাদের ভালাইপুর প্রতিনিধি জানিযেছেন, গতকাল বিকেলে স্থানীয়দেরই কোনো এক ব্যক্তি জেলা গোয়েন্দা পুলিশে খবর দেয়। স্থানীয়দের অনেকেই গোডাউনের সামনে ভিড় জমায়। এ সময় গোডাউন মালিককে ঘোরাঘুরি করতে দেখা গেলেও কিছুক্ষণের মধ্যে পুলিশ পৌঁছুনো দেখে মোটরসাইকেলযোগে সটকে পড়েন। গোয়েন্দা পুলিশের এএসআই আশরাফ সঙ্গীয় ফোর্স নিয়ে স্থানীয়দের সহযোগিতায় গোডাউন সিলগালা করেন। তিনি বাজার কমিটির নেতৃবৃন্দের হেফাজতে ফিডগুলো রাখেন। এরই মাঝে গোয়েন্দা পুলিশ নিশ্চিত হয়, ওই ফিড পাটুরিয়ার মেঘা ফিড কোম্পানির। সেখান থেকে মুলাদির উদ্দেশে রওনা হয়ে ট্রাকটি ছিনতাইকারীদের কবলে পড়ে। ট্রাকচালক ও হেলপারের ভাগ্যে শেষ পর্যন্ত কী ঘটেছে তা যেমন নিশ্চিত হওয়া যায়নি, তেমনই ফিড বরিশালের মুলাদি না নিয়ে ট্রাক চালকই কি চুয়াডাঙ্গার আলুকদিয়ায় নিয়ে রেখেছে সে বিষয়ে নিশ্চিত তথ্য মেলেনি।

Leave a comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *