সলিসে হাজির না হওয়ায় বাড়িতে আগুন দিলো বিক্ষুদ্ধ জনতা

গাংনীর শিশিরপাড়া গ্রামে আড়াই বছরের শিশু বিকৃত যৌন লালসার শিকার

 

গাংনী প্রতিনিধি: মেহেরপুর গাংনী উপজেলার শিশিরপাড়া গ্রামে আড়াই বছরের এক কন্যাশিশু ৪০ বছর বয়সী এক বক্তির বিকৃত যৌন নির্যাতনের শিকার হয়েছে। গত দু দিন ধরে এ নিয়ে গ্রামবাসীর মধ্যে চলছিলো উত্তেজনা। অভিযুক্ত জালাল উদ্দীনকে গ্রামে হাজির করার জোর দাবি থাকলেও গতরাত পর্যন্ত সে হাজির হয়নি। ফলে গ্রামের মানুষের সেই উত্তেজনার চরম বহির্প্রকাশ ঘটেছে। গতরাত ১১টার দিকে অভিযুক্ত জালাল উদ্দীনের বাড়ি আগুন দিয়ে জ্বালিয়ে দেয়া হয়েছে।

স্থানীয়সূত্রে জানা গেছে, গাংনী পৌরসভাধীন শিশিরপাড়া গ্রামের রবিউল ইসলামের ছেলে জালাল উদ্দীন তার এক প্রতিবেশীর আড়াই বছরের শিশুকন্যাকে গত বুধবার কোলে নেয়। বাড়ির পার্শ্ববর্তী স্থানে নিয়ে শিশুটির সাথে খেলা করছিলো। এক পর্যায়ে অবুঝ এ শিশুটি জালাল উদ্দীনের বিকৃত লালসার শিকার হয়। স্থানীয় একজন বিষয়টি দেখে শিশুটির মাকে জানায়। তিনি তড়িৎ ঘটনাস্থলে এলে জালাল উদ্দীন পালিয়ে যায়। এ খবর জানাজানি হলে পাড়া থেকে গ্রাম এবং গোটা এলাকায় নিন্দার ঝড় ওঠে। গ্রামের পক্ষ থেকে জালাল উদ্দীনের পরিবারকে চাপ দেয়া হয় তাকে হাজির করার জন্য। ওইদিনই থানায় জানানো হলে গাংনী থানার এক এসআই ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেন। পুলিশের কাছে ঘটনার সত্যতা প্রকাশ পায়। গতরাতে গ্রামে বসে সালিস। এতে জালাল উদ্দীন হাজির না হওয়ায় ক্ষোভের আগুন আরও বেড়ে যায়। বিক্ষুদ্ধ লোকজন জালাল উদ্দীনের বাড়িতে অগ্নিসংযোগ করে। পরে অবশ্য মেহেরপুর দমকল বাহিনীর সদস্যরা আগুন নেভালেও বাড়ির অনেক জিনিসপত্র ভস্মীভূত হয়ে যায়।

গাংনী থানা ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মাসুদুল আলম জানিয়েছেন, শিশুটি বিকৃত যৌন নির্যাতনের শিকার হয়েছে। গতকাল থানায় মামলা দায়ের করেছেন ভুক্তভোগীর পরিবার। জালাল উদ্দীনকে গ্রেফতারের চেষ্টা চলছে। এদিকে গ্রামের অনেকেই জালাল উদ্দীনকে লম্পট আখ্যায়িত করেছেন। তার এ কর্মকাণ্ডে নিন্দার ঝড় উঠেছে।

Leave a comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *