শোকের চাদরে মোড়া একুশের রক্তিম ইতিহাস বাঙালির অহংকার

Exif_JPEG_420

দর্শনা অনির্বাণের একুশে নাট্যমেলার উদ্বোধনকালে এমপি আলী আজগার টগর

দর্শনা অফিস: প্রতি বছরের মতো এ বছরও একুশের মেলার আয়োজন করেছে অনির্বাণ থিয়েটার। ‘অশনিগুলো হোক আনন্দধ্বনি’ এ স্লে¬াগানকে সামনে রেখে ৭ দিনব্যাপী মহান একুশে নাট্যমেলার অনুষ্ঠানিকভাবে উদ্বোধন করা হয়েছে। দর্শনা ডাকবাংলো চত্বরে অনুষ্ঠিত একুশে মেলার উদ্বোধন পর্বে ছিলো ভিন্নতা। গতকাল বুধবার সন্ধ্যায় অনির্বাণের সদস্যদের পরিবেশনায় মনমুগ্ধকর ডিসপ্ল, ও চুয়াডাঙ্গা-২ আসনের সংসদ সদস্য হাজি আলী আজগার টগরসহ অতিথিরা মোমবাতি প্রজ্জলনের মধ্যদিয়ে একুশে মেলা ও নাট্য উৎসবের শুভ সূচনা করেন। উদ্বোধনী আলোচনা পর্বে প্রধান অতিথির বক্তব্যে এমপি আলী আজগার টগর বলেন, ইতিহাসের যুগসন্দিক্ষনে দাড়িয়ে মহান একুশের চেতনায় উদ্বুদ্ধ হয়ে মানবতা বিরোধীদের বিরুদ্ধে রুখে দাঁড়াতে হবে। একুশের ইতিহাস রক্ত আর সন্তান হারা দুঃখিনী মায়ের অশ্র দিয়ে লেখা ইতিহাস। ১৯৫২’র ভাষা আন্দোলনে যাদের রক্তে লাল হয়েছিলো বাংলা মাটি, আমরা তাদের ভুলবোনা কোনো দিন। রাজপথের সেই রক্তের দাগ হয়তো মুছে গেছে, কিন্তু যতদিন থাকবে এ পৃথিবী বিদ্যমান, ততদিন বাঙালি জাতির অন্তর থেকে মুছবে না সে শোকের ক্ষত। যে ভাষার জন্য এত ত্যাগ, সেই মায়ের ভাষা আজ বিকৃত হচ্ছে নানাভাবে। তাই আসুন একুশের মহিমায় মহিমান্বিত হয়ে বাংলা ভাষার মহতœকে অক্ষুণœ রাখি। ভাষার প্রতি সকলে হই দরদি, নিংড়ে দিয়ে সবটুকু ভালোবাসা, মায়ের মুখের হাসি রাখি অটুট। তাই আসুন একুশের চেতনা বুকে ধারণ করে জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের সোনার বাংলা গড়তে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার হাতকে আরও শক্তিশালী করি। দেশের উন্নয়ন ধারাকে ধরে রাখতে আবারও শেখ হাসিনা সরকার গঠনে সহায়তা করি। অনির্বাণ থিয়েটারের সভাপতিত্বে ফজলুল হকের সভাপতিত্বে সভায় বিশেষ অতিথির বক্তব্যে চুয়াডাঙ্গা জেলা পরিষদের সাবেক প্রসাশক মাহফুজুর রহমান মঞ্জু বলেন, একুশ শোকের চাদরে মোড়ানো একটি ঐতিহাসিক দিন। ১৯৫২ সালে বুকের তাজা রক্ত ঢেলে দিয়ে যারা অর্জন করেছিলো আজকের এ মায়ের ভাষায় কথা বলার অধিকার আমরা তাদের ভুলিনি ও ভুলবো না কখনও। বিশেষ অতিথির বক্তব্য দেন ওয়েভ ফাউন্ডেশনের নির্বাহী পরিচালক, অনির্বাণ থিয়েটারের প্রতিষ্ঠাতা মহসিন আলি বলেন, একুশ সম্পর্কে বর্তমান প্রজন্মকে জানানোর জন্য প্রতি বছর অনির্বাণ থিয়েটার এ আয়োজন করে থাকে। একুশের চেতনায় আজকের প্রজন্ম বেড়ে উঠুক, বুকে লালন করে বেড়ে উঠুক মায়ের ভাষা বাংলা এ প্রত্যাশায় অনির্বাণ থিয়েটার। অনির্বাণ থিয়েটারের সাধারণ সম্পাদক, নাট্যকার আনোয়ার হোসেনের উপস্থাপনায় আরও উপস্থিত ছিলেন চুয়াডাঙ্গা জেলা আ.লীগের শিক্ষা বিষয়ক সম্পাদক, ইউপি চেয়ারম্যান জাকারিয়া আলম, দামুড়হুদা উপজেলা আ.লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক সিরাজুল ইসলাম, আ.লীগ নেতা আলী মুনসুর বাবু, বিল্লাল হোসেন, কেরুজ অফিসার শেখ শাহবুদ্দিন, দর্শনা তদন্ত কেন্দ্রের ইন্সপেক্টর শোনিত কুমার গায়েন, দামুড়হুদা উপজেলা যুবলীগের সভাপতি আ. হান্নান ছোট, দর্শনা পৌর যুবলীগের সভাপতি আশরাফ আলম বাবু, সাধারণ সম্পাদক শেখ আসলাম আলী তোতা, অনির্বাণ কর্মী সাজ্জাদ হোসেন, মাহবুবুর রহমান মুকুল, আওয়াল হোসেন, কবির। এবারের একুশে মেলায় অন্যান্য বারের তুলনায় আরও বেশী সাজসজ্জা করা হয়েছে। বিভিন্ন স্টলে সাজানো হয়েছে মেলা চত্বর। আলোচনা পর্বের পর সঙ্গীতানুষ্ঠান পরিবেশন করেন ভারতের কোলকাতা থেকে আগত মাদল গানের দল।

Leave a comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *