সাবেক ছাত্রলীগ নেতা দৌলাতদিয়াড়ের হাফিজুর রহমান লাল্টুর বিরুদ্ধে কিশোর বলাৎকারের অভিযোগে মামলা : তদন্ত শুরু

স্টাফ রিপোর্টার: চুয়াডাঙ্গা সদর উপজেলার সাবেক ছাত্রলীগ নেতা দৌলাতদিয়াড় চুনুরীপাড়ার হাফিজুর রহমান লাল্টুর বিরুদ্ধে কিশোর বলাৎকারের অভিযোগ উঠেছে। এ অভিযোগে সদর থানায় মামলাও রুজু হয়েছে। কিশোরের পিতা বাদী হয়ে গতপরশু মামলা দায়ের করেছেন। গতকাল কিশোরের ডাক্তারি পরীক্ষা সম্পন্ন করা হয়েছে। শেষ খবর পাওয়া পর্যন্ত হাফিজুর রহমান লাল্টু আত্মগোপনে ছিলো।
জানা গেছে, মৃত আয়ুব আলীর ছেলে হাফিজুর রহমান লাল্টুর বিরুদ্ধে দৌলাতদিয়াড় মাঠাপাড়ার বাসিন্দা বাসচালক গতপরশু চুয়াডাঙ্গা সদর থানায় মামলা দায়ের করেন। মামলার বাদী বলেছেন, তার ছেলে মাদরাসার ছাত্র। হাফেজ বিভাগে পড়ে। গত বৃহস্পতিবার দৌলাতদিয়াড় গাংপাড়া জামে মসজিদে মাগরিবের নামাজের পর ওই কিশোর হাফেজ বিভাগের ছাত্রকে হাফিজুর রহমান তার বাড়িতে নিয়ে যায়। সেখানে তাকে বলাতকার করে। পুলিশ এ মামলা রুজু করে তদন্ত শুরু করেছে। তদন্তেরই অংশ হিসেবে গতকাল কিশোরকে চুয়াডাঙ্গা সদর হাসপাতালে নিয়ে ডাক্তারি পরীক্ষা সম্পন্ন করিয়েছে। মামলার তদন্তকারী অফিসার এসআই সুমন সরকার বলেছেন, ভিকটিমের বাবা মামলা করেছেন। আসামি পলাতক রয়েছে।
ঘটনার বিস্তারিত জানতে গতকাল ওই কিশোরের সাথে সরাসারি কথা বলতে গেলে সে জানায়, বৃহস্পতিবার মাগরিবের নামাজে আমিই ইমামতি করি। নামাজ পড়িয়ে মসজিদের দরজা বন্ধ করার সময় লাল্টু চাচা বলেন একটু কাজ আছে। পরে বন্ধ করো। পকেট থেকে খাতা কলম বের করে লেখা লেখির পর বলে শরীরটা ভালো লাগছে না। চলো। মসজিদ থেকে বের হয়ে ঘাড়ে হাত দিয়ে নিয়ে যায় বাড়ি। সেখানে নিয়ে লাল্টু চাচা তার শরীরের … নেড়ে দিতে বলে। বাড়ি থেকে আমাকে ফোন করে। ফোন লাল্টু চাচাই বার বার কেটে দেয়। আধাঘণ্টার একটু বেশি সময় সেখানে ছিলাম। পরদিন বিষয়টি বাড়িতে খুলে বলি। আব্বা মামলা করেছে।

Leave a comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *