মেহেরপুরের আমঝুপি মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের মেধাবী ছাত্রী জিনিয়া এক সপ্তাহ ধরে নিখোঁজ

পিতার অভিযোগ অপহরণ : উদ্ধার তৎপরতা ঝিমিয়ে
আমঝুপি প্রতিনিধি: মেহেরপুর সদর উপজেলার আমঝুপি মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের ৯ম শ্রেণির মেধাবী ছাত্রী অপহৃত হয়েছে। স্কুল থেকে বাড়ি ফেরার পথে তাকে অপহরণ করা হয়। তার পিতা দ্বারে দ্বারে ঘুরলেও পুলিশ বা জেলা প্রশাসন তার উদ্ধারের জন্য তেমন তৎপরতা দেখাচ্ছে না। এ কারণে হতাশ হয়ে পড়েছেন মেধাবী ছাত্রী জিনিয়ার পিতা জিব্রাইল হোসেন।
অভিযোগসূত্রে জানা যায়, মেহেরপুর সদর উপজেলার আমঝুপি গ্রামের জিব্রাইল হোসেনের মেয়ে স্বর্ণালী আক্তার জিনিয়া আমঝুপি মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের মেধাবী ছাত্রী। তার রোল নং ১। সে জেএসসি পরীক্ষায় জিপিএ ৫ পেয়ে উত্তীর্ণ হয়েছে। বর্তমানে সে ৯ম শ্রেণিতে অধ্যয়নরত। গত ১৩ মার্চ স্কুল তেকে বাড়ি ফেরার পথে সে অপহৃত হয়। জিনিয়ার পিতা জিব্রাইল হোসেন মেহেরপুর সদর থানায় লিখিতভাবে অভিযোগ করেছেন যে, ‘মেয়ে জিনিয়া ঘটনার দিনে স্কুলে যায়। ছুটির পর বাড়িতে আসার পথে একটি মাইক্রোবাসে করে তাকে তুলে নিয়ে যাওয়া হয়। অভিযোগে বলা হয় গাংনী উপজেলার গাড়াডোব গ্রামের আবু সামার ছেলে মোঃ জয় (২০), হেলাল খানের ছেলে আবু সামা ও আবু সামার স্ত্রী শিউলি খাতুন মিলে জিনিয়াকে কৌশলে মাইক্রোযোগে অজ্ঞাত স্থানে নিয়ে যায়। এ ব্যাপারে মেহেরপুর সদর থানার এসআই আহসান হাবীবের সাথে যোগাযোগ করা হলে তিনি জানান, অভিযোগ অনুযায়ী আসামিদের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা নেয়া ও ভিক্টিমকে উদ্ধারের তৎপরতা অব্যাহত রাখা হয়েছে। আমঝুপি মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক আহাম্মদ আলীর সাথে যোগাযোগ করা হলে তিনি বলেন এই ছাত্রী কিশোরী জিনিয়া খুবই মেধাবী। তাকে জরুরিভাবে উদ্ধার প্রয়োজন। না হলে তার ভবিষ্যৎ নষ্ট হয়ে যাবে। এদিকে স্থানীয় মানবাধিকার সংস্থা মানব উন্নয়ন কেন্দ্রের (মউক) নির্বাহী প্রধান আশাদুজ্জামান সেলিমের সাথে যোগাযোগ করা হলে তিনি জানান, ভিক্টিমের পিতার পক্ষ থেকে একটি আবেদন পেয়েছি। তিনি এ বিষয়ে জিনিয়াকে উদ্ধারে স্থানীয় পুলিশ প্রশাসনের হস্তক্ষেপ কামনা করেছেন এবং সব ধরনের আইনগত সহযোগিতার আশ্বাস দিয়েছেন। আমঝুপিতে এ ধরনের অপহরণ ঘটনা সংঘটিত হওয়ায় এলাকার অনেক অভিবাবক আতঙ্কগ্রস্ত হয়ে পড়েছেন।

Leave a comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *