মোদীর মুখে বাংলাদেশের প্রশংসা

 

মাথাভাঙ্গা মনিটর: ঘূর্ণিঝড়ের তাণ্ডব থেকে সাধারণ মানুষকে রক্ষা করতে বাংলাদেশের ভূমিকার প্রশংসা করলেন ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী। তিনি বলেছেন, প্রাকৃতিক বিপর্যয়ের মোকাবিলায় বাংলাদেশের এই প্রস্তুতি এখন বিশ্বের সেরা বলে পরিচিত। বিপর্যয়ের ঝুঁকি কমানোর লক্ষ্যে এশীয় মন্ত্রী পর্যায়ের সম্মেলনের উদ্বোধন করে বৃহস্পতিবার মোদী তার ভাষণে এসব কথা বলেন। সরকারি বিবৃতিতে এ খবর জানানো হয়েছে।

ভারতের প্রধানমন্ত্রী বলেন, বাংলাদেশের এই পরিকল্পনার ফলে ঘূর্ণিঝড়ে জীবনহানির সংখ্যা অনেক কমে গেছে। বাংলাদেশের এই মডেল সারা পৃথিবীতে সেরা প্রস্তুতি বলে পরিচিতি পেয়েছে। তিন দিনের এই সম্মেলনে পৃথিবীর ৬০টি দেশ থেকে মন্ত্রী, কর্মকর্তা ও পরিবেশরক্ষা আন্দোলনের সঙ্গে যুক্ত কর্মীরা যোগ দিয়েছেন। সম্মেলনে বাংলাদেশের প্রতিনিধিত্ব করছেন দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা ও ত্রাণমন্ত্রী মোফাজ্জল হোসেন চৌধুরী মায়া। বিপর্যয়ের আগাম বার্তা দেয়ার একটা ব্যবস্থা বাংলাদেশ চালু করেছে এবং এ ধরনের মোকাবেলা সার্থকভাবে করার একটা যোগ্য মডেল সবার সামনে স্থাপন করেছে। তিনি বলেন, এর ফলে বাংলাদেশ বিপর্যয়ের আগেই প্রস্তুতি নিতে পারছে। তাতে প্রাণহানির সংখ্যা যেমন উল্লেখযোগ্যভাবে কমে গেছে, তেমনি ত্রাণের সুবন্দোবস্ত করা সম্ভব হচ্ছে।

বাংলাদেশ হাইকমিশন থেকে দেয়া এক বিবৃতিতে বলা হয়, মন্ত্রী মোফাজ্জল হোসেন সম্মেলনে জানান, সারা দেশে বাংলাদেশ সরকার ঘূর্ণিঝড়ের মোকাবিলায় মোট ৩ হাজার ৮৫১টি ত্রাণশিবির খুলেছে ও বন্যাদুর্গত মানুষের জন্য খুলেছে ১৪২টি শিবির। আগাম বার্তা পাওয়ার সঙ্গে সঙ্গেই এই শিবিরগুলিতে মানুষজনকে নিয়ে আসা হয়। ঘূর্ণিঝড়ের মোকাবেলায় দেশে রয়েছেন ৫৫ হাজারের বেশি শিক্ষিত কর্মী, বন্যার মোকাবিলায় এই সংখ্যাটি ৩২ হাজারের বেশি। তিনি বলেন, প্রধানমন্ত্রীর ঘোষিত লক্ষ্য, প্রাকৃতিক বিপর্যয়ে একজন মানুষেরও যাতে প্রাণহানি না ঘটে।

 

Leave a comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *