মালিক-শ্রমিক গড়বো দেশ এগিয়ে যাবে বাংলাদেশ স্লোগান নিয়ে সারাদেশে মহান মে দিবস পালন

এম জেনারেল ইসলাম

চুয়াডাঙ্গায় সড়ক পরিবহন আইন ২০১৭র কয়েকটি ধারাউপধারা সংশোধনের দাবি

স্টাফ রিপোর্টার: মহান মে দিবস -২০১৭ উদযাপনে চুয়াডাঙ্গা, মেহেরপুর ও ঝিনাইদহসহ সারাদেশে বর্ণাঢ্য শোভাযাত্রা ও আলোচনাসভা অনুষ্ঠিত হয়েছে। চুয়াডাঙ্গায় গত সোমবার এ উপলক্ষে টাউন ফুটবল মাঠ থেকে শোভাযাত্রা বের হয়ে শহর প্রদক্ষিণ করে জেলা প্রশাসক কার্যালয় চত্বরে এসে শেষ হয়। এবারের প্রতিপাদ্য বিষয় ছিলো মালিক-শ্রমিক গড়বো দেশ, এগিয়ে যাবে বাংলাদেশ। অনুষ্ঠানটির আয়োজন করে জেলা প্রশাসন।

অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (সার্বিক) দেবপ্রসাদ পালের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত অলোচনাসভায় প্রধান অতিথি ছিলেন জেলা প্রশাসক প্রশাসক সায়মা ইউনুস। বিশেষ অতিথির বক্তব্য রাখেন- অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (রাজস্ব) আব্দুর রাজ্জাক, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার (সদর সার্কেল) মো. তরিকুল ইসলাম, সদর উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মৃনাল কান্তি দে, চুয়াডাঙ্গা পৌর প্যানেল মেয়র একরামুল হক মুক্তা, জেলা দোকান মালিক সমিতির সহসভাপতি আব্দুল কাদের জগলু ও সাধারণ সম্পাদক ইবরুল হাসান জোয়ার্দ্দার, জেলা মুক্তিযোদ্ধা সংসদের সাবেক ইউনিট কমান্ডার নুরুল ইসলাম মালিক, জাতীয় শ্রমিক লীগের জেলা সভাপতি আফজালুল হক, জেলা আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক অ্যাড. আব্দুল মালেক ও দফতর সম্পাদক অ্যাড. আবু তালেব বিশ্বাস। বক্তব্য রাখেন- হোটেল ও মিষ্টি বেকারি শ্রমিক ইউনয়নের সভাপতি মো. বাবলু শেখ, ডাক বিভাগ শ্রমিক-কর্মচারী ইউনিয়নের কেন্দ্রীয় কমিটির নেতা আব্দুস সালাম, নির্মাণ শ্রমিক ইউনিয়নের সভাপতি মো. শরীফুদ্দিন, বিএডিসি শ্রমিক লীগের সাধারণ সম্পাদক রেজাউল হক, সিপি বাংলাদেশ লিমিটেডের শ্রমিক ইউনিয়নের পক্ষে আব্দুল মতিন, গণপূর্ত শ্রমিক ইউনিয়নের সভাপতি মোতালেব হোসেন ও জেলা ট্রাক-ট্যাংকলরী শ্রমিক ইউনিয়নের সভাপতি সিরাজুল ইসলাম সিরাজ ও সাধারণ সম্পাদক ইসলাম উদ্দিন। অনুষ্ঠানটি উপস্থাপনায় ছিলেন শাহেদ হাসান হালিম।

এদিকে চুয়াডাঙ্গা জেলা বাস ট্রাক সড়ক পরিবহন শ্রমিক ইউনিয়নের উদ্যোগে শহরের বড়বাজার শহীদ হাসান চত্বরের মুক্তমঞ্চে আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়। সংগঠনের সভাপতি এম জেনারেল ইসলামের সভাপতিত্বে সভায় সাধারণ সম্পাদক রিপন মণ্ডলসহ শ্রমিক নেতারা বক্তব্য রাখেন। বক্তায় পরিবহন শ্রমিকদের পক্ষ থেকে দাবিনামা উপস্থাপন করা হয়। সেগুলো হচ্ছে- সড়ক পরিবহন আইন ২০১৭’র কয়েকটি ধারা-উপধারা সংশোধন করতে হবে। চালকদের ড্রাইভিং লাইসেন্স ইস্যু ও নবায়নের ক্ষেত্রে সহজ শর্ত করতে হবে। একাধিকবার নবায়ন লাইসেন্সসমূহ ভলিউমভুক্ত করতে হবে। পরিবহন শ্রমিকদের বিরুদ্ধে শ্রমিকবিরোধী আইন বাতিল করতে হবে।

আলমডাঙ্গা ব্যুরো জানিয়েছে, চুয়াডাঙ্গা বাস-ট্রাক সড়ক পরিবহন শ্রমিক ইউনিয়নের আলমডাঙ্গা শাখার উদ্যোগে ঐতিহাসিক মে দিবস উপলক্ষ্যে বর্ণাঢ্য র‌্যালি ও আলোচনাসভা অনুষ্ঠিত। মে সোমবার সকাল সাড়ে ৮টায় আলমডাঙ্গা শাখা বাস-ট্রাক সড়ক পরিবহন শ্রমিক ইউনিয়নের কার্যালয় হতে বর্ণাঢ্য র‌্যালি বের হয়ে শহরের প্রধান প্রধান সড়ক প্রদক্ষিণ শেষে কার্যালয়ে আলোচনাসভা অনুষ্ঠিত হয়। আলোচনাসভায় আলমডাঙ্গা শাখা বাস-ট্রাক সড়ক পরিবহন শ্রমিক ইউনিয়নের সভাপতি রিয়াজ উদ্দিনের সভাপতিত্বে প্রধান অতিথি ছিলেন উপজেলা চেয়ারম্যান হেলাল উদ্দিন। বিশেষ অতিথি ছিলেন উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান কাজী খালেদুর রহমান অরুন, আলমডাঙ্গা শাখা বাস-ট্রাক সড়ক পরিবহন শ্রমিক ইউনিয়নের সিনিয়র সহসভাপতি আব্দুল কুদ্দুস, সহসভাপতি আমিরুল ইসলাম। সম্পাদক রফিকুল ইসলাম লিটনের পরিচালনায় উপস্থিত ছিলেন শ্রমিক নেতা সিরাজুল ইসলাম, আলমডাঙ্গা মাইক্রোবাস শ্রমিক ইউনিয়নের সভাপতি রঞ্জু শেখ, সম্পাদক রানা আহমেদ,সহসভাপতি সোহেল উদ্দিন, যুগ্ম সম্পাদক মিরাজ উদ্দিন, আলমডাঙ্গা শাখা বাস-ট্রাক সড়ক পরিবহন শ্রমিক ইউনিয়নের সহ সম্পাদক আকুল হোসেন, সাংগঠনিক সম্পাদক আব্দুল হান্নান, প্রচার সম্পাদক জিনারুল ইসলাম, কোষাধ্যক্ষ সাহাবুল হক, সদস্য বিল্লাল হোসেন, কেপাতুল্লাহ বাবা, গোলাম রাসেল, রবিউল ইসলাম প্রমুখ।

      ভ্রাম্যমাণ সংবাদদাতা জানিয়েছেন, চুয়াড়াঙ্গা জেলা বাস-ট্রাক সড়ক পরিবহন শ্রূমিক ইউনিয়ন কার্পাসডাঙ্গা শাখা কার্যালয়ের উদ্যোগে গত ১ মে মহান মে দিবস উপলক্ষে র‌্যালি ও আলোচনাসভার আয়োজন করে। সংগঠনের সভাপতি লিয়াকত আলীর সভাপতিত্বে আলোচনা করেন সংগঠনের সহ- সভাপতি আবুল হাশেম, সম্পাদক আব্দুল মতিন, সাংগঠনিক সম্পাদক জামাত আলী, শ্রমিক নেতা শওকত আলী প্রমুখ। আলোচনা শেষে সম্পাদক আব্দুল মতিনের নেতৃত্বে র‌্যালি বাজারের প্রধান প্রধান সড়কে প্রদক্ষিণ করে।

      মেহেরপুর অফিস জানিয়েছে, মহান মে দিবস উপলক্ষে মেহেরপুরে শ্রমিক সমাবেশ, আলোচনাসভা ও র‌্যালির আয়োজন করা হয়। সোমবার সকাল ১০টার দিকে জেলা মোটরশ্রমিক ইউনিয়ন কার্যালয়ে অনুষ্ঠিত সমাবেশে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন মেহেরপুর-১ আসনের সংসদ সদস্য ও জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতি অধ্যাপক ফরহাদ হোসেন। অনুষ্ঠানে প্রধান বক্তা ছিলেন জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান ও জেলা বাস-মিনিবাস মালিক সমিতির সাধারণ সম্পাদক আলহাজ গোলাম রসুল।

জেলা মোটরশ্রমিক ইউনিয়নের সভাপতি আহসান হাবিব সোনার সভাপতিত্বে সমাবেশে বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন সহকারী পুলিশ সুপার আহসান হাবিব, জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এমএ খালেক, গাংনী পৌর মেয়র আশরাফুল ইসলাম, জেলা ট্রাক মালিক গ্রুপের সাধারণ সম্পাদক কাথুলী ইউপি চেয়ারম্যান মিজানুর রহমান রানা, শহর আওয়ামী লীগের সভাপতি আ্যাড. ইয়ারুল ইসলাম, সাধারন সম্পাদক আক্কাস আলী, জেলা যুবলীগের আহ্বায়ক মাহফুজুর রহমান রিটন প্রমুখ।

জেলা মোটরশ্রমিক ইউনিয়নের সাধারণ সম্পাদক মতিয়ার রহমানের সঞ্চালনায় সমাবেশে আরও বক্তব্য রাখেন জেলা ছাত্রলীগের সভাপতি বারিকুল ইসলাম লিজন, সাধারণ সম্পাদক জুয়েল রানা, জেলা মোটরশ্রমিক ইউনিয়নের সিনিয়র সহসভাপতি আব্দুর রহমান, শ্রমিক কল্যাণ সম্পাদক শাখাওয়াত হোসেন সবুজ, ক্রীড়া ও সাংস্কৃতিক সম্পাদক রেজাউল হক প্রমুখ। এ সময় সেখানে জেলা বাস-মিনিবাস মালিক সমিতি ও জেলা মোটরশ্রমিক ইউনিয়নসহ বিভিন্ন শ্রমিক সংগঠনের নেতাকর্মীরা উপস্থিত ছিলেন। এর আগে জেলা মটর শ্রমিক ইউনিয়নের পক্ষ থেকে অতিথিদের ফুলের তোড়া দিয়ে বরণ করে নেওয়া হয়। রাতে সেখানে মনোজ্ঞ সাংকৃতিকের আয়োজন করা হয়।

এর আগে সকাল ৯ টায় জেলা প্রশাসনের আয়োজনে জেলা প্রশাসকের কার্যালয়ের সামনে থেকে মহান মে দিবসের একটি র‌্যালি বের করা হয়। র‌্যালির নেতৃত্ব দেন জেলা প্রশাসক পরিমল সিংহ। র‌্যালিতে অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (সার্বিক) রশীদুল মান্নাফ কবির, জেলা ইমারত নির্মানকারী শ্রমিক ইউনিয়নের সভাপতি সামছুল আলম আবুল, সাধারণ সম্পাদক খাকছার আলী প্রমুখ।

      গাংনী প্রতিনিধি জানিয়েছেন, নানা আয়োজনের মধ্যদিয়ে মেহেরপুর গাংনীতে পালিত হয়েছে মহান মে দিবস। সোমবার সকালে বিভিন্ন শ্রমিক সংগঠনের উদ্যোগে র‌্যালি ও আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়। সকাল ৯টায় গাংনী উপজেলা ইমারত নির্মান শ্রমিক সমিতির নতুন কার্যালয়ের সামনে পতাকা উত্তোলনের মধ্য দিয়ে সংগঠনের কর্মসুচী শুরু হয়। সেখান থেকে একটি বর্নাঢ্য র‌্যালি শুরু হয়ে শহরের প্রধান সড়ক প্রদক্ষিণ করে। হাজারো শ্রমিকের কণ্ঠে মে দিবস সফলের দাবি ধ্বনিত হয়। পরে পুরাতন অফিসের সামনে আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়। উপজেলা ইমারত নির্মান শ্রমিক সমিতি সভাপতি হাফিজুর রহমানের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক এমএ খালেক। স্বাগত বক্তব্য রাখেন সাধারণ সম্পাদক সাহিদুল ইসলাম। অতিথি ছিলেন বিশিষ্ট সংগঠক সিরাজুল ইসলাম, উপজেলা যুবলীগ সভাপতি মোশারফ হোসেনসহ শ্রমিক নেতৃবৃন্দ। অনুষ্ঠান সঞ্চালনায় ছিলেন ছাত্রলীগ নেতা আলাম উদ্দীন রিন্টু। এদিকে উপজেলা ইমারত নির্মান শ্রমিক ইউনিয়নের উদ্যোগে সকাল দশটায় র‌্যালি অনুষ্ঠিত হয়। র‌্যালি শেষে হাসপাতাল বাজারে আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়। অনুষ্ঠানে সভাপতিত্ব করেন সংগঠনের সভাপতি আমিরুল ইসলাম। প্রধান অতিথি ছিলেন সাবেক উপজেলা চেয়ারম্যান একেএম শফিকুল আলম। স্বাগত বক্তব্য রাখেন সাধারণ সম্পাদক সামিউল ইসলাম। যুবলীগ সাধারণ সম্পাদক শফি কামাল পলাশের সঞ্চালনায় বিশেষ অতিথি ছিলেন জেলা পরিষদ সদস্য আয়ুব আলী, মজিরুল ইসলাম ও রাইপুর ইউপি চেয়ারম্যান গোলাম সাকলায়েন ছেপু। এদিকে গাংনী উপজেলা রং শ্রমিক ইউনিয়নের উদ্যোগে র‌্যালি ও আলোচনা সভা অনুষ্ঠিত হয়। নেতৃত্বে ছিলেন সংগঠনের সভাপতি রেজাউল ইসলাম। এছাড়াও গাংনী উপজেলা রংশিল্পি সংস্থা একই অনুষ্ঠানেরর আয়োজন করে।

      মুজিবনগর প্রতিনিধি জানিয়েছেন, মুজিবনগরে আন্তর্জাতিক মহান মে দিবস পালিত হয়েছে। সোমবার দুপুরে দিকে মহান মে দিবস উপলক্ষে মুজিবনগর ইমারত শ্রমিক ইউনিয়নের আয়াজনে একটি বর্ণাঢ্য র‌্যালি বের করা হয়। র‌্যালিতে মুজিবনগর ইমারত নির্মাণকারী শ্রমিক ইউনিয়রেন সভাপতি নাজিরুল ইসলামের নেতৃত্বে দেন। র‌্যালিটি উপজেলা বিভিন্ন সড়ক প্রদ্রক্ষিন শেষে একই স্থানে এসে শেষ হয়। এসময় র‌্যালীতে মুজিবনগর উপজেলা ইমারত নির্মাণকারী শ্রমিক ইউনিয়নের সাধারণ সম্পাদক হায়দার আলী সহসভাপতি মমতাজউদ্দীনসহ শ্রমিক ইউনিয়নের এর নেতৃবৃন্দ ও সদস্যরা অংশ নেন।

      ঝিনাইদহ প্রতিনিধি জানিয়েছেন, ঝিনাইদহে নানা আয়োজনের মধ্যে দিয়ে মহান মে দিবস পালিত হচ্ছে। ঝিনাইদহ জেলা প্রশাসনের আয়োজনে শ্রমিক মালিক গড়বো দেশ, এগিয়ে যাবে বাংলাদেশ এ স্লোগানকে সামনে রেখে সোমবার সকালে শহরের পুরাতন ডিসি কোর্ট চত্বর থেকে র‌্যালি বের করা হয়। র‌্যালিটি শহরের বিভিন্ন সড়ক প্রদক্ষিণ করে পায়রা চত্বরে গিয়ে শেষ হয়। পরে পোস্টঅফিস মোড়ে আলোচনা সভার আয়োজন করা হয়। ঝিনাইদহের জেলা প্রশাসক মাহবুব আলম তালুকদার এর সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন জেলা আওয়ামী লীগের সভাপতিশৈলকুপা-১ আসনের সংসদ সদস্য আব্দুল হাই। বিশেষ অতিথি ছিলেন জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক পৌর মেয়র আলহাজ সাইদুল করিম মিন্টু, সিনিয়র সহকারী পুলিশ সুপার এসএম সাহাবউদ্দিন আহমেদ, ঝিনাইদহ প্রেসক্লাবের সভাপতি এম রায়হান, জেলা বাস মিনিবাস মালিক সমিতির সভাপতি রোকনুজ্জামান রানু, ট্রাক মালিক সমিতির সভাপতি মাহমুদুল ইসলাম ফোটন, বাস মিনিবাস শ্রমিক ইউনিয়নের সাধারণ সম্পাদক সাইদুল ইসলাম সাঈদ, সড়ক পরিবহন শ্রমিক ইউনিয়নের সভাপতি দাউদ হোসেন। অনুষ্ঠান পরিচালনা করেন জেলা শ্রমিক লীগের সাধারণ সম্পাদক একরামুল হক লিকু। আলোচনা সভা শেষে ২০ জন শ্রমিককে অবসরকালীন ভাতা প্রদান করে শ্রমিক ইউনিয়ন। পরে মনোজ্ঞ সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান অনুষ্ঠিত হয়।

      মহেশপুর প্রতিনিধি জানিয়েছেন, সোমবার সকালে মে দিবস উপলক্ষে মহেশপুরে পৃথক পৃথক সমাবেশ শ্রমিকরা ইউএন’র বিরুদ্ধে বিক্ষোভ মিছিল করেন। এক দফা এক দাবি, ইউএনও আশাফুর তুই কবে যাবি এই স্লোগান দিতে থাকেন শ্রমিকরা। মহেশপুর ইজিবাইক ও মিশুক শ্রমিক লীগের সভাপতি আলমগীর হোসেনের সভাপতিত্বে মহেশপুর মেইন বাসস্ট্যান্ডে আলোচনাসভা অনুষ্ঠিত হয়।সভায় প্রধান অতিথি হিসাবে বক্তব্য রাখেন ঝিনাইদহ-৩ আসনের এমপি নবী নেওয়াজ। বক্তব্য রাখেন ঝিনাইদ জেলা আ.লীগের সদস্য মীর সুলতানুজ্জামান লিটন, পৌর আ.লীগের সভাপতি অমলকুণ্ড, সাধারণ সম্পাদক এমদাদুল হক বুলু, জেলা কৃষকলীগ নেতা শরিফুল ইসলাম, শ্রমিক নেতা আলমগীর হোসেন প্রমুখ। অপরদিকে  ভ্যান শ্রমিক নেতারা র‌্যালী শেষ করে মহেশপুর হাইস্কুল মাঠে ফেস্টুন উচু করে ইউএনও’র বিরুদ্ধে বিক্ষোভ মিছিল ও আলোচনাসভা করে। প্রধান অতিথি হিসাবে বক্তব্য রাখেন মহেশপুর পৌর মেয়র আব্দুর রশিদ খান, বক্তব্য রাখেন ভ্যান শ্রমিক ইউনিয়নের সভাপতি আব্দুর রশিদ আব্দুল, সাধারন সম্পাদক নাসির উদ্দীন, শ্রমিক লীগের সভাপতি সাহেব আলী, ইমারত শ্রমিক ইউনিয়নের সভাতি মানু মিয়া, মুজিবুর রহমান প্রমুখ। বিক্ষোভ মিছিল বিষয়ে স্থানীয় এমপি নবী নেওয়াজের সাথে যোগাযোগ করলে তিনি বলেন, মহেশপুর উপজেলার সকল মানুষ ইউএনও আশাফুর রহমানের কার্যকলাপে অতিষ্ঠ হয়ে উঠেছে। এই বিক্ষোভ তার বহিঃপ্রকাশ মাত্র। তিনি আরো বলেন ইউএনও আশাফুর রহমান বিএনপির এজেন্ডা বাস্তাবায়ন করছেন। তিনি বিএনপির গুপ্তচর হিসাবে কাজ করছেন। আওমীলীগ দলকে ক্ষতিগ্রস্ত করার জন্য তিনি নানারকম কাজ করে যাচ্ছেন, এতে সরকারের ভাবমূর্তি ক্ষুণ্ণ হচ্ছে।

মহেশপুর পৌর মেয়র আব্দুর রশিদ খান বলেন, ইউএনও আশাফুর রহমান পৌরবাসীর ওপর অত্যাচার করছেন। তার কার্যকলাপে পৌরবাসী অতিষ্ঠ হয়ে পড়েছে। তিনি ২ হাজার টাকা করে যে সকল হোটেল থেকে স্বাধীনতা দিবসের জন্য চাঁদা নিয়েছিলেন পরর্বীতে সেই সকল হোটেলেই মোবাইলকোর্ট করে ৮-১০ হাজার টাকা করে জরিমানা আদায় করেছেন। ইউএনও আশাফুর রহমানের বিরুদ্ধে সাধারণ মানুষ রাস্তায় নেমে পড়েছে। এ বিষয়ে মহেশপুর উপজেলা নির্বাহী অফিসার আশাফুর রহমান বলেন, জনপ্রতিনিধিরা যা করতে পারেন, যা বলতে পারেন আমারা তা পারি না। আমার বিরুদ্ধে এ সকল অভিযোগ মিথ্যা।

 

Leave a comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *