সশস্ত্র বাহিনী দিবস আজ

স্টাফ রিপোর্টার: আজ সশস্ত্র বাহিনী দিবস। ১৯৭১ সালের এ দিনে দেশপ্রেমিক জনতা ও মুক্তিবাহিনীকে সাথে নিয়ে সশস্ত্র বাহিনী সম্মিলিতভাবে পাকিস্তানী বাহিনীর বিরুদ্ধে আক্রমণের সূচনা করে। দিবসটি উদযাপনের জন্য বিস্তারিত কর্মসূচি হাতে নেয়া হয়েছে। দেশের সকল সেনানিবাস, নৌ-ঘাঁটি ও স্থাপনা এবং বিমান বাহিনীর ঘাঁটি মসজিদসমূহে দেশের কল্যাণ ও সমৃদ্ধি এবং সশস্ত্র বাহিনীর উত্তোরতর উন্নতি ও অগ্রগতি কামনা করে ফজরের নামাজ শেষে বিশেষ মোনাজাতের মধ্য দিয়ে দিবসের কর্মসূচি শুরু হবে। সশস্ত্র বাহিনী দিবস উপলক্ষে প্রধানমন্ত্রী ও প্রতিরক্ষা মন্ত্রী ঢাকা সেনানিবাসে বীরশ্রেষ্ঠদের উত্তরাধিকারী এবং নির্বাচিত সংখ্যক খেতাবপ্রাপ্ত মুক্তিযোদ্ধা ও তাদের উত্তরাধিকারদের সংবর্ধনা জানাবেন। দিবসটি উদযাপন উপলক্ষে প্রধানমন্ত্রী ও প্রতিরক্ষা মন্ত্রী কর্তৃক ঢাকা সেনানিবাসের সেনাকুঞ্জে বৈকালিক সংবর্ধনা অনুষ্ঠিত হবে। এ সংবর্ধনায় আমন্ত্রিত ব্যক্তিদের মধ্যে রয়েছেন জাতীয় সংসদের স্পীকার, প্রধান বিচারপতি, সাবেক রাষ্ট্রপতিগণ, জাতীয় সংসদের বিরোধীদলের নেতা, মন্ত্রীপরিষদের সদস্য ও সমমর্যাদা সম্পন্ন ব্যক্তিগণ, সুপ্রীমকোর্টের বিচারপতিগণ, প্রধান নির্বাচন কমিশনার ও কমিশনারগণ, বিদেশি রাষ্ট্রদূতগণ, মন্ত্রিপরিষদ বিভাগের সচিব, প্রধানমন্ত্রীর মুখ্যসচিব ও বিশিষ্ট ব্যক্তিবর্গ। এদিকে যশোর সেনানিবাসেও অনুষ্ঠানের আয়োজন করা হয়েছে।

সেনানিবাস, নৌ ও বিমান বাহিনীর ঘাঁটিসমূহের মসজিদে ফজরের নামাজের পর দেশের কল্যাণ ও সমৃদ্ধি এবং সশস্ত্র বাহিনীর উত্তরোত্তর উন্নতি ও অগ্রগতি কামনা করে বিশেষ মোনাজাতের মাধ্যমে দিবসের কর্মসূচি শুরু হবে। দিবসটি উপলক্ষে সশস্ত্র বাহিনীর সর্বাধিনায়ক প্রেসিডেন্ট মো. আবদুল হামিদ এবং প্রধানমন্ত্রী ও প্রতিরক্ষা মন্ত্রণালয়ের দায়িত্বপ্রাপ্ত মন্ত্রী শেখ হাসিনা পৃথক বাণী দিয়েছেন। দিবসটি উপলক্ষে বিরোধীদলীয় নেত্রী খালেদা জিয়াও পৃথক বাণী দিয়েছেন।

Leave a comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *