রেলওয়ের টিন স্মিথ আলমের দরজায় কাফনের কাপড় : বেদখল করে থাকা চান্দুর পরিবারের বিরুদ্ধে গণস্বাক্ষর

 

স্টাফ রিপোর্টার: চুয়াডাঙ্গা রেলওয়ের টিন স্মিথ আলম আলীর ঘরের দরজায় কাফনের কাপড়, গোলাপজল ও আগরবাতি দেখে শঙ্কিত পরিবার। রেলওয়ের যায়গা দখল করে থাকা চান্দু মিয়ার সাথে বাগবিতণ্ডার কিছুদিন পরেই পাওয়া যায় কাফনের কাপড়। এদিকে বিতর্কিত চান্দু মিয়া ও তার স্ত্রীর বিরুদ্ধে অসামাজিক আচরণ ও অনৈতিক কার্যকলাপের অভিযোগ তুলেছে এলাকাবাসী। উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা ও রেলওয়ের ঊর্ধ্বতন পর্যায়ে গণস্বাক্ষরিত একটি অভিযোগপত্র দাখিল করেছে তারা।

এলাকাবাসীর অভিযোগসূত্রে জানা গেছে, চুয়াডাঙ্গা রেলওয়ের সিগন্যাল অফিসের টিন স্মিথ আলম আলী চাকরির সুবাদে সাহেব বাংলোর পাশে রেলওয়ে কোয়ার্টারে স্বপরিবারে বসবাস করেন। পাশেই সাতগাড়ির চান্দু মিয়া রেলওয়ের জমি দখল করে টিনসেডের ঘর বানিয়ে থাকেন। চান্দু মিয়ার স্ত্রী আনোয়ারা চলতি মাসের ১১ তারিখে আলম আলীর ঘরের পাশ থেকে মাটি কাটেন। এ সময় আলমের স্ত্রী ওই স্থান থেকে মাটি কাটতে নিষেধ করলে তাকে অকথ্য ভাষায় গালিগালাজ করেন আনোয়ারা। এর সপ্তাহখানেক পর আবারও ওই স্থানে মাটি কাটতে যান আনোয়ারা বেগম। এ সময় আনোয়ারার সাথে বাগবিতণ্ডায় জড়িয়ে পড়েন আলমের স্ত্রী। একপর্যায়ে আলম আলীর বাড়ির বাগানের ফুলগাছ, তেঁতুলগাছ, সুপারি গাছসহ বেশকিছু গাছ কেটে দেয় চান্দু মিয়ার স্ত্রী আনোয়ারা বেগম। ওই সময় আলমের পরিবারের লোকজনকে হত্যার হুমকিও দেন তিনি। কিছুদিন পরে গত শনিবার রেলওয়েতে কর্মরত আলম আলীর ঘরের দরজার সামনে কাফনের কাপড়, গোলাপজল ও আগরবাতি রেখে যায় অজ্ঞাত ব্যক্তি। এদিকে, মামলা না করার জন্য আলমের পরিবারকে চাপ দিচ্ছে প্রভাবশালী একটি মহল।

Leave a comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *