যে ধরিত্রীতে আছি আমরা তা রক্ষা করার দায়িত্ব আমাদেরই

 

বন্যপ্রাণী নিধন, পাচার দীর্ঘদিন ধরেই চলছে। পরিবেশের ভারসাম্য রক্ষার্থে বন, বন্যপ্রাণী সংরক্ষণ অতীব গুরুত্বপূর্ণ। বণ্যপ্রাণী সংরক্ষণে দেশে প্রচলিত আইনও রয়েছে। এরপরও নানাভাবে নিধনে বহু প্রাণী বিলুপ্তপ্রায়। এর মধ্যে তক্ষক অন্যতম। বিলুপ্তপ্রায় প্রাণী নিয়ে এক শ্রেণির সঙ্ঘবদ্ধ চক্র শুধু প্রতারণার ফাঁদই পাতছে না, এরা পাচারও করছে।

কুষ্টিয়ার পল্লিতে এক ব্যক্তির বাড়ি থেকে ৪টি তক্ষক কেনার সময় গোয়েন্দা পুলিশের হাতে ধরা পড়েছে দুজন। পুলিশ বলেছে, তক্ষক ৪টি ভারতে পাচারের জন্য এরা ক্রয় করছিলো। গোপন সংবাদের ভিত্তিতে অভিযান চালিয়ে এদেরকে গ্রেফতার করা হয়েছে। বন্যপ্রাণী সংরক্ষণ আইনে কুষ্টিয়ার ইবি থানায় মামলাও হয়েছে। ক্রেতা দুজনের পাশাপাশি বিক্রেতাকেও এ মামলায় আসামি করা হয়েছে। বিক্রেতা অবশ্য আত্মগোপনে রয়েছে।

মাঝে কিছুদিন ধরে চললো হুতুম প্যাঁচা পাচারের নামে প্রতারণা। গ্রামবাংলায় ঘুরে ঘুরে হুতুম প্যাঁচা ধরে ভারতে পাচারের আড়ালে কাড়ি কাড়ি টাকা প্রতারণার শিকারও হলেন অনেকে। বজ্রপাতে নিহত ব্যক্তির কঙ্কালও কবর থেকে তুলে পাচারের খবর মিলতে শুরু করলো ঘন ঘন। সে খবরের ছন্দে কিছুদিন ছেদ পড়লেও প্রতারকচক্র বসে নেই। তক্ষক নিয়ে প্রতারণায় মেতেছে তারা। পাচারের নামে মোটা অঙ্কের টাকার বিনিময়ে তক্ষক ধরে খাঁচায় ভরে যাদেরকে প্রতারণার ফাঁদে ফেলা হচ্ছে তারা মূলত অর্থলিপ্সু। নতুন করে বলার অবকাশ রাখে না যে, প্রতারণার উপকরণ যাই হোক, মূল অস্ত্র লোভের টোপ। যারা লোভে পড়ে, যারা লোভের টোপে ফেলে বন্যপ্রাণী নিধনে মেতেছে তাদের কাউকেই চাড় দেয়া উচিত নয়।

পাচারের জন্যই হোক আর প্রতারণার জন্যই হোক বন্যপ্রাণী ধরে খাঁচায় ভরা বা হত্যা করা আইনত দণ্ডনীয় অপরাধ। বাঘডাসা হত্যার উল্লাস হলেও যে সমাজে আইনের যথাযথ প্রয়োগ তেমন পরিলক্ষিত হয় না, সে সমাজে বন্যপ্রাণী সম্পর্কে সাধারণ মানুষ সচেতন হবে কীভাবে? সচেতনতা বৃদ্ধির পাশাপাশি আইনের যথাযথ প্রয়োগের মাধ্যমে বন্যপ্রাণী সংরক্ষণ জরুরি। যে ধরিত্রীতে আছি আমরা তা রক্ষা করার দায়িত্ব আমাদেরই।

বন্যপ্রাণী নিধন, পাচার রোধে দেশে প্রচলিত আইনের যথাযথ প্রয়োগের পাশাপাশি দরকার প্রতারকদের উপযুক্ত শাস্তি নিশ্চিত করা। যেহেতু দু পাচারকারী হাতেনাতে ধরা পড়েছে, সেহেতু ওদের নিকট থেকেই প্রতারকচক্রের হোতাদেরও হদিস করে ধরতে হবে। দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি নিশ্চিত করতে পারলে বন্যপ্রাণী যেমন রক্ষা পাবে, তেমনই কমবে প্রতারণা।

Leave a comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *