ব্রিটেনে উচ্চ সতর্কতা

 

মাথাভাঙ্গা মনিটর: ব্রিটিশ নিরাপত্তা সংস্থাগুলো ইরাক এবং সিরিয়াথেকে ব্রিটেনে ফিরে আসা ইসলামিক স্টেট (আইএস) জিহাদিদের বড় ধরনের নিরাপত্তাহুমকি বলে মনে করছে। একারণে দেশে উচ্চ সতর্কতা জারি করা হয়েছে। ব্রিটিশসরকারের ধারণা, আইএস জঙ্গিরা সেদেশে বড় ধরনের জঙ্গি হামলা চালাতে পারে।একারণে সামপ্রতিক ঘটনাবলীর পরিপ্রেক্ষিতে ব্রিটিশ স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয়দ্বিতীয় সর্বোচ্চ নিরাপত্তা সতর্কতার নির্দেশ দিয়েছে। স্বরাষ্ট্রমন্ত্রীটেরেসা মে বলেছেন, ইরাক এবং সিরিয়ার পরিস্থিতির কারণে ব্রিটেনে সন্ত্রাসীহামলা হতে পারে বলে তারা আশংঙ্কা করছেন। নাশকতা ঠেকাতে লন্ডনের রাস্তায়পুলিশের উপস্থিতি বাড়ানোর সিদ্ধান্ত নেয়া হয়েছে।

সূত্র জানায়, স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী লন্ডনে এক সংবাদ সম্মেলনে তার এই আশঙ্কারকথা প্রকাশ করেছেন। তিনি বলেন, এ ধরনের হামলায় ব্রিটেন এবং ইউরোপের বিভিন্নদেশ থেকে যারা ইরাক ও সিরিয়ায় লড়াই করতে গেছে, তাদের জড়িত থাকার আশঙ্কাআছে। কেবল ব্রিটেন থেকেই পাঁচ শতাধিক মুসলিম তরুণ সিরিয়া এবং ইরাকে কথিতজিহাদে অংশ নিতে গেছে বলে ধারণা করা হয়। ব্রিটিশ নিরাপত্তা সংস্থাগুলোইতোমধ্যে এই জিহাদি ব্রিটিশ মুসলিম তরুণদের বড় ধরনের নিরাপত্তা হুমকি বলেগণ্য করছে। পাসপোর্ট আইন সংশোধন করে কিভাবে এসব জিহাদিদের দেশেপ্রত্যাবর্তনের পথ ঠেকানো যায় সে ব্যাপারে চিন্তাভাবনা করছে ব্রিটিশ সরকার।

শুক্রবার স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী তেরেসা সন্ত্রাসী হামলার সতর্কতার মাত্রা ‘সম্ভাব্য পর্যায়’ থেকে বাড়িয়ে আশঙ্কাজনক পর্যায়েউন্নীত করেন।যুক্তরাজ্যে পাঁচ ধাপের হামলা সতর্কতার মধ্যে দ্বিতীয় সর্বোচ্চ সতর্কতাএটি। যে কোনো মুহূর্তে শত্রুরা দেশটিতে হামলা চালাতে পারে এমন তথ্য পাওয়ারপরই ‘সর্বোচ্চ’ সতর্কতা জারি করা হয়ে থাকে।

কিছুদিন আগে আইএস একমার্কিন সাংবাদিককে হত্যা করে এর ভিডিও প্রকাশ করার পর মধ্যপ্রাচ্যেরজঙ্গিবাদ নিয়ে আরো অস্বস্তিতে পড়ে যুক্তরাজ্য। কারণ আইএস এর যে যোদ্ধা ফলিনামের ওই সাংবাদিককে গলা কেটে হত্যা করেছিলেন তিনি ব্রিটিশ উচ্চারণে কথাবলছিলেন। ধারণা করা হচ্ছে চেহারা ঢেকে রাখা অস্ত্রধারী ওই হত্যাকারীব্রিটেনেরই নাগরিক। ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রী ডেভিড ক্যামেরন বলেছেন, ইরাক ওসিরিয়ার ইসলামিক স্টেট জঙ্গিরা যুক্তরাজ্যের নিরাপত্তার জন্য নজিরবিহীনহুমকি হয়ে দেখা দিয়েছে।ব্রিটেনের যেসব নাগরিক ইরাক ও সিরিয়া ভ্রমণেযাচ্ছেন এবং আবার দেশে ফিরে আসছেন তাদেরকে ক্রমবর্ধমান হুমকি হিসেবে ডাউনিংস্ট্রিটে এক সংবাদ সম্মেলনে উল্লেখ করেন তিনি। আইএস জঙ্গিরা আল-কায়েদারচেয়েও ভয়ঙ্কর হয়ে উঠেছে এমন মন্তব্য করে তিনি বলেন, প্রয়োজনে নিরাপত্তাব্যবস্থা পুনর্বিন্যাস করা হবে।

Leave a comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *