ফিলিপাইনে বন্যায় ৩০ জনের প্রাণহানি

মাথাভাঙ্গা মনিটর: টাইফুন পাবুকের প্রভাবে ফিলিপানের রাজধানী ম্যানিলা ও লুজন দ্বীপপুঞ্জে ভারী বর্ষণে সৃষ্ট বন্যায় কমপক্ষে ৩০ জন নিহত হয়েছে। কর্তৃপক্ষ জানিয়েছে, বন্যার ফলে গত দু দিনে ৩৬ হাজারের বেশি মানুষ ক্ষতিগ্রস্ত হয়েছে। ম্যানিলার ১৩৮ কিমি দক্ষিণে জাম্বেলস প্রদেশে ইতিমধ্যে উদ্ধার তৎপরতা শুরু হয়ে গেছে। মহাসড়কগুলোতে কাদা ও ধ্বংসাবশেষ পরিষ্কারের কাজ শুরু হয়েছে। বন্যায় আটকে যাওয়া আলেক্স ব্যানগো বললেন, ‘আমরা ঘুম থেকে উঠে দেখি আমাদের শোবারঘরে হাঁটু পর্যন্ত পানি জমে গেছে। এক ঘণ্টার মধ্যে আমাদের ঘরের অর্ধেক পানিতে ডুবে যায়। এজন্য আমরা সিলিং খুলে ছাদে যাওয়ার সিদ্ধান্ত নেই। সুবিক শহরে বন্যায় কমপক্ষে ১৮ জনের প্রাণহানি ঘটেছে। উদ্ধারকর্মীরা ধ্বংসাবশেষের মধ্যে এখনও জীবিত মানুষের খোঁজে উদ্ধার তৎপরতা চালাচ্ছেন। স্থানীয় সরকার কর্তৃপক্ষ কয়েকটি গ্রামে সর্বোচ্চ সতর্কতা জারি করে যতো দ্রুত সম্ভব গ্রামবাসীদের আশ্রয় কেন্দ্রে অবস্থান নিতে বলেছে। এলমার ফ্লোরেস নামের এক জেলে জানালেন, সে কোনোমতে বেঁচে গিয়েছেন। তিনি আশা করেছেন স্থানীয় সরকার তাদের স্থানান্তরে সাহায্য করবে। তিনি বলেন, সরকার সাহায্য করলে আমরা এ জায়গা ছেড়ে নিরাপদ আশ্রয়ে যেতে চাই। সাম্প্রতিক সময়ে মরসুমি বৃষ্টিপাত ফিলিপাইনের জন্য এক আতঙ্ক হয়ে দাঁড়িয়েছে। গত বছর ভারি মরসুমি বৃষ্টিতে সৃষ্ট বন্যায় ৫০ জন মারা যায়। এবং দু লাখ ৭০ হাজার মানুষ নিরাপদ আশ্রয় খুঁজতে বাধ্য হয়।

Leave a comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *