প্রতিবন্ধী ও বয়স্ক ভাতা আত্মসাতের পর জনরোষের মুখে ফেরত

আলমডাঙ্গা বেলগাছির মহিলা মেম্বারসহ এক নেতার বিরুদ্ধে অভিযোগ

আলমডাঙ্গা ব্যুরো: প্রতিবন্ধী ও বয়স্ক ভাতা আত্মসাতের পর জনরোষের মুখে ফেরত দেয়ার অভিযোগ উঠেছে আলমডাঙ্গার বেলগাছি ইউপির মহিলা মেম্বারসহ এক নেতার বিরুদ্ধে।

জানা গেছে, আলমডাঙ্গার বেলগাছি ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক  ডামোস গ্রামের নজরুল ইসলাম নিজ গ্রামের মৃত তাইজাল আলীর প্রতিবন্ধী মেয়ে শান্তি খাতুন ও মৃত সবেদ আলীর ছেলে বয়স্ক ভাতাভোগী বরকত আলীর ১৪ হাজার ৪শ টাকা আত্মসাৎ করেন বলে অভিযোগ উঠে। ঘটনা জানাজানি হলে নজরুল ইসলাম ১২ হাজার টাকা নিজের কাছে রেখে বাকি টাকা দুজনকে ফিরিয়ে দেন। কিন্ত ভাতাভোগী শান্তি খাতুন ও বরকত আলী সরাসরি উপজেলা নির্বাহী অফিসারের নিকট গতকাল অভিযোগ দায়ের করেন। উপজেলা নির্বাহী অফিসারের কঠোর ভূমিকায় বাধ্য হয়ে নজরুল ইসলাম স্থানীয় নেতাদের সমঝোতায় ভাতাভোগী দুই জনকে টাকা ফিরিয়ে দিয়ে রেহাই পান।

এদিকে, আলমডাঙ্গার বেলগাছি ইউপির ফরিদপুর গ্রামের জুড়োন মালিথার ছেলে প্রতিবন্ধী দাবারুলের ৭ হাজার ২শ টাকা আত্মসাতের অভিযোগ ওঠে বেলগাছি ইউনিয়নের ৪, ৫ ও ৬ নং ওয়ার্ড মেম্বার কেদারনগরের সুফিয়া খাতুনের বিরুদ্ধে। সুফিয়া খাতুনও জনরোষের মুখে পড়েন। প্রতিবন্ধী দাবারুলও উপজেলা নির্বাহী অফিসারের কাছে অভিযোগ দিতে বাড়ি থেকে আলমডাঙ্গায় চলে আসেন। খবর পেয়ে মহিলা মেম্বার সুফিয়া খাতুন তড়িঘড়ি করে প্রতিবন্ধী দাবারুলকে টাকা ফিরিয়ে দিয়ে রেহাই পেয়েছেন বলে জানা যায়।

 

Leave a comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *