বীরশ্রেষ্ঠ হামিদুর রহমানের ৪২তম শাহাদৎ বার্ষিকী আজ

মহেশপুর প্রতিনিধি: আজ ২৮ অক্টোবর বীরশ্রেষ্ঠ শহীদ সিপাহী হামিদুর রহমানের ৪২তম শাহাদতবার্ষিকী। এ উপলক্ষে তার প্রতিকৃতীতে পুষ্পস্তর্বক অর্পণ করবেন স্থানীয় প্রশাসন ও তার পরিবারের লোকজন। তার নামে নির্মিত মহা বিদ্যালয়ে ও নিজ গ্রাম খর্দ্দখালিশপুরে দোয়া মাহাফিল অনুষ্ঠিত হবে।

১৯৪৫ সালে ভারতের পশ্চিমবঙ্গের চব্বিশ পরগনা জেলার চাপড়া থানার ডুমুরিয়া গ্রামে তার জন্ম হয়। তার পিতার নাম মরহুম আক্কাচ আলী এবং মাতার নাম মরহুমা কায়ছুন নেছা। ১৯৪৭ সালে ভারত বিভাগের পর তাদের পরিবার যশোরের সীমান্তবর্তী ঝিনাইদহ জেলার মহেশপুর উপজেলার খর্দ্দখালিশপুর গ্রামে গিয়ে বসবাস শুরু করেন। ২৬ বছর বয়সে ১৯৭১ সালে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ডাকে তিনি মুক্তিযুদ্ধে অংশগ্রহণ করেন। তিনি মৌলভীবাজার জেলার শ্রীমঙ্গলে দক্ষিনপূর্ব কমলগঞ্জ উপজেলার ধলই সীমান্তে পাক হানাদার বাহিনীর সাথে যুদ্ধে শত্রু পক্ষের দুজন সৈন্যকে ঘায়েল করেন। এরপর শত্রু পক্ষের গুলিতে ১৯৭১ সালে ২৮ অক্টোবর শাহাদৎবরণ করেন তিনি। তখন তার সহপাঠীরা তার লাশ নিয়ে ৩০ কিলোমিটার দূরে দক্ষিণ ভারতের আমবাসা গ্রামের একটি মসজিদের পাশে দাফন সম্পন্ন করেন। ৩৬ বছর পর ২০০৭ সালের ১১ ডিসেম্বর তার লাশ ওই স্থান থেকে উত্তোলন করে ঢাকার মিরপুরস্থ শহীদ বুদ্ধিজীবী কবরস্থানে সমাহিত করা হয়। কিন্তু দীর্ঘ ৪২ বছর পার হলেও তার পরিবারের স্বজনদের অনেক আশা এখনও পূরন হয়নি বলে জানিয়েছেন বীরশ্রেষ্ঠ শহীদ সিপাহী হামিদুর রহমানের ভাই ফজলুর রহমান। তিনি জানান, কলেজ কর্তৃপক্ষ সকাল ১০টায় কলেজে মিলাদ মাহাফিলের আয়াজন করেছে এবং বাসায় বিকেলে কাঙালীভোজের আয়াজন করা হয়েছে। এছাড়া তারা যে বাড়িতে বসবাস করছেন তা ১৯৮১ সালে এরশাদ সরকারের আমলে সরকারিভাবে নির্মাণ করা যা বর্তমানে জরাজীর্ণ হয়ে গেছে। ঘরগুলো অচিরেই মেরামত করা প্রয়োজন।

Leave a comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *