সৌদি পুলিশের সাথে বিদেশি শ্রমিকদের সংঘাতে নিহত ২

মাথাভাঙ্গা মনিটর: সৌদি আরবের রাজধানী রিয়াদে গত শনিবার পুলিশের সাথে অভিবাসী শ্রমিকদের সংঘর্ষে দুজন প্রাণ হারিয়েছেন। কয়েক শ শ্রমিককে গ্রেফতার করা হয়েছে বলে জানা গেছে।  গত সপ্তায় শ্রমিকদের ভিসা-সংক্রান্ত জটিলতাকে কেন্দ্র করে পুলিশ অভিযান শুরু করলে বিক্ষোভকারী শ্রমিকদের সাথে পুলিশের সংঘাত হয়। সে সময় একজন নিহত হন এবং কয়েক হাজার শ্রমিককে আটক করে পুলিশ। গত শনিবার দাঙ্গা পুলিশ বিক্ষুব্ধ শ্রমিকদের ছত্রভঙ্গ করতে লাঠিপেটা করে ও ফাঁকা গুলি ছোড়ে। শ্রমিকেরা ছত্রভঙ্গ হয়ে পালিয়ে যাওয়ার সময় রাস্তার গাড়ি ও পুলিশকে লক্ষ্য করে পাথর ছুড়তে শুরু করে। সৌদি পুলিশ শনিবার রাতে এক বিবৃতিতে জানায়, দক্ষিণ রিয়াদের পার্শ্ববর্তী মানফুহা এলাকায় বিশৃঙ্খলা ছড়ানোর দায়ে ৫৬১ জনকে আটক করা হয়েছে। এ ঘটনায় নিহত দুজনের একজন সৌদি নাগরিক। তবে আরেকজনের পরিচয় জানা যায়নি। সংঘাতে ৬৮ জনের আহত হওয়ার কথা নিশ্চিত করেছে পুলিশ। সংঘাতে অংশগ্রহণকারীদের বেশির ভাগ শ্রমিকই আফ্রিকার বিভিন্ন দেশ থেকে যাওয়া। এর আগে পুলিশ আরেকটি বিবৃতি দিয়েছিলো। সেখানে শনিবারের সংঘাতে আহত বা আটক করার কথা পরিষ্কার করে বলা হয়নি। তবে একটি স্থানের কথা উল্লেখ করেছিলো, যেখানে শ্রমিকেরা স্বেচ্ছাপ্রণোদিত হয়ে আত্মসমর্পণ করতে পারবেন। সৌদি কর্তৃপক্ষ বলছে, যে শ্রমিকেরা ভিসা-সংক্রান্ত বিধি অমান্য করছেন, তাদের আর ছাড় দেয়া হবে না। দেশটিতে অনেক শ্রমিক ভিসার মেয়াদ ফুরাবার পরও বিভিন্ন কোম্পানিতে কাজ করেন। এ সময় কোম্পানিরা এসব শ্রমিকের কাগজে-কলমে স্বীকৃতি দেয় না এবং তাদের দায়দায়িত্ব বহন করে না। এ সিদ্ধান্তের মূল উদ্দেশ্য হলো অভিবাসী শ্রমিকদের থেকে কালোবাজারির মাধ্যমে সস্তায় শ্রম নেয়ার ব্যবস্থা বন্ধ করা, অভিবাসী শ্রমিকের সংখ্যা হ্রাস করা, অন্য দেশে রেমিট্যান্স কমানো এবং সৌদি নাগরিকদের জন্য বেসরকারি চাকরির সুযোগ বৃদ্ধি করা।

Leave a comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *