আমি চিরতরে দূরে চলে যাবো, তবু আমারে দেবো না ভুলিতে

 

কার্পাসডাঙ্গায় কবি কাজী নজরুল ইসলামের জন্মবার্ষিকী পালনের ব্যাপক প্রস্তুতি

স্টাফ রিপোর্টার: আমি চিরতরে দূরে চলে যাবো, তবু আমারে দেবো না ভুলিতে, মনে অপার দুঃখ নিয়ে গেয়েছিলেন কবি নজরুল। তবে তার লেখা গান সত্যি হয়েছে। তাকে সত্যিই ভোলা যায় না। আমাদের অস্তিত্বে মিশে আছেন জাতীয় কবি কাজী নজরুল ইসলাম।

আজ ১১ জ্যৈষ্ঠ। গণমানুষের প্রিয় কবি বাংলাদেশের জাতীয় কবি কাজী নজরুল ইসলামের ১১৮তম জন্মবার্ষিকী। সাম্যের কবি, বিরহ-বেদনার কবি, বিদ্রোহের কবি বাংলাদেশের জাতীয় কবি কাজী নজরুল ইসলাম বাংলা সংস্কৃতির অন্যতম প্রধান পুরুষ।

জাতীয় কবি কাজী নজরুল ইসলামের ১১৮তম জন্মবার্ষিকী উপলক্ষে জাতীয়ভাবে ব্যাপক কর্মসূচি গ্রহণ করা হয়েছে। চুয়াডাঙ্গার দামুড়হুদার উপজেলার স্মৃতি বিজড়িত কার্পাসডাঙ্গায় দু দিনব্যাপী অনুষ্ঠানের আয়োজন করেছে জেলা প্রশাসন ও উপজেলা শিল্পকলা একাডেমি।

রাষ্ট্রপতি আবদুল হামিদ, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা, বিরোধীদলীয় নেত্রী রওশন এরশাদ, বিএনপি চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়া কবির জন্মবার্ষিকী উপলক্ষে পৃথক বাণী দিয়েছেন।

কাজী নজরুল ইসলামের জন্ম বাংলা ১১ জ্যৈষ্ঠ ১৩০৬/১৮৯৯ ইং। পশ্চিমবঙ্গের বর্ধমান জেলার চুরুলিয়া গ্রামে। তার পিতার নাম কাজী ফকির আহমেদ, মা জাহেদা খাতুন। দরিদ্র পরিবারে জন্মগ্রহণ করায় দুঃখ-দারিদ্র্য ছিলো তার নিত্য সঙ্গী। তার ডাকনাম ছিলো দুখু মিয়া। পিতার অকাল মৃত্যুতে পরিবারের ভরণপোষণের জন্য তিনি শিশু বয়সেই মক্তবে শিক্ষকতা, হাজি পালোয়ানের মাজারে খাদেম এবং মসজিদের মুয়াজ্জিনের কাজ করেছেন। পরবর্তীকালে বাংলা সাহিত্যে ইসলামি ঐতিহ্যের সার্থক ব্যবহারে এ সম্পৃক্ততা খুব ফলপ্রসূ হয়েছে।

ভ্রাম্যমাণ সংবাদদাতা জানিয়েছেন, জাতীয় কবি কাজী নজরুল ইসলামের ১১৮ তম জন্মবার্ষিকী উপলক্ষে স্মৃতিধন্য কার্পাসডাঙ্গায় চুযাডাঙ্গা জেলা প্রশাসন, দামুড়হুদা উপজেলা প্রশাসন, জেলা ও উপজেলা শিল্পকলা একাডেমির উদ্যোগে ব্যাপক কলবরে দু দিনব্যাপী অনুষ্ঠান আয়োজনের প্রস্তুতি সম্পন্ন করা হযেছে। আজ বৃহস্পতিবার মূল অনুষ্ঠান শুরু হবে। সভাপতিত্ব করবেন চুয়াডাঙ্গা জেলা প্রশাসক জিয়াউদ্দীন আহমেদ। প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থাকার সম্মতি জ্ঞাপন করেছেন জাতীয় সংসদের হুইপ চুয়াডাঙ্গা জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি বীর মুক্তিযোদ্ধা সোলায়মান হক জোয়ার্দ্দার ছেলুন এমপি। দ্বিতীয় দিনের অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত  থাকবেন চুয়াডাঙ্গা-২ আসনের সংসদ হাজি আলী আজগার টগর এমপি। প্রধান আলোচক থাকবেন কৃষি সম্প্রসারণ অধিদফতরের সাবেক মহাপরিচালক হামিদুর রহমান। আরও আলোচনা করবেন জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান শেখ সামসুল আবেদীন খোকন ও কার্পাসডাঙ্গার কৃতি সন্তান কুষ্টিয়া ইসলামী বিশ্ববিদ্যালয়ের বাংলা বিভাগের সহযোগী অধ্যাপক ড. রবিউল হোসেন অনু। অনুষ্ঠানে ২য় পর্বে সঙ্গীত অনুষ্ঠানে সঙ্গীত পরিবেশন করবেন চুয়াডাঙ্গা শিল্পকলা একাডেমির শিল্পী ও স্থানীয় শিল্পীরা।

Leave a comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *