দামুড়হুদায় মিথ্যা সংবাদ রটনা নিয়ে দু প্রতিবেশীর মধ্যে রক্তক্ষয়ী সংঘর্ষ

 

প্রতিপক্ষের লাঠির আঘাতে বৃদ্ধসহ তিনজন আহত

স্টাফ রিপোর্টার: দামুড়হুদার আরামডাঙ্গায় মিথ্যা সংবাদ রটিয়ে বেড়ানোকে কেন্দ্র করে দু প্রতিবেশীর মধ্যে রক্তক্ষয়ী সংঘর্ষের ঘটনা ঘটেছে। এতে একই পরিবারের বৃদ্ধ ও শিশুসহ তিনজন মারাত্মক আহত হয়েছে। আহতদের উদ্ধার করে দামুড়হুদা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়েছে। এ বিষয়ে গতকাল বুধবার উভয়পক্ষই দামুড়হুদা থানায় পাল্টাপাল্টি অভিযোগ করেছে। মঙ্গলবার রাত ১১টার দিকে এ রক্তক্ষয়ী সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে।

জানা গেছে, চুয়াডাঙ্গার দামুড়হুদা উপজেলার কার্পাসডাঙ্গা ইউনিয়নের আরামডাঙ্গা গ্রামের ফকির মোহাম্মদের ছেলে দু সন্তানেরজনক আছের উদ্দিন মঙ্গলবার তার স্ত্রীকে তালাক দিয়েছে বলে পাড়ায় রটিয়ে বেড়ায় প্রতিবেশী কসাই আমিনুল ইসলাম। বিষয়টি লোকমুখে জানার পর আছেরের মা জবেদা বেগম ওই দিন বিকেলে প্রতিবেশী আমিনুল কসাইয়ের বাড়িতে যান এবং এ ধরনের মিথ্যা কথা পাড়ায় বলে বেড়ানোর কারণ জানতে চাইলে উভয় পরিবারের মধ্যে উত্তপ্ত বাক্য বিনিময় হয়। রাত ১১টার দিকে আছেরের বাড়িতে এসে বিষয়টি জানতে পেরে ছুটে যান প্রতিবেশী আমিনুল কসাইয়ের বাড়িতে। আবারো শুরু হয় উভয় পরিবারের মধ্যে কথাকাটাকাটি। কথাকাটাকাটির এক পর্যায়ে আমিনুল কসাইয়ের দু ছেলে আশাবুল ও বাদশা আমিনুলের দু নাতি বকুলের ছেলে মমিন এবং সামাদের ছেলে রানা লাঠিসোঁটা নিয়ে আছেরকে (২৬) তাড়া করে। আছের চিৎকার দিতে দিতে নিজ বাড়ির উঠোনে এসে পড়ে গেলে তাকে এলোপাতাড়িভাবে মারধর করে। আছেরকে উদ্ধার করতে বৃদ্ধ পিতা ফকির মোহাম্মদ (৬০) এগিয়ে এলে তাকেও মারপিট করা হয় এবং আছেরের স্ত্রী ও তার ভাইয়ের শিশুকন্যা খুশিকেও মেরে আহত করা হয়। আহতদের উদ্ধার করে দামুড়হুদা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়েছে। এ বিষয়ে গতকাল বুধবার উভয়পক্ষই দামুড়হুদা থানায় পাল্টাপাল্টি অভিযোগ দায়ের করেছে।

Leave a comment

Your email address will not be published.