পাকিস্তানের তালেবান নিয়ে ঘোর আশঙ্কা

মাথাভাঙ্গা মনিটর: পাকিস্তানের তালেবান বাহিনীর প্রধান হেকিমুল্লাহ মেহসুদ যুক্তরাষ্ট্রের ড্রোন হামলায় নিহত হওয়ার পর বাহিনীটিকে নিয়ে ভীষণ অনিশ্চয়তা দেখা দিয়েছে। পাকিস্তান সরকারের সাথে শান্তি আলোচনা ভেস্তে গেছে, কেবল তা-ই নয়, বরং দলটির নতুন করে আক্রমণাত্মক হয়ে ওঠার আশঙ্কা গ্রাস করছে পাকিস্তানবাসীকে। আফগানিস্তান ও পাকিস্তানের ওপর অদৃশ্য কর্তৃত্বকারী রাষ্ট্রগুলোও ভবিষ্যৎ নিয়ে উত্কণ্ঠিত হয়ে পড়ছে। এ মাসের শুরুতে হেকিমুল্লাহর মৃত্যুতে তালিবান বাহিনীর অন্তর্দ্বন্দ্ব আবার চাগিয়ে উঠছে। দলটির মধ্যকার শৃঙ্খলা ভেঙে পড়ার আশঙ্কা দেখা দিয়েছে। আফগানিস্তান থেকে মার্কিন-নেতৃত্বাধীন ন্যাটো বাহিনীর দেশে ফিরে যাওয়ার সময় যতো ঘনিয়ে আসছে, তালেবান বাহিনীকে নিয়ে উদ্বেগ ততোই বাড়ছে। পাকিস্তানের একটি পাহাড়ি পরিষদ গত সপ্তায় মোল্লা ফজলুল্লাকে পাকিস্তানের তালেবান বাহিনীর প্রধান নির্বাচিত করেছে। এ সিদ্ধান্তে অনেক জ্যেষ্ঠ নেতা অসন্তুষ্ট হয়ে দলত্যাগ করেছেন বলে জানা গেছে। নতুন নেতা নির্বাচন নিয়ে তালেবানের শীর্ষ পরিষদ ‘শুরার’ বৈঠক বসেছিলো ৭ নভেম্বর দক্ষিণ ওয়াজিরিস্তানে। পাহাড়ি এলাকাটিতে অনুষ্ঠিত বৈঠকে উপস্থিত ছিলেন এমন এক নেতা বলেন, যখন ফজলুল্লার (নেতা হিসেবে) নাম ঘোষণা করা হলো, তারা (কয়েকজন বিদ্রোহী নেতা) ‘এ আদেশ মানি না’ বলে সভাস্থল থেকে বেরিয়ে যান। তবে বাকি নেতারা ফজলুল্লাকে মেনে নেন এবং তার নেতৃত্বে হেকিমুল্লাহকে হত্যার প্রতিশোধ নেয়ার শপথ গ্রহণ করেন।

Leave a comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *