প্রতিহিংসার আগুনে জ্বলছে গাংনীর আযানের আশরাফুল

 

গাংনী প্রতিনিধি: মেহেরপুর গাংনী উপজেলার আযান গ্রামের সার ব্যবসায়ী আশরাফুল ইসলামের পেছনে প্রতিবেশী এক ছাত্রীকে লেলিয়ে দিয়ে অপদস্থ করা হচ্ছে। এমনটি জানিয়ে ওই ছাত্রী ও তার পেছনের কয়েকজনের বিরুদ্ধে পাল্টা অভিযোগ তুলেছেন ভুক্তভোগীরা।

অভিযোগে জানা গেছে, আশরাফুল ইসলাম পোড়াপাড়া বাজারের একজন সারব্যবসায়ী। গ্রামের একটি মহলের সাথে রয়েছে তাদের পারিবারিক শত্রুতা। এর জেরেই তাদেরকে শায়েস্তা করতে ভিন্ন পথ বেছে নেয় প্রতিপক্ষের লোকজন। প্রতিবেশী এক ছাত্রী গত ১৭ অক্টোবর আশরাফুলের বাড়িতে গিয়ে স্ত্রী দাবি করেন। কিন্তু কোনো কাগজপত্র দেখাতে ব্যর্থ হয় সে। এমনকি প্রেমসম্পর্কের কোনো প্রমাণও দেখাতে পারেনি। এতে স্বাভাবিকভাবেই পরিবার ও গ্রামবাসীর চাপে পড়ে ওই ছাত্রী। কোনো প্রমাণ ছাড়া কীভাবে সে একজনের স্ত্রী দাবি করছে তা নিয়ে কৌতূহলের সৃষ্টি হয়। এর মধ্যদিয়েই বেরিয়ে আসে ওই চক্রের যড়যন্ত্রের বিষয়টি। ওই ছাত্রীর এক আত্মীয় বলেন, এর আগে দুই ছেলের সাথে ওই ছাত্রী প্রেমসম্পর্কে জড়ায়। বিষয়টি স্থানীয়ভাবে নিষ্পত্তি করা হয়। এ নিয়ে গ্রামের মানুষের মাঝে মিশ্র প্রতিক্রিয়া রয়েছে।

আশরাফুল ইসলাম জানান, ওই ছাত্রীর সাথে কয়েকজনের সম্পর্কের বিষয়টি গ্রামের অনেকেরই জানা। তার চলাফেরার বিষয়ে পরিবারও অবগত। প্রতিবেশী ও আত্মীয়তার সুবাদে তার সাথে কথাবার্তা হওয়া স্বাভাবিক। কিন্তু বিয়ের বিষয়টি দাবি করায় এখন তার সংসার ভাঙার উপক্রম। তার মিথ্যা অভিযোগে যে সম্মানহানির মধ্যে পড়েছেন তার দায় কে নেবে? ওই চক্রান্ত্রকারীদের বিরুদ্ধে আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণের প্রক্রিয়া চলছে বলে জানিয়েছেন আশরাফুলের ভাই।

 

Leave a comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *