মিরসরাইয়ে বাস খাদে : নিহত ১০

স্টাফ রিপোর্টার: মিরসরাইয়ে যাত্রীবাহী বাস খাদে পড়ে কমপক্ষে ১০ জনের মৃত্যু হয়েছে। আহত হয়েছে অন্তত ৩০ জন। জোরারগঞ্জ থানা পুলিশ ৫ জনের মৃত্যুর খবর নিশ্চিত করলেও বিভিন্ন সূত্র থেকে কমপক্ষে ১০ জনের মৃত্যু হয়েছে বলে জানা গেছে। গতকাল সোমবার বেলা ২টায় উপজেলার করেরহাট ইউনিয়নের নয়টিলা মাজারের লোহার ব্রিজ এলাকায় এ দুর্ঘটনা ঘটে।

নিহতের মধ্যে যাদের পরিচয় পাওয়া গেছে তারা হলেন মাটিরাঙ্গার তাইন্দং ইউনিয়নের বাজারটিলা এলাকার মোনাফ সওদাগরের স্ত্রী রহিমা বেগম (৬০), করেরহাট ইউনিয়নের ফরেস্ট অফিস এলাকার মো. ইসমাইল ( ৫০), কয়লার মো. মুন্না ড্রাইভার (২৫), নূর নবী (১৮), বাসের চালক মো. ইব্রাহীম (৪০), পটিয়ার আবু তালেব (৫৫), ফটিকছড়ি হেঁয়াকো এলাকার আশরাফউদ্দিন খান (৫০)। এছাড়া চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে একজন ও ফেনী সদর হাসপাতালে অজ্ঞাত দুই ব্যক্তি মারা গেছে। তাদের পরিচয় পাওয়া যায়নি।

আহদের মধ্যে মিরসরাই উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে চিকিত্সাধীন রয়েছেন কুমিল্লার চান্দিনার শাহাদাত হোসেন (১৮), সোহাগ, অজ্ঞাত পুরুষ (২২), রাজু আহম্মদ (৩৫), রমিজ (৭০) অজ্ঞাত পুরুষ (৪০)। এছাড়া রামগড় উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে রয়েছেন ৪জন। এরা হলেন ভুজপুর থানাধীন বাগান বাজার এলাকার জমির উদ্দিনের ছেলে আনোয়ার হোসেন (৪০), মাটিরাঙ্গার তবলছড়ির এবাদুল হকের পুত্র রুবেল (২০), রামগড় উপজেলার বল্টুরামটিলা এলাকার জসিম উদ্দিনের স্ত্রী জোহরা বেগম (৪০), মাটিরাঙ্গার তাইন্দং এলাকার আবুল কাশেমের পুত্র জোয়াল মিয়া, হাতিমারার চাঁন মিয়ার পুত্র সিরাজ। অন্যদের পরিচয় পাওয়া যায়নি। এছা আহত সিরাজুল ইসলাম (৬০), নাছির (৩০) কোনো হাসপাতালে রয়েছে তা জানা যায়নি।

মাস্তাননগর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি বাসের যাত্রী মো. শাহাদাত হোসেন জানান, সোমবার দুপুরে ফেনী থেকে ‘আলিফ পরিবহন’ নামে যাত্রীবাহী বাস খাগড়াছড়ির উদ্দেশে রওয়ানা হয়। গাড়িতে ৫০ জন যাত্রী ছিলো। গাড়িটি মিরসরাই উপজেলার করেরহাট ইউনিয়নের নয়টিলা মাজারের উপরে লোহার ব্রিজ এলাকায় পৌঁছুলে অন্য একটি গাড়িকে সাইড় দিতে গিয়ে সড়ক থেকে ২শ’ ফুট নিচে খাদে পড়ে যায়। স্থানীয়রা অনেক যাত্রীকে উদ্ধার করে বিভিন্ন হাসপাতালে ভর্তি করায়। তাকেও স্থানীয়রা মিরসরাই উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে ভর্তি করায় বলে জানান শাহাদাত।

মস্তাননগর স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের আবাসিক চিকিত্সক সাবরিনা ইসলাম জানান, করেরহাটে সড়ক দুর্ঘটনার ঘটনায় তাদের হাসপাতালে ৬ জন ভর্তি হয়। এদের মধ্যে আবু তালেব ও আশরাফ উদ্দিন খান মারা গেছে। বাকি ৪ জনের অবস্থা গুরুতর। জোরারগঞ্জ থানার অফিসার ইনচার্জ জাহিদুল কবির জানান, দুর্ঘটনার পর জোরারগঞ্জ থানার একটি টিম ঘটনাস্থলে ছুটে যায়। যাত্রীবাহী বাসটি সড়ক থেকে ২শত ফুট নিচে খাদে পড়ে যায়।

 

 

Leave a comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *