প্রয়াত পিনুর মেয়ে পিয়ার পাশে বাবু খানের প্রতিনিধিদল

 

ঋণগ্রস্ত বাড়ি ও মেয়ের লেখাপড়া সম্পর্কে খোঁজ নিলেন : করলেন সহযোগিতা

স্টাফ রিপোর্টার: এক মতাদর্শের মানুষ হলেও তিনি দলমত নির্বিশেষে সকলের সাথেই খোলা মনে মিশতেন, মুক্তমনের উল্লাস দিয়ে তিনি জয় করতেন কষ্ট। হাসি খুসি সেই তিনি সাইফুল ইসলাম পিনু চলে গেছেন। রেখে গেছেন মূলত স্মৃতি। রয়েছে একমাত্র কন্যা পিয়া। তারই খোঁজ খবর নিতে চুয়াডাঙ্গারই আর এক রাজনীতিক বিশিষ্ট তরুণ শিল্পপতি মাহমুদ হাসান খান বাবু তার দলীয় প্রতিনিধি দল পাঠান।

গতকাল শনিবার বেলা ১২টার দিকে প্রতিনিধি দল প্রায়ত পিনুর বাসায় উপস্থিত হন। ছিলেন চুয়াডাঙ্গা জীবননগর উপজেলা বিএনপির সাধারণ সম্পাদক আন্দুলবাড়িয়া ইউপির সাবেক চেয়ারম্যান আনোয়ার হোসেন খাঁন, জীবননগর উপজেলা বিএনপির সাংগঠনিক সম্পাদক আবুল কালাম, দামুড়হুদা উপজেলা যুবদলের সভাপতি মোকারম হোসেন, সাধারণ সম্পাদক সাবেক দামুড়হুদা ইউপি চেয়ারম্যান রফিকুল হাসান তনু, যুবদল নেতা একরামুর হোসেন ও ফিরোজ মামুন প্রমুখ।

কেন্দ্রীয় যুবদলের বাণিজ্য ও শিল্প বিষয়ক সম্পাদক চুয়াডাঙ্গা-২ আসনের বিএনপির মনোনয়ন প্রত্যাশী আন্দুলবাড়িয়ার সন্তান মাহমুদ হাসান খান বাবুর প্রেরিত প্রতিনিধি দলকে সাইফুল ইসলাম পিনুর রেলবাজারস্থ বাসায় স্বাগত জানান তার বোন অবসরপ্রাপ্ত স্কুল শিক্ষিকা, দৈনিক মাথাভাঙ্গা সম্পাদক সরদার আল-আমিন ও পিনু তনয়া পিয়া। পিয়ার লেখাপড়াসহ ঋণগ্রস্ত বাড়ি সম্পর্কেও প্রতিনিধি দল খোঁজখবর নেন। এরই মাঝে মাহমুদ হাসান খান বাবুর প্রদত্ত নগদ ৫০ হাজার টাকা প্রদান করে প্রতিনিধিদল।

সাইফুল ইসলাম পিনু ছিলেন জাসদের চুয়াডাঙ্গা জেলা সভাপতি। তিনি পর পর দু বার চুয়াডাঙ্গা সদর উপজেলা চেয়ারম্যান হিসেবে নির্বাচিত হয়ে নিষ্ঠার সাথে দায়িত্ব পালন করেন। দৈনিক মাথাভাঙ্গার প্রধান সম্পাদক ছিলেন তিনি। তার মৃত্যুর পর তার প্রতি সম্মান জানাতে ওই পদেই তাকে রাখা হয়েছে, ফলে মাথাভাঙ্গা পরিবার প্রধান সম্পাদক হিসেবে আর কাউকেই নিযুক্ত করবে না।

Leave a comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *