শিগগিরই কাদের মোল্লার ফাঁসি

স্টাফ রিপোর্টার: জামায়াতের সহকারী সেক্রেটারি জেনারেল আবদুল কাদের মোল্লার মামলার পূর্ণাঙ্গ রায় প্রকাশ করেছে সুপ্রিম কোর্টের আপিল বিভাগ। রায়ে বলা হয়েছে, আবদুল কাদের মোল্লার মৃত্যুদণ্ডই একমাত্র যথার্থ শাস্তি। তার অপরাধসমূহ এতxই পৈশাচিক যে, মৃত্যুদণ্ড ছাড়া কোনো সাজাই তার জন্য পর্যাপ্ত নয়। একমাত্র মৃত্যুদণ্ডই তার প্রাপ্য। তার অপরাধের ফলাফল সমস্ত জাতিকে অনন্তকাল বয়ে বেড়াতে হবে। শুধু বাংলাদেশেই নয়, বাংলাদেশের বাইরেও তার অপরাধসমূহ নির্লজ্জ দৃষ্টান্ত হয়ে থাকবে। রায়ে চার বিচারপতি কাদের মোল্লার মৃত্যুদণ্ডের পক্ষে মত দেন। তারা হলেন- প্রধান বিচারপতি মো. মোজাম্মেল হোসেন, বিচারপতি এসকে সিনহা, বিচারপতি সৈয়দ মাহমুদ হোসেন এবং বিচারপতি এএইচএম শামসুদ্দিন চৌধুরী। সংখ্যাগরিষ্ঠ বিচারপতির সাথে ভিন্নমত পোষণ করে রায় লিখেছেন বিচারপতি মো. আবদুল ওয়াহ্‌হাব মিঞা। কাদের মোল্লার বিরুদ্ধে ছয়টি অভিযোগের ৫টিতেই কোনো প্রমাণ পাননি তিনি। ছয় নম্বর (হযরত আলী হত্যা) অভিযোগে কাদের মোল্লাকে যাবজ্জীবন কারাদণ্ড দেন তিনি। মুক্তিযুদ্ধকালীন পাকিস্তান সেনাবাহিনী এবং তাদের সহযোগীদের বর্বরতার কারণে আবেগতাড়িত হওয়ার যথার্থ কারণ থাকা সত্ত্বেও রাগ, বিরাগ এবং অনুরাগের ঊর্ধ্বে উঠে বিচারের কথা বলেছেন এ বিচারপতি। তিনি বলেছেন, শপথ অনুযায়ী তিনি কেবল আইনের অনুসরণ করতে বাধ্য। গতকাল রায় প্রকাশের পরপরই কাদের মোল্লাকে কাশিমপুর কারাগার থেকে ঢাকা কেন্দ্রীয় কারাগারে নিয়ে আসা হয়েছে। ঢাকা কেন্দ্রীয় কারাগারেই যেকোনো দিন তার ফাঁসি কার্যকর করা হতে পারে।

গত ১৭ সেপ্টেম্বর সুপ্রিম কোর্টের আপিল বিভাগ যুদ্ধাপরাধ মামলায় আব্দুল কাদের মোল্লার বিরুদ্ধে মৃত্যুদণ্ডের রায় দেয়। এর আগে গত ৫ ফেব্রুয়ারি ট্রাইব্যুনালের রায়ে তিনি যাবজ্জীবন কারাদণ্ড পেয়েছিলেন। ওই রায়ের পর তার ফাঁসির দাবিতে শাহবাগে ব্যাপক বিক্ষোভ হয়। সে সময় আইনে সাজার রায়ের বিরুদ্ধে রাষ্ট্রপক্ষের আপিল দায়েরের কোনো সুযোগ ছিলো না। পরে আইন সংশোধন করে সরকারকে আপিল দায়েরের সুযোগ দেয়া হয়।

Leave a comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *