ফেনসিডিলবহন করা প্রাইভেটকারে এক চিকিৎসকসহ ৪ জন : একজনকে থানায় দিলেও বাকিদের টাকার বিনিময়ে ছেড়ে দেয়ার অভিযোগ

কুষ্টিয়া মিরপুরের কাকিলাদহ পুলিশ ক্যম্পের ইনচার্জ জালালের কা-

স্টাফ রিপোর্টার: আটককৃত ৪জনের মধ্যে ৩ জনকে পুলিশ মোটা অঙ্কের টাকার বিনিময়ে ছেড়ে দিয়েছে বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে। গত সোমবার রাতে কুষ্টিয়ার মিরপুর উপজেলার আবুরী এলকায় অভিযান চালিয়ে একটি প্রাইভেটকারসহ ৪ জনকে আটক করে কাকিলাদহ ক্যাম্প পুলিশ। গতকাল মঙ্গলবার দুপুরে তাদের মধ্যে ৩ জনকে ২ লাখ টাকার বিনিময়ে ক্যাম্প থেকে ছেড়ে দিয়ে একজনকে থানায় সোপর্দ করেছে ক্যাম্প ইনচার্জ এসআই জালাল উদ্দিন।
এলাকাবাসী ও প্রত্যক্ষদর্শীরা জানায়, একটি প্রাইভেট কার আটক করে পুলিশ। তাতে বিপুল পরিমাণ ফেনসিডিল ছিলো বলে শোনা যায। ওই প্রাইভেটে মেহেরপুরের গাংনী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের একজন মেডিকেল অফিসার, মিরপুর উপজেলার কাকিলাদহ এলাকার মাদকব্যবসায়ী জিহাদ, চুয়াডাঙ্গার আলমডাঙ্গা উপজেলার হারদী এলাকার সোহাগ ও শাহিনকে আটক করে পুলিশ। তারপর মঙ্গলবার দুপুরে জিহাদকে মাত্র ৪ বোতল ফেনসিডিলসহ থানায় সোপর্দ করেছে এবং বাকি ৩ জনকে ২ লাখ টাকার বিনিময়ে ক্যাম্প থেকে ছেড়ে দিয়েছে।
জিহাদের পরিবারের অভিযোগ, জিহাদসহ আরও ৩ জনকে আটক করে পুলিশ। তবে টাকার বিনিময়ে ৩ জনকে ছেড়ে দিয়ে শুধু জিহাদকে থানায় চালান করেছে পুলিশ।
এ ব্যাপারে কাকিলাদহ পুলিশ ক্যাম্পের ইনচার্জ এসআই জালাল উদ্দিন জানান, আমি কোনো ডাক্তারকে আটক করিনি। যাকে আটক করেছি তাকে চালান দিছি। বাকিদের খবর আমার জানা নেই।
গাংনী উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের আবাসিক মেডিকেল অফিসার (আরএমও) ডা. এমকে রেজা জানান, মেডিকেল অফিসার বোধা দিপ্ত দাস ওরফে পিকলু দাসের আজকে ডিউটি না থাকায় তিনি হসপিটালে আসেনি। মিরপুর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা রফিকুল ইসলাম জানান, একজনকে আটকের খবর শুনেছি। তবে বাকি ৩ জনের কাছে কিছু না পাওয়ায় তাদের ছেড়ে দেয়া হয়েছে। তবে তাদের আটক করা বা টাকা নিয়ে ছেড়ে দেয়ার বিষয়ে কিছু জানেন না বলেও জানান ওসি।

Leave a comment

Your email address will not be published.