বেগমপুর এলাকার চিহ্নিত মাদককারবারী বাবু আঙুল ফুলে কলাগাছ

স্টাফ রিপোর্টার: চুয়াডাঙ্গার বেগমপুর চিলমারিপাড়ার বহুল আলোচিত অভিযুক্ত মাদককারবারী বাবু অল্প দিনের ব্যবধানে আঙুল ফুলে কলাগাছ বনে গেছে। ফেনসিডিল ও হেরোইনের কারবার করে দিনমজুর থেকে এখন প্রচুর অর্থের মালিক বাবু। বাবুর নেপথ্যের শক্তি কে এ নিয়ে দেখা দিয়েছে নানা প্রশ্ন।

এলাকাবাসীর অভিযোগে জানা গেছে, চুয়াডাঙ্গা সদর উপজেলার বেগমপুর ইউনিয়নের চিলমারিপাড়ার আমিন উদ্দিনের ছেলে বাবু বছর ৭ আগেও ছিলো একজন সাধারণ কৃষক। হঠাত করে পেয়ে যায় আলাদিনের চেরাগ। জড়িয়ে পড়ে ফেনসিডিল আর হেরোইনের ব্যবসায়। নির্জন চিলমারিপাড়ায় প্রশাসনের নজর না পড়ায় দিনে দিনে আঙুল ফুলে কলাগাছ বনে যেতে থাকে বাবু। এলাকায় বাবুকে এখন মাদকের মহাজন হিসেবেই চিনতে পারে লোকজন। আর বাবুর প্রধান হিসেবে বিশ্বস্ত একই পাড়ার ছিদ্দিকের ছেলে সিরাজুল। সম্প্রতি প্রাইভেটকারে ফেনসিডিল নিয়ে ঢাকায় যাওয়ার পথে হিজলগাড়ি ক্যাম্প পুলিশের হাতে ধরা পড়া এবং কৌশলে পালিয়ে রক্ষা পায়। গতপরশু মঙ্গলবার বাবুর বাড়ির সামনে থেকে জীবননগর বিজিবির ফেনসিডিল ও মোটরসাইকেল উদ্ধার করে। সেখান থেকে পালিয়ে যায় বাবু। সম্প্রতি চুয়াডাঙ্গা পুলিশ সুপার যোগদানের পর থেকে আকন্দবাড়িয়া এবং রাঙ্গিয়ারপোতার মাদক বিকিকিনি হ্রাস পেলেও প্রশাসনের নজর এড়িয়ে চিলমারিপাড়ায় বাবুর তত্ত্বাবধানে গড়ে উঠেছে ফেনসিডিল আর হেরোইনের নিরাপদ এলাকা। এলাকাবাসী আরও জানায়, বাবু একাধিক মাদক মামলার পলাতক আসামি। তাই বেশির ভাগ সময় সে তার নিজ এলাকা থেকে জীবননগরের উথলী এলাকায় চলাচল এবং মাদক ব্যবসার সিণ্ডিকেট নিয়ন্ত্রণ করে চলছে। বিষয়টির প্রতি চুয়াডাঙ্গা পুলিশ সুপারের নজর দেয়া জরুরি বলে সচেতনমহল মনে করছে।

Leave a comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *