যুবলীগ নেতা আজিজুল হত্যাকারীদের গ্রেফতার ও বিচারের দাবিতে চুয়াডাঙ্গায় মানববন্ধন ও সমাবেশ

স্টাফ রিপোর্টার: চুয়াডাঙ্গা জেলা যুবলীগের অন্যতম আজিজুল হত্যার এজাহারভুক্ত আসামিদের পুলিশ ধরছে না। তাদের গ্রেফতার ও শাস্তির দাবিতে মানববন্ধন কর্মসূচি পালন করা হয়েছে। গতকাল সোমবার বেলা সাড়ে ৪টায় চুয়াডাঙ্গা শহীদ হাসান চত্বরে জেলা যুবলীগের উদ্যোগে এ কর্মসূচি পালিত হয়। মানববন্ধনের দলীয় নেতাকর্মীসহ সাধারণ মানুষের ব্যাপক উপস্থিতি লক্ষ্য করা যায়। মানববন্ধনে আজিজুলের বৃদ্ধ মা, বিধবা স্ত্রীসহ এলাকার অসংখ্য নারী-পুরুষ উপস্থিত ছিলেন।
মানববন্ধনে অংশ নিয়ে যুবলীগ নেতৃবৃন্দ বলেন, প্রকাশ্যে চিহ্নিত সন্ত্রাসীরা যুবলীগের সক্রিয় নেতা আজিজুলকে কুপিয়ে হত্যার পরও তারা জনসম্মুখে ঘুরে বেড়াচ্ছে। অথচ, পুলিশ রহস্যজনক কারণে নীরব দর্শকের ভূমিকা পালন করছে। পুলিশের ভূমিকার সমালোচনা করে বক্তারা বলেন, অবিলম্বে ওই সব খুনিকে গ্রেফতার করে শাস্তি নিশ্চিত করা না হলে কঠোর কর্মসূচি দেয়া হবে।
আব্দুল কাদের, সিরাজুল ইসলাম, রাশেদুজ্জামান বাকী, নঈম হাসান জোয়ার্দ্দার ও শামীম আহমেদ সুমন স্বাক্ষরিত এক প্রেসবিজ্ঞপ্তিতে জানানো হয়েছে, ১৫ মিনিটের মানববন্ধন শেষে হাজার হাজার নেতাকর্মী বিক্ষোভ মিছিল সহকারে জাতীয় সংসদের হুইপ সোলায়মান হক জোয়ার্দ্দার ছেলুন এমপির নিকট এসে ক্ষোভ প্রকাশ করতে থাকেন। এ সময় আজিজুলের বৃদ্ধ মা ও স্ত্রী কান্নায় ভেঙে পড়েন। হুইপ ছেলুন জোয়ার্দ্দার সংক্ষিপ্ত বক্তৃতায় নেতা-কর্মীদের উদ্দেশে বলেন, কেউ আইনের ঊর্ধ্বে নয়, খুনিরা যত বড় শক্তিশালীই হোক না কেন, এদের কোনো ক্ষমা নেই। দু দিন আগে হোক আর পরে হোক খুনিদের গ্রেফতার করে দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি দেয়া হবে। তিনি প্রশাসনের উদ্দেশে বলেন, অতি দ্রুত এজাহারভুক্ত আসামিদের গ্রেফতার করতে হবে। তা না হলে অনতিবিলম্বে কঠোর কর্মসূচির মাধ্যমে আপনাদের এই প্রহসনমূলক আচরণের জবাব দেয়া হবে।
মানববন্ধন কর্মসূচিতে বক্তব্য রাখেন জেলা যুবলীগের অন্যতম নেতা আব্দুল কাদের, চুয়াডাঙ্গা সরকারি কলেজের সাবেক জিএস রাশেদুজ্জামান বাকী, জেলা ছাত্রলীগের সাবেক সাধারণ সম্পাদক সিরাজুল ইসলাম আসমান, জেলা যুবলীগের অন্যতম নেতা নঈম হাসান জোয়ার্দ্দার, শামীম আহমেদ সুমন, টুটুল, গোলাম মোস্তফা লালা, তিতুদহ ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের নেতা শুকুর আলী, জেলা ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক মোহাইমেন হাসান জোয়ার্দ্দার অনিক, কলেজ ছাত্রলীগের সাধারণ সম্পাদক তানিম হাসান তারেক ও ছাত্রনেতা জাবিদ।
উপস্থিত ছিলেন যুবলীগ নেতা রেজাউল করিম, আজাদ, হাপু, আরিফ, মাসুম, শুভ, বগা, হযরত, ফিট্টু, বিপ্লব, দিপু, মন্টু, ফটিক, বুলবুল, জেলা স্বেচ্ছা সেবক লীগের যুগ্ম আহ্বাবায়ক আব্দুস সামাদ, জেলা ছাত্রলীগের সহসভাপতি রুবায়েত বিন আজাদ সুস্থির, জেলা ছাত্রলীগের ক্রীড়া বিষয়ক সম্পাদক ফিরোজ জোয়ার্দ্দার প্রমুখ।
প্রসঙ্গত, গত বছরের ১৬ নভেম্বর সন্ধ্যায় চুয়াডাঙ্গা সদর উপজেলার মানিকডিহি গ্রামের যুবলীগ নেতা আজিজুল ইসলাম খুন হন।

Leave a comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *