মেহেরপুরে বিষমুক্ত আম

 

 

মাজেদুল হক মানিক/মহসিন আলী: দেশের আতঙ্কের এক নাম বিষযুক্ত মরসুমি ফল। তবে মেহেরপুর জেলার চিত্র ঠিক এর উল্টো। জেলার বাজারগুলোতে যেমনি বিষমুক্ত আম বিক্রি হচ্ছে তেমনি বাইরের জেলাতেও যাচ্ছে এ আম। ভোক্তা, বাগান মালিক ও ব্যবসায়ীদের সচেতনতা এবং গত বছর থেকে প্রশাসনের ব্যাপক অভিযানের কারণে এ পরিবেশ সৃষ্টি হয়েছে বলে মনে করছেন সংশ্লিষ্টরা।

জেলার বিভিন্ন বাজারের ব্যবসায়ী ও বাগান মালিকরা জানান, উপযুক্ত সময়ে এবারে আম সংগ্রহ করেছেন বাগান মালিক ও ব্যবসায়ীরা। যার কারণে বিষ দিয়ে পাকানোর প্রয়োজন পড়েনি। কয়েকদিন আগে হিমসাগর ও ন্যাংড়া আম সংগ্রহ শেষ হয়েছে। এখন আমরুপালি জাতের আম সংগ্রহের সময় চলছে।আযান গ্রামের আমব্যবসায়ী সিরাজুল ইসলামসহ কয়েকজন বাগান মালিক জানান, গত কয়েক বছর ধরে ফরমালিনসহ বিষ প্রয়োগের ঘটনায় ব্যাপক অভিযান চালায় পুলিশ ও জেলা প্রশাসন। ব্যবসায়ীদের অর্থদণ্ডের পাশাপাশি বিষযুক্ত বিপুল পরিমাণ আম ধ্বংস করে। ওই শিক্ষা থেকেই কোনো ব্যবসায়ী আর বিষ প্রয়োগের ঝুঁকি নেয়নি। ফলন কমের কারণে এবারে লাভ কিছুটা কম হলেও বিষমুক্ত আমের ব্যাপক চাহিদা রয়েছে বলেও জানান তিনি।

গত কয়েক বছর ধরে মরসুমী ফল ক্রয় থেকে বিরত ছিলেন মেহেরপুর সিভিল সার্জন কার্যালয়ের মেডিকেল টেকনোলজিষ্ট (ইপিআই) আব্দুস সালাম। তিনি জানান, শিশুদের স্বাস্থ্যক্ষতির কথা চিন্তা করে আম কেনেননি। কিন্তু এবারে সব বাজারে বিষমুক্ত আম পাওয়া যাচ্ছে। মরসুমের প্রথম থেকেই তিনি আম কিনেছেন।বাগান মালিক ও ব্যবসায়ীদের সাথে কথা বলে আরো জানা গেছে, গত বছর প্রতি মণ আমের দর ছিলো ১৬০০-২২০০ টাকা পর্যন্ত। কিন্তু এবারে বিষমুক্ত আম বাজারে তাই বেশি দামে বিক্রি হচ্ছে। পাইকারীতে প্রতি মণ আম ২৪০০-২৮০০ টাকা পর্যন্ত বিক্রি হচ্ছে। একদিকে কিছুটা ফলন কম অন্যদিকে বিষমুক্ত হওয়ায় এবারে আমের ব্যাপক চাহিদা সৃষ্টি হয়েছে। বাইরের জেলাতেও মেহেরপুরের আম সুনামের সাথেই বিক্রি হচ্ছে।জেলা কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তরের হিসেবে এবছর আমবাগান রয়েছে ২ হাজার ৬৩ হেক্টর। গত বছর জেলায় ২১ হাজার ২০২ মেট্রিক টন আম উৎপাদন হয়েছিলো। এবারে অনাবৃষ্টিতে আমের কিছুটা ফলন বিপর্যয় ঘটেছে। বিষমুক্ত আম বেশি দামে বিক্রি হওয়ায় লাভও হচ্ছে বেশ।

মেহেরপুর জেলা প্রশাসক মাহমুদ হোসেন জানান, প্রশাসনের কঠোর নজরদারিতে বিষ মেশাতে পারেনি অসাধু ফল বিক্রেতারা। এ ধারা অব্যহত রাখা হবে।তবে বিষ প্রয়োগ ঠেকাতে পুলিশ প্রশাসনও মাঠ পর্যায়ে কাজ করছে বলে জানান মেহেরপুর পুলিশ সুপার একেএম নাহিদুল ইসলাম। মানবদেহের ক্ষতিকর রাসায়নিক ঠেকাতে আমের আড়ৎ, বাগান ও যানবাহনে তল্লাশি অভিযান চলছে বলেও জানান তিনি।

 

Leave a comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *