মোমিনপুরে কাজি আব্দুর রহমানের বিরুদ্ধে স্কুলছাত্রীর বিয়ে পড়ানোর অভিযোগ

 

 

স্টাফ রিপোর্টার: চুয়াডাঙ্গা জেলা সদরের মোমিনপুর ইউনিয়নের কাজি আব্দুর রহমানের বিরুদ্ধে আবারো বাল্যবিয়ে পড়ানোর অভিযোগ উঠেছে। ৫ম শ্রেণির স্কুলছাত্রীর বিয়ের খবরে এলাকায় মিশ্র প্রতিক্রিয়ার সৃষ্টি হয়েছে। কাজির শাস্তির দাবি তুলেছে এলাকাবাসী।

এলাকাসূত্রে জানা গেছে, গতকাল মঙ্গলবার চুয়াডাঙ্গার জেলা সদরের মোমিনপুর গ্রামের মসজিদপাড়ার মালয়েশিয়া প্রবাসী ইলিয়াসের মেয়ে স্থানীয় স্কুলের পঞ্চম শ্রেণির ছাত্রী ঋতু খাতুনের (১১) হঠাত করেই বিয়ের কথা বার্তা চলছিলো। বিকেলে বিয়ের কথা পাকাপাকি হয়। স্কুলছাত্রীর পরিবারের লোকজন বিয়ের আয়োজন করে। আলমডাঙ্গা উপজেলার বাদেমাজু গ্রাম থেকে আসে বর ও বরযাত্রী। ডাকা হয় মোমিনপুর ইউনিয়ন পরিষদের বহুল আলোচিত কাজি আব্দুর রহমানকে। কাজী শাদা কাগজে স্বাক্ষর করিয়ে বিয়ে পড়িয়ে দেন। বর ও বরযাত্রী কিশোরী বধূ নিয়ে বাড়ি ফেরে।

এ ব্যপারে অভিযুক্ত কাজির কাছে মোবাইলফোনে জানাতে চাইলে তিনি এই প্রতিবেদককে বিয়ের কথা স্বীকার করে জানান, বিয়ে পড়ানোর জন্য আমাকে ডাকা হয়েছিলো। কিন্তু মেয়ে কিশোরী হওয়ায় বিয়ে না পড়িয়ে চলে আসি। বিয়ে আমি পড়াইনি। গ্রামের মসজিদের ইমামকে দিয়ে বিয়ে পড়িয়েছে।

এলাকাবাসী জানায়, বহুল আলোচিত কাজি আব্দুর রহমানের বিরুদ্ধে বাল্যবিয়ে পড়ানোর অভিযোগ আজ নতুন নয়। সে হরহামেসা বাল্যবিয়ে পড়িয়ে থাকেন। এর আগে বাল্যবিয়ে পড়ানোর দায়ে জেল খেটেও লজ্জা হয়নি। এলাকাবাসী তদন্তপূর্বক ব্যবস্থা নিতে জেলা প্রশাসকের সুদৃষ্টি কামনা করেছেন।

Leave a comment

Your email address will not be published.