মনমাতানো আলোকসজ্জার সাথে পাগলকরা বাজনা : শারীরিক কসরত : ইচ্ছে মতো ভাঁজ

খাইরুজ্জামান সেতু: শারীরিক কসরত কতোটা নিপুন হয়? শরীরকে ইচ্ছে মতোও যে ভাজ করা যায় তা অ্যাক্রোটেটিক শিল্পের উৎপত্তি না হলে মানুষ বুঝতো কীভাবে? প্রশ্নটি গতকাল সোমবার সন্ধ্যায় চুয়াডাঙ্গার শিল্পকলা একাডেমী আয়োজিত অনুষ্ঠানে উপস্থিত অধিকাংশ সাধারণ দর্শকের। নানা বাদ্যযন্ত্রের মোহনীয় বাজনা আর শিল্পীদের নানা কসরত প্রদর্শনকে প্রশংসা করেছেন স্বয়ং চুয়াডাঙ্গার জেলা প্রশাসক।
জানা গেছে, বিশ্বের অন্যতম শিল্প মাধ্যম সার্কাসের প্রধানতম অঙ্গ অ্যাক্রোবেটিক শিল্প সমগ্র বিশ্বে সমাদৃত এবং মর্যাদাপূর্ণ।বাংলাদেশ শিল্পকলা একাডেমীর উদ্যোগে সৃজনশীল বাংলাদেশ শিল্পকলা একাডেমির আয়োজনে এবং নাট্যকলা ও চলচ্চিত্র বিষয়ক বিভাগের সহযোগিতায় দেশের ৬৪ জেলার অ্যাক্রোবেটিক প্রদর্শনীর অংশ হিসেবে সোমবার সন্ধ্যা ৭টার দিকে চুয়াডাঙ্গা জেলা শিল্পকলা একাডেমীর উন্মুক্ত মঞ্চে ১৪১তম অ্যাক্রোবেটিক শো প্রদর্শিত হয়।অ্যাক্রোবেটিক প্রর্দশিত শো‘র উদ্বোধন করেন জেলা প্রশাসক সায়মা ইউনুস। এসময় উপস্থিত থেকে সংক্ষিপ্ত আলোচনা করেন জেলার অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক(সার্বিক) আনজুমান আরা, ভারপ্রাপ্ত পুলিশ সুপার বেলায়েত হোসেন, জেলা পরিষদের প্রশাসক মাহফুজুর রহমান মঞ্জু, অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিষ্টেট্র (শিক্ষা ও আইসিটি) আব্দুর রাজ্জাক, জেলা শিল্পকলা একাডেমী কালচারাল অফিসার জসীম উদ্দীন ও সেক্রেটারী মুন্সী জাহাঙ্গীর আলম মান্নান। এছাড়াও উপস্থিত ছিলেন সহকারী কমিশনার ফারজানা খানম, সৈয়দা নাফিস সুলতানা ও টুকটুক তালুকদারসহ শহরের অনেকেই উপস্থিত ছিলেন। বিশ্বের অন্যতম জনপ্রিয় বিনোদন মাধ্যম অ্যাক্রোবেটিক শিল্প এবং শিল্পের সাথে জড়িত শিল্পীদের উন্নয়নে বাংলাদেশ সরকারের সংস্কৃতি বিষয়ক মন্ত্রনালয়ের পৃষ্ঠপোষকতায় বাংলাদেশ শিল্পকলা একাডেমী বিগত চার বছর ধরে বাংলাদেশ শিল্পকলা একাডেমী অ্যাক্রোবেটিক দল গঠন করাসহ ৬৪ জেলায় এ শো প্রদর্শনী করেছেন। এছাড়াও নতুন শিল্পী তৈরীর জন্য দেশের বিভিন্ন জেলায় শিশু অ্যাক্রোবেটিক কর্মশালার আয়োজন করা হয়েছে। এরই ধারাবাহিকতায় চুয়াডাঙ্গায় এই প্রর্দশনী।
মোহাচ্ছনে কেটে গেল দু ঘণ্টা সময়। দর্শকদের মুখে শুধু একটিই কথা, এমন প্রদর্শনী নিয়মিত দেখতে চাই। রং বে-রঙের আলোকসজ্জা ও পশ্চাত্যের শব্দের কলতান ও দর্শকদের উপস্থিতিতে সোমবার সন্ধ্যারপর মুখরিত ছিলো চুয়াডাঙ্গা শিল্পকলা প্রাঙ্গণ। কারণ ? অ্যাক্রোবেটিক শো ! বাংলাদেশ শিল্পকলা একাডেমী অ্যাক্রোবেটিক দল তাদের শো প্রদর্শনী করল। আর এটা চলছে দেশব্যাপী। তারই অংশ হিসাবে চুয়াডাঙ্গা শিল্পকলা একাডেমীর সহযোগিতায় উন্মুক্ত মঞ্চে অনুষ্ঠিত হয় সোমবার সন্ধ্যায় চীনা দেশের এ জনপ্রিয় সাংস্কৃতি অনুষ্ঠান অ্যাক্রোবেটিক শো। আর আজ হবে মেহেরপুরে শামসুজ্জোহা পার্কে। শিল্পকলা একাডেমীর অ্যাক্রোবেটিক শিল্পীদের শারীরিক কসরতে মুগ্ধ হয়ে উপস্থিতিদের মুহুমুর্হ তালিতে মুখোরিত হয়ে করে পুরো অনুষ্ঠান।

Leave a comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *