সিরিয়ায় যৌন জিহাদ করছেন তিউনিসিয়ার নারীরা!

মাথাভাঙ্গা মনিটর: তিউনিসিয়ার স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী লতিফ বেন জেদদৌ বলেছেন, তার দেশ থেকে বহু নারী সিরিয়ায়ি পাড়ি জমিয়ে সেখানকার সরকারবিরোধী ইসলামপন্থীদের জিহাদে যোগ দিয়েছেন। তবে ওই নারীরা অস্ত্র নিয়ে লড়াই চালাচ্ছেন না। জিহাদ-আল নিকাহ হিসেবে পরিচিত যুদ্ধকালীন সাময়িক বিয়ে বন্ধনে আবদ্ধ হয়ে তারা মুজাহিদদের উদ্দীপ্ত করে পরোক্ষভাবে জিহাদ করছেন। পার্লামেন্ট অধিবেশনে দেয়া বক্তৃতায় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বেন জেদদৌ বলেন, তিউনিসিয়া থেকে সিরিয়ায় যাওয়া ওইসব নারী ২০, ৩০, ১০০ জনের সাথে যৌন সংসর্গে লিপ্ত হচ্ছেন। জিহাদ আল নিকাহর নামে অবাধ যৌনাচার শেষে গর্ভবর্তী হয়ে দেশে ফিরছেন। তবে সিরিয়ার জিহাদিদের ঔরসজাত সন্তান পেটে নিয়ে এ পর্যন্ত কতজন তিউনিসিয়ায় ফিরেছেন, সে ব্যাপারে তিনি বিস্তারিত কিছু বলেননি। সুন্নি সালাফিপন্থি কিছু আলেমের মতে, যুদ্ধকালীন সাময়িক বিয়ে বা জিহাদ আল নিকাহ বৈধ। এ ধরনের জিহাদি বিয়েতে কোনো মুসলিম নারী কোনো মুজাহিদকে বিয়ে করে তার যৌনসঙ্গী হতে পারেন। আবার দ্রুতই তারা বিবাহবিচ্ছেদ ঘটাতে পারেন। এ ধরনের সাময়িক বিয়ের মাধ্যমে একজন নারী এক দিনে একাধিক পুরুষের শয্যাসঙ্গী হতে পারেন। সিরিয়ার প্রেসিডেন্ট বাশার আল-আসাদকে ক্ষমতাচ্যুত করার লক্ষ্যে বিদ্রোহীদের দলে যোগ দিতে তিউনিশিয়ার বিপুলসংখ্যক তরুণ এখন সীমান্ত পাড়ি দিতে চান। এমন ছয় হাজার তরুণকে গত মার্চে আটকানো গেছে বলে জানান তিউনিশিয়ার স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী।

Leave a comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *