যুক্তরাষ্ট্রের প্রতি নাখোশ সৌদি আরব

মাথাভাঙ্গা মনিটর: সিরিয়া ও তার ঘনিষ্ঠ মিত্র ইরানের বিরুদ্ধে যুক্তরাষ্ট্রের পদক্ষেপহীনতার প্রতিবাদে বিশ্বের সবচেয়ে ক্ষমতাধর দেশটির সাথে কূটনৈতিক ও বাণিজ্যিক সম্পর্ক শিথিল করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে সৌদি আরব। আরব রাষ্ট্রটির গোয়েন্দাপ্রধান সম্প্রতি ইউরোপীয় কূটনীতিকদের এ তথ্য জানিয়েছেন। প্রিন্স বান্দার বিন সুলতান ইউরোপীয় কূটনীতিকদের কাছে অসন্তোষ প্রকাশ করে বলেছেন, সিরিয়া সঙ্কটের সমাধানে এবং ইসরায়েল-ফিলিস্তিন সংঘাত নিরসনে ওয়াশিংটন কার্যকর পদক্ষেপ নিতে ব্যর্থ হয়েছে, তেহরানের সাথে সখ্য বাড়াচ্ছে এবং ২০১১ সালে বাহরাইনে সরকারবিরোধী বিক্ষোভ দমনে সৌদি আরব সমর্থন দিলেও যুক্তরাষ্ট্র তখন নির্বাক থেকেছে। প্রিন্স বান্দারের ভাষ্যে সৌদি বাদশাহ আবদুল্লাহর মতামত কতোটুকু প্রতিফলিত হয়েছে, তা এখনো পরিষ্কার নয়। তবে সূত্র জানায়, যুক্তরাষ্ট্রের সাথে সৌদি আরবের দূরত্ব সৃষ্টির ব্যাপারটি গুরুতর। সৌদি আরব কোনো বিষয়ে আর কারও ওপর নির্ভরশীল থাকতে চায় না। ১৯৩২ সালে সৌদি রাজতন্ত্র প্রতিষ্ঠার পর থেকে দেশটির ঘনিষ্ঠ মিত্র হয়ে আছে যুক্তরাষ্ট্র। ওয়াশিংটনকে নিরবচ্ছিন্ন জ্বালানি সরবরাহ করার বদৌলতে রিয়াদ পায় পূর্ণ সামরিক সহায়তা। জাতিসংঘের নিরাপত্তা পরিষদের অস্থায়ী সদস্য পদে দু বছরের জন্য মনোনয়ন পেলেও গত শুক্রবার সৌদি আরব তা ফিরিয়ে দিয়েছে। দেশটির অভিযোগ, জাতিসংঘের সাম্প্রতিক আচরণ ‘পক্ষপাতদুষ্ট’।

Leave a comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *