প্রতি উপজেলায় সরকারি কলেজ ও স্কুল করা হবে : প্রধানমন্ত্রী

স্টাফ রিপোর্টার: আগামীতে ক্ষমতায় এলে প্রতিটি উপজেলায় একটি করে সরকারি কলেজ ও স্কুল করা হবে বলে ঘোষণা দিয়েছেন প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। গতকাল বুধবার পাবনার ঈশ্বরদীতে রূপপুর আণবিক প্রকল্প মাঠে পাবনা জেলা আওয়ামী লীগ আয়োজিত জনসভায় এ ঘোষণা দিয়ে তিনি বলেন, আওয়ামী লীগ ক্ষমতায় থাকলে মানুষ শান্তিতে থাকে। দেশ উন্নয়নের দিকে এগিয়ে যায়। আর বিএনপি-জামায়াত ক্ষমতায় থাকলে দেশে নৈরাজ্য, লুটপাট ও সন্ত্রাসের স্বর্গে পরিণত হয়। দেশের উন্নয়ন ও শান্তি ধরে রাখতে আবারও আওয়ামী লীগকে রাষ্ট্র ক্ষমতায় বসানোর জন্য জনগণের প্রতি আহ্বান জানিয়ে আগামী নির্বাচনে নৌকা মার্কায় ভোট প্রার্থনা করে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেন, আগামীতে ক্ষমতায় এলে প্রতিটি উপজেলায় একটি করে সরকারি কলেজ ও স্কুল করা হবে।

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বলেন, সরকার সাড়ে চার বছরে বিদ্যুতের উৎপাদন নয় হাজার ৭১৩ মেগাওয়াটে উত্তীর্ণ করেছে। যা দ্বিগুণেরও বেশি। এতে রিজার্ভ বেড়েছে। আর বিদ্যুত খাতের উন্নয়নের কারণে দারিদ্র্য ৫৬ শতাংশ থেকে কমে ২৬ শতাংশে নেমে এসেছে। বিশ্বে অর্থনৈতিক মন্দা থাকা সত্ত্বেও বাংলাদেশ এগিয়ে যাচ্ছে। তিনি বলেন, আমরা কথায় নয়, কাজে বিশ্বাসী। সে কথা প্রমাণ করেছি। ২০২১ সালে ২০ হাজার মেগাওয়াট বিদ্যুত উৎপাদনের লক্ষ্য নিয়ে কাজ করছে সরকার। তার মধ্যে ১০ ভাগ আসবে পারমাণবিক বিদ্যুৎ থেকে।

বিএনপি-জামায়াতের শাসনামলে দেশের জনগণের ওপর একাত্তরে পাকিস্তানি হানাদার বাহিনীর মতো হত্যা, নির্যাতন ও ধর্ষণ হয়েছে বলে মন্তব্য করে প্রধানমন্ত্রী বলেন, যারা ইসলাম ও ধর্মের নামে রাজনীতি করে তাদের হাতে দেশ তুলে দেয়া যাবে না। কারণ ধর্মের দোহাই দিয়ে তারা নির্বিচারে মানুষ হত্যা করে। তারা আসলে ইসলামের শত্রু। এ সময় ধর্মীয় রাজনৈতিক দল ও তাদের পৃষ্ঠপোষকদের থেকে সাবধান থাকার জন্য সাধারণ জনগণের প্রতি আহ্বান জানান শেখ হাসিনা। বিএনপির আমলে আওয়ামী লীগ নেতা হযরত আলী, মহসীন, সোহেল, ফারুক, সামাদ, আমজাদ, রাজ্জাক, টিপু, শহীদ, যুবলীগের সিরাজুল, নজরুলসহ অসংখ্য নেতাকে হত্যা করেছে বলে ইল্লেখ করে শেখ হাসিনা বলেন, পাবনার প্রত্যেকটি এলাকায় সন্ত্রাস ছড়িয়েছে সে সময়। একের পর এক তারা হত্যাকাণ্ড চালিয়েছে। গাইবান্ধা, বগুড়ায় আওয়ামী লীগ নেতাদের কীভাবে হত্যা করেছে তা সবারই জানা আছে। তিনি বলেন, ঠিক পাকিস্তানি হানাদার বাহিনীর মতো একইভাবে নারী ধর্ষণ ও নির্যাতন চালিয়েছে বিএনপি-জামায়াত জোট।

এর আগে বেলা ১১টায় ঈশ্বরদীর পাকশীর রূপপুরে পারমাণবিক বিদ্যুতকেন্দ্রের ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন করেন প্রধানমন্ত্রী। রাশিয়ার সহযোগিতায় দু হাজার মেগাওয়াট বিদ্যুত উৎপাদন ক্ষমতাসম্পন্ন এ বিদ্যুতকেন্দ্রটি নির্মিত হবে। এটি বিশ্বের ২৯তম পারমাণবিক বিদ্যুতকেন্দ্র। এছাড়া প্রধানমন্ত্রী পাবনা সফরকালে জেলায় ১২টি উন্নয়নমূলক কাজের উদ্বোধন ও ১৮টি উন্নয়নমূলক কাজের ভিত্তিপ্রস্তর স্থাপন করেন।
সকাল সাড়ে ১০টার দিকে হেলিকপ্টারে রূপপুরে নামার পর তিনি প্রকল্প মাঠে আয়োজিত উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে যোগ দেন। রাশিয়ান ফেডারেশনের সাবেক প্রধানমন্ত্রী ও রাশিয়ার আণবিক শক্তি করপোরেশন রোসাটমের মহাপরিচালক সের্গেই ভি কিরিয়েনকো অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন।

Leave a comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *