বিশ্ব টুকিটাকি : ১৮৫০ সালে ডুবে যাওয়া বিখ্যাত জাহাজের সন্ধান

পাকিস্তানে ফেসবুকে ইসলাম অবমাননার দায়ে মৃত্যুদণ্ড

মাথাভাঙ্গা মনিটর: পাকিস্তানে ফেসবুকে ইসলাম অবমাননাকর বিষয় পোস্ট করায় মৃত্যুদণ্ড দিয়েছে এন্টি টেররিজম কোর্ট। লাহোরে ৩০ বছর বয়সী ওই ব্যক্তি শিয়া সম্প্রদায়ের। এন্টি টেররিজম আদালতের বিচারক শাবির আহমদ ভাওয়ালপুরে এই রায় প্রদান করেন। এটি পাকিস্তানে সাইবার ক্রাইম বিষয়ক প্রথম মৃত্যুদণ্ড। পাকিস্তানের কাউন্টার টেররিজম ডিপার্টমেন্ট গত বছর ভাওয়ালপুর থেকে তাকে গ্রেফতার করে। তার বিরুদ্ধে মুলতান পুলিশ স্টেশনে মামলা দায়ের করা হয়। লাহোরের ওই বাসিন্দার বিরুদ্ধে অভিযোগ, তিনি বিখ্যাত সুন্নি ধর্মীয় নেতা ও মহানবী হযরত মোহাম্মদ (দ) স্ত্রী সম্পর্কে অবমাননাকর কথা ফেসবুকে পোস্ট করেছেন। সাইবার ক্রাইমে পাকিস্তানে এখন পর্যন্ত প্রদত্ত সর্বোচ্চ শাস্তি।

ফিলিপাইনে জঙ্গিদের সাথে সংঘর্ষে ১৩ সেনা নিহত

মাথাভাঙ্গা মনিটর: ফিলিপাইনে জঙ্গিদের সাথে বন্দুকযুদ্ধে ১৩ মেরিন সেনা নিহত হয়েছে। এসব ইসলামি চরমপন্থীরা দেশটির দক্ষিণাঞ্চলীয় একটি নগরীর কয়েকটি এলাকা দখল করে নিয়েছে। আর ফিলিপাইনের সৈন্যরা কয়েকশ’ ইসলামপন্থী যোদ্ধাকে উৎখাতে ব্যর্থ হচ্ছে। গতকাল শনিবার সেনাবাহিনীর এক মুখপাত্র একথা বলেন। ২৩ মে জঙ্গিরা মুসলিম প্রধান নগরী মারাওয়ি দখল করে ইসলামিক স্টেট এর পতাকা উড়িয়ে দেয়। জঙ্গিরা তাদের অবস্থানকে সুরক্ষিত করতে বোমার আঘাত রুখতে সক্ষম সুড়ঙ্গ, ট্যাংক বিধ্বংসী অস্ত্র ও মানব ঢাল ব্যবহার করছে। সর্বশেষ হতাহতের ঘটনায় চলমান এই লড়াইয়ে এখন পর্যন্ত ৫৮ সরকারি সেনা নিহত হলো। সরকারের পক্ষ থেকে বলা হয়েছে, এই সংঘর্ষে অন্তত ১৩৮ জঙ্গি ও ২০ বেসামরিক লোক প্রাণ হারিয়েছে।

আফগানিস্তানে একদিনের অভিযানে ২৩ জঙ্গি নিহত

মাথাভাঙ্গা মনিটর: আফগানিস্তানে গত ২৪ ঘণ্টায় নিরাপত্তা বাহিনীর সদস্যরা দেশটির বিভিন্ন স্থানে অভিযান চালিয়ে ২৩ সশস্ত্র জঙ্গিকে হত্যা করেছে। গতকাল শনিবার দেশটির স্বরাষ্ট্র মন্ত্রণালয় এক বিবৃতিতে একথা জানায়। ওই বিবৃতিতে বলা হয়, ‘আফগান জাতীয় প্রতিরক্ষা ও নিরাপত্তা বাহিনীর সদস্যরা ফারইয়াব, বাদাখশান, কুন্দুজ ও হেলমান্দ প্রদেশে অভিযানগুলো পরিচালনা করে। এই ঘটনায় নয় জঙ্গি আহত এবং আরও দুইজনকে গ্রেফতার করা হয়েছে।’ নিরাপত্তা বাহিনীর সদস্যরা এ সময় বিপুল পরিমাণ অস্ত্র উদ্ধার করে বলে জানানো হয়েছে।

১৮৫০ সালে ডুবে যাওয়া বিখ্যাত জাহাজের সন্ধান

মাথাভাঙ্গা মনিটর: জেনি লিন্ড। টাইটানিকের মতো আলোচিত না হলেও ওই সময়কালীন এই জাহাজটির ছিলো যথেষ্ট খ্যাতি। ১৮৫০ সালের ঘটনা। জাহাজটি মেলবোর্ন থেকে সিঙ্গাপুরের উদ্দেশ্যে দক্ষিণ প্রশান্ত মহাসাগর পাড়ি দিচ্ছিলো তখন। ওই বছরে ২১ সেপ্টেম্বর রাতে ডুবে থাকা এক প্রবাল প্রাচীরে ধাক্কা খেয়ে ডুবে যায় জাহাজটি। জাহাজটিতে ৩টি শিশুসহ মোট ২৮ জন যাত্রী ও নাবিক ছিলেন। পরে ডুবন্ত জাহাজ থেকে যাত্রী ও নাবিকরা সাঁতরিয়ে পাশের এক দ্বীপে আশ্রয় নেন। ৩৭ দিন সেখানে থাকার পর তাদের উদ্ধার করা হয়। এদিকে ‘জেনি লিন্ড’ সাগরের লোনায় পড়ে ছিল প্রায় ১শ বছরেরও বেশি সময়। ১৯৮৭ সালের এক সমুদ্র জরিপে জানা যায়, এই প্রবাল প্রাচীরের কাছে গভীর সমুদ্রে ‘জেনি লিন্ড’-এর ধ্বংসাবশেষকে দেখতে পাওয়া যাচ্ছে। সেই সময় থেকেই তোড়জোড় শুরু হয়।

Leave a comment

Your email address will not be published.