যুক্তরাষ্ট্রে এক বাড়িতে ৬ জনকে হত্যা

 

মাথাভাঙ্গা মনিটর: যুক্তরাষ্ট্রের হিউস্টোন শহরতলীর একটি বাড়িতে চারশিশুসহ ছয়জনকে গুলি করে খুন করা হয়েছে।এ ঘটনায় মাথায় গুলিবিদ্ধ অপর এক নারীর অবস্থা গুরুতর। তবে সন্দেহভাজনহত্যাকারীকে পুলিশের সামনে শনাক্ত করার ব্যাপারে এই নারী সহায়তা করতে সক্ষমহয়েছেন বলে জানা গেছে।প্রায় দুঘণ্টা ধরে ধাওয়া করার পর পুলিশ সন্দেহভাজন হত্যাকারীর গাড়ি ঘিরে ফেলে। পালানোর আর উপায় না পেয়ে তিনি আত্মসমর্পণ করেন।ছাড়াছাড়ি নিয়ে গৃহবিবাদের কারণেই এ মর্মান্তিক ঘটনা ঘটেছে বলে পুলিশ জানিয়েছে।তবে নিহতদের সাথে সন্দেহভাজন হত্যাকারীর কি সম্পর্ক তা এখনো পরিষ্কার নয়।পুলিশ জানিয়েছে, সন্দেহভাজন হত্যাকারী শশ্রুমণ্ডিত এবং তার বয়স ত্রিশের কোটায়।পুলিশকর্মকর্তা থমাস জিলিল্যান্ড বলেছেন, তাকে (সন্দেহভাজন হত্যাকারী) ঘিরেফেলার পর তিনি গাড়িতে শান্তভাবে বসে ছিলেন এবং আমাদের দেখছিলেন।তিনিআরো জানান, তারা দু ঘণ্টা ধরে একজন পিস্তলধারী মানুষের সাথে অব্যাহতভাবেকথা চালিয়ে তার গাড়ি অনুসরণ করে যাচ্ছিলেন, যে মানুষটি মাত্রই ছয়জনমানুষকে হত্যা করেছে।হেরিস কাউন্টি শেরিফের কার্যালয় থেকে দেয়া একবিবৃতিতে জানানো হয়, স্থানীয় সময় সন্ধ্যা ৬টায় পুলিশ খবর পেয়ে ঘটনাস্থলেগিয়ে তিনশিশুসহ দুব্যক্তিকে মৃত দেখতে পায়। আহতাবস্থায় চতুর্থ শিশুটি মারাযায় হাসপাতালে।শেষ খবর পাওয়া পর্যন্ত সন্দেহভাজন হত্যাকারীর পরিচয় প্রকাশ করেনি কর্তৃপক্ষ।

Leave a comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *