শৈলকুপায় যৌতুক না দেয়ায় নববধূকে বেধড়ক মারপিট করে কেটে দেয়া হয়েছে মাথার চুল

 

ঝিনাইদহ অফিস: যৌতুক না দেয়ায় জলি আক্তার নামে এক নববধূকে বেধড়ক মারপিট করা হয়েছে। নির্যাতনের এক পর্যায়ে কেটে দেয়া হয়েছে তার মাথার চুল। অসুস্থ অবস্থায় এ গৃহবধূকে তার পিতার বাড়ি ঝিনাইদহের শৈলকুপা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়েছে। ঘটনাটি ঘটেছে কুষ্টিয়ার কুমারখালী উপজেলার আদাবাড়ে গ্রামে।

জানা গেছে, গত আড়াই মাস আগে শৈলকুপার বারইপাড়া গ্রামের কুবাদ আলীর মেয়ে জলি আক্তারের বিয়ে হয় পার্শ্ববর্তী জেলা কুষ্টিয়ার কুমারখালী উপজেলার আদাবাড়ে গ্রামের আলী হোসেনের ছেলে মামুনের সাথে। বিয়ের সময় নগদ টাকা, আসবাবপত্র, সোনার গয়নাসহ নানা যৌতুক দেয়া হয়। কিন্তু বিয়ের পর থেকে আরো যৌতুকের দাবিতে স্বামী মামুন, শাশুড়ি নাসরিন, দেবরসহ শ্বশুরালয়ের লোকজন নববধূ জলি আক্তারের ওপর মানসিক ও শারীরিক নির্যাতন চালাতে থাকে। তাকে বেধড়ক মারপিট করে স্বামী, শাশুড়িসহ অন্যরা। কেটে দেয়া হয় মাথার চুল। এক পর্যায়ে তার গয়না ও কাছে থাকা টাকা পয়সা কেড়ে নিয়ে গত শুক্রবার তার পিতার বাড়িতে পাঠিয়ে দেয়া হয়। মুমূর্ষু অবস্থায় তাকে শৈলকুপা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করা হয়।

নববধূ জলি আক্তারের মা জমেলা খাতুন জানান, তার মেয়েকে বিয়ের পর থেকে নির্যাতন করা হচ্ছিলো। এ ঘটনায় স্বামী-শাশুড়িসহ নির্যাতন ও যৌতুক দাবিকারীদের বিরুদ্ধে শৈলকুপা থানায় মামলা দায়ের করা হবে বলে জানিয়েছেন গৃহবধূ জলির মা জামেলা খাতুন।

Leave a comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *