চুয়াডাঙ্গাসহ পার্শ্ববর্তী এলাকায় শীত : শীতবস্ত্র বিতরণ

স্টাফ রিপোর্টার: চুয়াডাঙ্গায় দু দিন ধরে সূর্যের মুখ দেখা যায়নি। ঘনকুয়াশা বৃষ্টির মতো ঝিরঝির করে ঝরছে। শৈত্যপ্রবাহ ও উত্তর থেকে ধেয়ে আসা হিমেল হাওয়ায় তীব্র শীত অনুভূত হচ্ছে। হতদরিদ্ররা আগুন জ্বালিয়ে বাঁচার চেষ্টা করছে। সদর হাসপাতালসহ স্বাস্থ্যকেন্দ্রগুলোতে শীতজনিত রোগীদের ভিড় বাড়ছে। ১৪ শয্যার শিশুওয়ার্ডে গতকাল বৃহস্পতিবার ৬০ জন শিশু চিকিৎসাধীন ছিলো। গত ২৪ ঘণ্টায় জেলায় শীতজনিত কারণে চারজনের মৃত্যুর খবর পাওয়া গেছে।

চুয়াডাঙ্গা সদর হাসপাতালের শিশু বিশেষজ্ঞ মাহবুবুর রহমান জানান, বাড়তি রোগীর চাপ সামলাতে চিকিৎসক ও সেবিকাদের হিমশিম অবস্থা। এজন্য শিশুদেরকে গরম কাপড়ে জড়িয়ে রাখতে হবে। বাইরে বের করা যাবে না। চুয়াডাঙ্গায় গতকাল বৃহস্পতিবার সর্বমিম্ন তাপমাত্রা ১২ দশমিক ৬ ও সর্বোচ্চ ১৬ ডিগ্রি রেকর্ড করা হয়। দেশের সর্বনিম্ন তাপমাত্রা ছিলো কুতুবদিয়ায় ১০ ডিগ্রি এবং সর্বোচ্চ তাপমাত্রা ছিলো সিলেটে ২৬ দশমিক ২ ডিগ্রি সেলসিয়াস। আবহাওয়ার পূর্বাভাসে বলা হয়েছে, উপমহাদেশীয় উচ্চচাপ বলয়ের বধিতাংশ পশ্চিমবঙ্গ ও তৎসংলগ্ন এলাকা পর্যন্ত বিস্তৃত রয়েছে। স্বাভাবিক লঘুচাপ দক্ষিণ বঙ্গোপসাগরে অবস্থান করছে যার বর্ধিতাংশ উত্তর-পূর্ব বঙ্গোপসাগর পর্যন্ত বিস্তৃত রয়েছে। আকাশ অস্থায়ীভাবে আংশিক মেঘলাসহ সারাদেশে আবহাওয়া শুষ্ক থাকতে পারে। রাত থেকে সকাল পর্যন্ত সারাদেশে মাঝারি থেকে ঘনকুয়াশা পড়তে পারে।

ভ্রাম্যমা প্রতিনিধি জানিয়েছেন, দামুড়হুদার উপজেলার কার্পাসডাঙ্গা পূর্বপাড়ার মল্লিক শাহ (৮০) নামে এক বৃদ্ধের মৃত্যু হয়েছে। তিনি কার্পাসডাঙ্গা গ্রামের মৃত দেলবারী শাহর ছেলে। গত বুধবার রাত সাড়ে ১১টার দিকে প্রচণ্ড শীতে হৃদযন্ত্র ক্রিয়া বন্ধ হয়ে নিজ বাড়িতে মৃত্যুবরণ করেন তিনি।

আলমডাঙ্গা ব্যুরো জানিয়েছে, গতকাল আলমডাঙ্গায় আনসার ও গ্রাম প্রতিরক্ষাবাহিনীর পক্ষ থেকে রেললাইনের নিরাপত্তা রক্ষার দায়িত্বে নিয়োজিত আনসার-ভিডিপি সদস্যদের মাঝে  জুতো, মোজা ও কম্বল বিতরণ করা হয়। উপজেলা আনসার-ভিডিপি কর্মকর্তা মো. ফারুক হোসেনের সভাপতিত্বে  প্রধান অতিথি ছিলেন- উপজেলা নির্বাহী অফিসার মোহাম্মদ আশরাফুল আলম।

জীবননগর ব্যুরো জানিয়েছে, জীবননগরে হতদরিদ্র, অসহায় ও ছিন্নমূল শীতার্তের মাঝে শীতবস্ত্র বিতরণ করা হয়েছে। গতকাল বৃহস্পতিবার রাতে উপজেলা প্রশাসনের উদ্যোগে শহরে এ শীতবস্ত্র বিতরণ করা হয়। জীবননগর উপজেলা চেয়ারম্যান গোলাম মোর্তুজা ও উপজেলা নির্বাহী অফিসার সাজেদুর রহমান দরিদ্র মানুষের মাঝে এ শীতবস্ত্র বিতরণ করেন।

মেহেরপুর অফিস জানিয়েছে, গতকাল বৃহস্পতিবার দুপুর গড়িয়ে গেলেও সূর্যের দেখা মেলেনি। দিনভর কনকনে ঠাণ্ডায় কর্মবিমুখ হয়ে পড়েছিলো শহর ও গ্রাম-গঞ্জের মানুষ। শীতে দুর্ভোগ বেড়েছে সব শ্রেণির মানুষের। তবে চরম দুর্ভোগে পড়েছেন ছিন্নমূল মানুষ। মৃত্তিকা গ্রুপ থিয়েটার মেহেরপুরের উদ্যোগে শহরের  অসহায় ও হতদরিদ্র শীতার্ত মানুষের মধ্যে কম্বল বিতরণ করা হয়েছে। মেহেরপুর পৌরসভার প্যানেল মেয়র আল মামুন অতিথি হিসেবে উপস্থিত থেকে কম্বল বিতরণ করেন।

Leave a comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *