মেহেরপুরে ৩ মোটরসাইকেল আরোহী আহত: ধাক্কা দেয়া মোটরসাইকেলের ৩ যুবক আটক

 

মেহেরপুর অফিস: মেহেপুর জেলা কারাগারের সামনে দ্রুত গতির একটি মোটরসাইকেলের ধাক্কায় দাঁড়িয়ে থাকা আরেকটি মোটরসাইকেলের চালক ও দু আরোহী আহত হয়েছেন। গতকাল শুক্রবার রাত সাড়ে ৮টার দিকে এ দুর্ঘটনা ঘটে। আহতদের মেহেরপুর জেনারেল হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। এঘটনায় স্থানীয়রা দ্রুতগামী মোটরসাইকেলের চালক ও ২ আরোহীকে আটক করে পুলিশে খবর দেয়। পুলিশ জিজ্ঞাসাবাদের জন্য থানায় নিয়েছে।

আহতরা হচ্ছেন মেহেরপুর সদর উপজেলার খন্দকারপাড়ার সাল্টু কাজীর ছেলে বিজিবি সদস্য এনায়েত হোসেন (২৮), রাইপুর গ্রামের রমজান আলীর ছেলে আব্দুল হালিম (৩০) ও খন্দকারপাড়ার মৃত শের আলীর ছেলে জামিরুল ইসলাম (২৭)। চালক এনায়েত হোসেনের অবস্থা আশঙ্কাজনক বলে জানিয়েছেন হাসপাতালের কর্তব্যরত চিকিৎসক।

আহত ও স্থানীয় সূত্রে জানা গেছে, এনায়েত হোসেন বিজিবি সদস্য এবং তিনি সিলেট অঞ্চলে কর্মরত। ১৫ দিনের ছুটিতে ঈদ করতে তিনি মেহেরপুর আসেন। ঘটনার সময় তিনি সঙ্গী হালিম ও জামিরুলকে নিয়ে মোটরসাইকেলযোগে মেহেরপুর বড় বাজার থেকে বাড়ি ফিরছিলেন। পথে মেহেরপুর জেলা কারাগারের সামনের একটি দোকান থেকে পান কেনার জন্য তারা রাস্তার পাশে মোটরসাইকেল থামান। এসময় একটি দ্রুত গতির মোটরসাইকেল পেছন থেকে তাদের ধাক্কা দিয়ে পালিয়ে যায়। রাস্তার ছিটকে পড়ে আহত হন ওই তিনজন। স্থানীয় দ্রুতগামী মোটরসাইকেলের চালক ও দুআরোহীকে আটক করে পুলিশে খবর দেন।

পুলিশ ওই মোটরসাইকেলের চালক সদর উপজেলার কোলা গ্রামের আজিজুলের ছেলে সাদ্দাম (২২), আরোহী রাইপুর গ্রামের বিল্লাল হোসেনের ছেলে মিল্টন ও কোলা গ্রামের রমজান আলীর ছেলে রাহেদুলকে (১৬) আটক করে থানায় নেয়। তারা মদনাডাঙ্গা গ্রামের একটি ইফতার মাহফিল থেকে বাড়ি ফিলছিলো বলে তারা জানায়।

থানার ডিউটি অফিসার এসআই উত্তম জানান, উভয়পক্ষের মধ্যে মীমাংসা হলে কেবল আটক যুবকদের ছেড়ে দেয়া হতে পারে বলে সিদ্ধান্ত নিয়েছে সদর থানা পুলিশ।

Leave a comment

Your email address will not be published.