অটোচালক তুফান মালতা হত্যার সাথে জড়িত থাকার অভিযোগ তুলে টাকা দাবি?

 

উজিরপুরের আয়ুবকে ধরে ভিমরুল্লায় নির্মম নির্যাতন : উদ্ধার করলো পুলিশ

স্টাফ রিপোর্টার: দামুড়হুদা উজিরপুরের আয়ুব আলীকে ধরে নিয়ে ভিমরুল্লায় নির্মমভাবে মারপিট করা হয়েছে। গতরাত ৮টার দিকে তাকে সদর থানা পুলিশ উদ্ধার করে চিকিৎসার জন্য হাসপাতালে নিয়ে ভর্তি করিয়েছে। ভিমরুল্লার তুফান হত্যার সাথে জড়িত সন্দেহে তাকে কয়েকজন ধরে নিয়ে মারপিট করে বলে অভিযোগ। পুলিশ বলেছে, আয়ুব এজাহারভুক্ত আসামি নন। তাছাড়া পুলিশি তদন্তেও তার নাম এখন পর্যন্ত উঠে আসেনি। সে কারণে তাকে গ্রেফতারও দেখানো হয়নি।

জানা গেছে, চুয়াডাঙ্গা দামুড়হুদার উজিরপুর মোল্লাপাড়ার মৃত শাছুদ্দিনের ছেলে আয়ুব আলীকে (৪৫) ধরে নিয়ে ভিমরুল্লা স্কুলের নিকট নির্মমভাবে মারধর করা হচ্ছে বলে খবর পেয়ে তার নিকটজনেরা পুলিশে খবর দেয়। চুয়াডাঙ্গা সদর থানা পুলিশ আয়ুবকে উদ্ধার করে হাসপাতালে নিয়ে ভর্তি করায়। আয়ুব আলীর শয্যাপাশে থাকা লোকজন অভিযোগ করে বলেছে, ভিমরুল্লার হ্যাপিসহ তার এক সহযোগী উজিরপুরের বসবাসকারী অপর হ্যাপি হত্যামামলায় জড়িয়ে দেয়ার হুমকি দিয়ে টাকা দাবি করে। টাকা না দেয়ায় ওরাই আয়ুবকে ধরে নিয়ে নির্মমভাবে মেরে হত্যার সাথে জড়িত থাকার কথা স্বীকার করানোর চেষ্টা করে।

খবর পেয়ে চুয়াডাঙ্গা সদর থানা পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌঁছায়। আয়ুবকে উদ্ধার করে। এ বিষয়ে চুয়াডাঙ্গার সহকারী পুলিশ সুপার বলেছেন, আয়ুব আলী এজাহারভুক্ত আসামি নন। তাছাড়া তাকে কেন ধরে মারধর করেছে তা খতিয়ে দেখা হচ্ছে। আয়ুব আলীকে উদ্ধার করে হাসপাতালে নিয়ে চিকিৎসার ব্যবস্থা করা হয়েছে। ঘটনার নেপথ্য উন্মোচনের চেস্টা চলছে।

উল্লেখ্য, গত ২২ জুন ভিমরুল্লার অটোচালক তুফান মালিতা নিখোঁজ হন। পরদিন দামুড়হুদার একটি সড়কের অদূরবর্তী মাঠের ধানক্ষেত থেকে লাশ উদ্ধার করা হয়।

Leave a comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *