বিদেশি টুকরো

সিরিয়ায় রুশ বিমান ভূপতিত: পাইলটকে হত্যা

মাথাভাঙ্গা মনিটর: সিরিয়ায় বিদ্রোহীরা রাশিয়ার একটি যুদ্ধবিমান ভূপাতিত করার পর এর পাইলটকে হত্যা করেছে বিদ্রোহী জঙ্গিরা। ভূপাতিত বিমানটি রাশিয়ার সুখোই-২৫ যুদ্ধবিমান। রুশ প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয় ও সিরিয়ার এক বিদ্রোহী গোষ্ঠী এ খবর জানিয়েছে। গুলি করে বিমানটিকে ভূপতিত করার কথা জানিয়েছে শক্তিশালী বিদ্রোহী গোষ্ঠী হায়াত তাহরির আল শাম (এইচটিএস)। তবে পাইলটের ভাগ্যে কী ঘটেছে এ ব্যাপারে তারা কোনো কিছু জানায়নি। এক বিবৃতিতে এইচটিএস মুখপাত্র মাহমুদ আল তুর্কমানি জানান, ‘আমরা শনিবার বিকেলে ইদলিবের সারাকিব এলাকায় কাঁধে বহনযোগ্য ক্ষেপণাস্ত্র থেকে গুলি নিক্ষেপ করে রুশ বিমানটিকে ভূপতিত করতে সমর্থ হই।’

সিরিয়ায় পাল্টা হামলায় রাশিয়া: ৩০ জঙ্গি নিহত

মাথাভাঙ্গা মনিটর: সিরিয়ার ইদলিবে বিদ্রোহীদের হাতে এক যুদ্ধবিমান ভূপতিত হওয়ার জের ধরে পাল্টা হামলা শুরু করেছে রাশিয়া। দেশটির উত্তর পশ্চিমাঞ্চলীয় এলাকায় চালানো রুশ বিমান হামলায় অন্তত ৩০ জঙ্গি নিহত হয়েছে। এক বিবৃতিতে প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয় জানায়, সিরিয়ার ইদলিব প্রদেশে বহনযোগ্য বিমান বিধ্বংসী ক্ষেপণাত্রের সাহায্যে রাশিয়ার এসইউ-২৫ জঙ্গি বিমানটি ভূপাতিত করা হয়। এ হামলার জন্য জাবহাত আল-নুসরা জঙ্গি গোষ্ঠীকে দায়ী করেছে রাশিয়া। এরপর বেশ কয়েকটি রুশ জঙ্গি বিমান জঙ্গি গোষ্ঠীটির নিয়ন্ত্রিত এলাকায় অভিযান চালায়। বিবৃতিতে আরো বলা হয়, ‘ওই বিমান হামলায় ৩০ জনের বেশি জাবহাত আল-নুসরাহ জঙ্গি নিহত হয়েছে।’

আফরিনে কুর্দি হামলায় ৭ তুর্কি সেনা নিহত

মাথাভাঙ্গা মনিটর:সিরিয়ার সীমান্তবর্তী উত্তরাঞ্চলের আফরিনে প্রচণ্ড মার খেয়েছে তুর্কি বাহিনী। শনিবার সেখানে কুর্দি মিলিশিয়াদের হামলায় নিহত হয়েছে অন্তত সাত সেনা। এ ঘটনায় কুর্দিদের বিরুদ্ধে চরম হুঁশিয়ারি দিয়েছেন তুরস্কের প্রধানমন্ত্রী বিনালি ইলদ্রিম।

ব্রিটিশ সংবাদ মাধ্যম বিবিসি জানায়, আফরিন অঞ্চলে তুর্কি বাহিনীর একটি ট্যাঙ্কে হামলা চালিয়ে পাঁচ সেনাকে হত্যা করেছে কুর্দি মিলিশিয়া গোষ্ঠী পিপলস প্রোটেকশন ইউনিট (ওয়াইপিজে)। এর আগে তাদের হাতে নিহত হয়েছিল আরো দুই তুর্কি সেনা। এদের একজন আফরিনে এবং অন্যজন নিহত হয়েছে তুরস্কের সীমান্তর্তী এলাকায়। আফরিনে ওয়াইপিজ ‘র বিরুদ্ধে তুর্কি অভিযান শুরু করার পর এ নিয়ে তাদের মোট ১৪ সেনা নিহত হল। গত ২০ জানুয়ারি থেকে সেখানে ‘অলিভ ব্রাঞ্চ’ অভিযান চালিয়ে যাচ্ছে তুরস্ক।

গান গাইতে রাজি না হওয়ায় গায়িকাকে হত্যা

মাথাভাঙ্গা মনিটর: পাকিস্তানে হালের জনপ্রিয় পারফর্মার সুম্বুল খানের হত্যার ঘটনায় তিনজনের বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করেছে পুলিশ। স্থানীয় এক অনুষ্ঠানে পারফর্ম করতে রাজি না হওয়ায় গুলি করে হত্যা করা হয়েছিল ওই তরুণীকে। পুলিশের প্রাথমিক তদন্ত রিপোর্টে জানা যায়, ঘটনার দিন পাকিস্তানের খাইবারপাখতুন খোয়াপ্রদেশের মার্দান এলাকার শেখ মারতুন শহরে নিজ বাড়িতেই অবস্থান করছিলেন ২৫ বছর বয়সী ওই গায়িকা কাম ডান্সার। শনিবার সুম্বুলের বাড়িতে জোর করে ঢুকে পড়ে তিনজন। তারা নিজেদের পার্টিতে গান গাওয়ার জন্য সুম্বুলকে প্রস্তাব দেন। কিন্তু সুম্বুল গান গাইতে রাজি না হওয়ায় তাকে উপর্যুপরি গুলি করা হয়। এতে ঘটনাস্থলেই মারা যান এ শিল্পী। নিহত সুম্বুল পাকিস্তানে বেশ পরিচিত কণ্ঠশিল্পী। তিনি দেশটির বিভিন্ন টেলিভিশন শোয়ে গান করেন। এই হত্যার ঘটনায় সন্দেহভাজ তিনজনের বিরুদ্ধে এফআইআর দায়ের করেছে পুলিশ। এরা হলেন সাবেক পুলিশ ইন্সপেক্টার নাঈম খান, ট্যাক্সি ড্রাইভার নাসিব ও নিহত গায়িকা আগজালা জাভেদের স্বামী জাহাঙ্গীর খান। এর আগে স্ত্রীকে হত্যার দায়ে মৃত্যুদণ্ড দেয়া হয়েছিল জাহাঙ্গীর খানকে। পরে সাধারণ ক্ষমার আওতায় তিনি জেল থেকে বেরিয়ে আসেন।

 

Leave a comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *