যুক্তরাষ্ট্রে খুনের সাজা বাংলাদেশিকে

মাথাভাঙ্গা মনিটর: পঁচিশ বছর আগে সাবেক প্রেমিকার ছেলেবন্ধুকে খুনের দায়ে এক বাংলাদেশিকে ৪০ বছর কারাদণ্ড দিয়েছেন যুক্তরাষ্ট্রের একটি আদালত। জানা গেছে, দণ্ডিত মাহফুজ হক (৪৭) ১৯৮৯ সালের ৯ আগস্ট সাবেক প্রেমিকার ছেলেবন্ধুকে হত্যায় অভিযুক্ত হওয়ার পর যুক্তরাষ্ট্র থেকে পালিয়ে বাংলাদেশে চলে আসেন। তবে ২০১১ সালে নয়াদিল্লিতে একটি টেনিস প্রশিক্ষণ শিবিরে যোগ দিতে গিয়ে পুলিশের হাতে ধরা পড়েন মাহফুজ। গত জুলাইয়ে তাকে যুক্তরাষ্ট্রের ইন্ডিয়ানা রাজ্যে ফেরত পাঠানো হয়, যেখানে তিনি ছুরি মেরে হত্যা করেছিলেন ১৯ বছর বয়সী তরুণ টড কেলিকে। এর আগে অবশ্য মাহফুজ বাংলাদেশে ফেরার জন্য জোর চেষ্টা চালান। গত সোমবার স্টুবেন কাউন্টি সুপিরিয়র কোর্টের বিচারক উইলিয়াম ফি টড কেলিকে হত্যায় ঘটনায় দোষী সাব্যস্ত হওয়ায় মাহফুজকে সর্বোচ্চ সাজা দেন। আদালতে মাহফুজ কান্নাজড়িত কণ্ঠে খুনের ঘটনা স্বীকার করে অনুতাপ প্রকাশ করেন। ইন্ডিয়ানা রাজ্যের হ্যামিলটনে টড কেলিকে তার বাসায় হত্যার পর ওই বছরের নভেম্বরে মার্কিন নাগরিকত্ব পাওয়া মাহফুজকে দোষী সাব্যস্ত করা হয়। এরপরই তিনি যুক্তরাষ্ট্র ছেড়ে বাংলাদেশে পাড়ি জমান। বাংলাদেশের আইনশৃঙ্খলা বাহিনী প্রায় ২৫ বছর তার কোনো হদিস করতে পারেনি। খুন হওয়ার পর কেলির মৃতদেহ প্রথম আবিষ্কার করেন তার মেয়েবন্ধু ক্রিস্টিন মাটজফেল্ড, যার সাথে মাহফুজের প্রেমসম্পর্ক ছিলো।

Leave a comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *