মেহেরপুর শালিকা গ্রামে গৃহবধূকে হত্যার অভিযোগ : ময়নাতদন্ত

 

মেহেরপুর অফিস: মেহেরপুর জেলা সদরের দক্ষিণ শালিকা গ্রামের গৃহবধূ হাসিনা খাতুনকে (৩৫) হত্যার অভিযোগ তুলেছেন পরিবারের সদস্যরা। এ অভিযোগটি পুলিশ অবশ্য আমলে নিয়েছে। গতকাল বুধবার সকালে লাশের ময়নাতদন্ত সম্পন্ন হয়েছে। মঙ্গলবার রাতে হাসিনার মৃত্যুর পর থেকেই তার স্বামী অভিযুক্ত আব্দুল মিয়া গা ঢাকা দিয়েছেন। তবে পুলিশ বলছে ময়নাতদন্ত প্রতিবেদন হাতে পেলেই হত্যাকাণ্ড কি-না তা নিশ্চিত হওয়া যাবে।

হাসিনার পারিবারিক সূত্রে জানা গেছে, দক্ষিণ শালিকা গ্রামের রেজাউল ঘটকের ছেলে আব্দুল মিয়ার সাথে হাসিনার দ্বিতীয় বিয়ে হয় প্রায় ১৫ মাস আগে। সংসারের শুরু থেকেই বিভিন্ন দাবিতে হাসিনার ওপর শারীরিক ও মানসিক নির্যাতন শুরু হয়। এরই জের ধরে স্বামীর বাড়িতে হাসিনা বিষপান করেছে বলে পিতার বাড়িতে খবর যায়। পরিবারের লোকজন সেখানে পৌঁছানোর আগেই হাসিনাকে মেহেরপুর জেনারেল হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। চিকিৎসাধীন অবস্থায় মারা যায় হাসিনা। এর পরপরই পালিয়ে যায় আব্দুল। হাসিনার চাচা নাসির উদ্দীনসহ পরিবারের অভিযোগ, হাসিনাকে শ্বাসরোধ করে হত্যা করা হয়েছে। বিষয়টি ভিন্নখাতে নেয়ার উদ্দেশে মুখে বিষ ঢেলে দেয় আব্দুল। তার বিরুদ্ধে হত্যামামলা দায়ের করা হবে। তবে মেহেরপুর থানা সূত্র জানিয়েছে, এখনই হত্যামামলা নয়। ময়নাতদন্ত প্রতিবেদন হাতে পেলেই পরবর্তী আইনি ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

হাসিনার পরিবারিক সূত্রে আরো জানা গেছে, ১৫ বছর আগে হাসিনার প্রথম বিয়ে হয় একই গ্রামের গোলাম হোসেনের ছেলে বাশার আলীর সাথে। দাম্পত্য জীবনে তাদের ২ মেয়ে ও ১ ছেলে রয়েছে। কিন্তু সুখের সে সংসার আর টেকেনি। প্রেম সম্পর্কের জের ধরে বছর দেড়েক আগে একই গ্রামের আব্দুলের সাথে হাসিনার দ্বিতীয় বিয়ে হয়।

Leave a comment

Your email address will not be published.