পবিত্র মাহে রমজানের পবিত্রতা রক্ষার্থে চুয়াডাঙ্গায় স্বাগত র‌্যালি ও জীবননগরে আলোচনাসভা অনুষ্ঠিত

 

স্টাফ রিপোর্টার: পবিত্র মাহে রমজানের পবিত্রতা রক্ষার্থে চুয়াডাঙ্গায় স্বাগত র‌্যালি ও জীবননগরে আলোচনাসভা অনুষ্ঠিত হয়েছে। গতকাল বৃহস্পতিবার সকালে পবিত্র মাহে রমজানের পবিত্রতা রক্ষার্থে চুয়াডাঙ্গা দৌলতদিয়াড় ঐতিহ্যবাহী ফজলুম উলুম ক্যাডেট স্কীম মাদরাসার পক্ষ থেকে স্বাগত র‌্যালি বের করা হয়। র‌্যালিটি মাদরাসা থেকে বের হয়ে চুয়াডাঙ্গা শহরের প্রধান প্রধান সড়ক প্রদক্ষিণ করে আবার মাদরাসায় এসে শেষ হয়। র‌্যালিটির নেতৃত্ব দেন মাদরাসার নায়েবে মোহতামিম মুফতি রশিদ আহমেদ। র‌্যালিতে মাদরাসার সকল ছাত্র, শিক্ষক ও কর্মচারী অংশগ্রহণ করেন।

অপরদিকে, পবিত্র মাহে রমজানের আগমন উপলক্ষে বিকেলে ইসলামী আন্দোলন বাংলাদেশ চুয়াডাঙ্গা জেলা শাখার উদ্যোগে আসন্ন পবিত্র মাহে রমজানকে স্বাগত জানিয়ে শান্তিপূর্ণ মিছিল করে। মিছিলটি চুয়াডাঙ্গা শহীদ হাসান চত্বর থেকে শুরু হয়ে শহরের প্রধান প্রধান সড়ক প্রদক্ষিণ শেষে পুনরায় হাসান চত্বরে এসে সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়। সমাবেশে বক্তব্য রাখেন জেলা সভাপতি মো. হাসানুজ্জামান সবিজ, জেলা সেক্রেটারি ডা. মো. জিনারুল ইসলাম, জেলা সাংগঠনিক সম্পাদক তুষার ইমরান সরকার, ইসলামি শ্রমিক আন্দোলন চুয়াডাঙ্গা জেলা শাখার সভাপতি শেখ পিয়ার মুহাম্মদ। যুব আন্দোলনের জেলা সভাপতি মাওলানা মুজিবুল ইসলাম, ইসলামি ছাত্র আন্দোলন জেলা সভাপতি মো. ফাহিম ফয়সাল।

সমাবেশে বক্তারা বলেন, পবিত্র মাহে রমজানের পবিত্রতা রক্ষার্থে সুপ্রীম কোর্টের সামনে থেকে গ্রীক দেবীর মূর্তি সরানের আহ্বান জানান। রমজানের আগে যুদি মূর্তি সরানো না হয় তাহলে ১৭ই রহমান বদর দিবসে সারাদেশব্যাপী বিক্ষোভ মিছিলের কর্মসূচি ঘোষণা করা হয়। পরিশেষে দোয়ার মাধ্যামে সমাবেশের সমাপ্ত ঘোষণা করা হয়।

জীবননগর ব্যুরো জানিয়েছে, প্রবিত্র মাহে রমজানের প্রবিত্রতা রক্ষার্থে জীবননগরে আলোচনাসভা অনুষ্ঠিত হয়েছে। উপজেলা নির্বাহী অফিসারের সভাকক্ষে সরকারি কর্মকর্তা, জনপ্রতিনিধি, সাংবাদিক, হোটেল-রেস্টুরেন্ট ব্যবসায়ী, মুদিব্যবসায়ী, ব্যবসায়ী ও সূধীবৃন্দদের নিয়ে গতকাল বৃহস্পতিবার এ সভা অনুষ্ঠিত হয়। সভায় প্রধান অতিথির বক্তব্য রাখেন উপজেলা চেয়ারম্যান আবু মো. আব্দুল লতিফ অমল।

উপজেলা নির্বাহী অফিসার সেলিম রেজার সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত আলোচনাসভায় প্রবিত্র মাহে রমজানের প্রবিত্রতা রক্ষার্থে দিনের বেলা সকল প্রকার পানাহার ও ধূমপান বন্ধ, অহেতুক খাদ্যদ্রব্যের দাম বৃদ্ধি করে রোজাদারদের কষ্টের কারণ না বাড়ানো ও খাদ্য দ্রব্যে ভেজাল রোধে প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ গ্রহণের দাবি জানানো হয়। বক্তব্য রাখেন হাসাদাহ ইউপি চেয়ারম্যান সিরাজুল ইসলাম, সীমান্ত ইউপি চেয়ারম্যান মঈন উদ্দিন ময়েন, উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা অফিসার ডা. রফিকুল ইসলাম, ওসি (তদন্ত) আব্দুল্লাহ আল মামুন, উপজেলা মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডার সামসুল আলম ছাত্তার, প্রেসক্লাব সভাপতি আনোয়ারুল কবির, উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা অফিসার আমজাদ হোসেন ও সিরাজ হোটেল অ্যান্ড রেস্টুরেন্টের স্বত্বাধিকারী সাবেক পৌর কাউন্সিলর রফিকুল ইসলাম। আলোচনাসভায় দিনের বেলায় হোটেল-রেঁস্তরায় পর্দা করে খাবার পরিবেশন, প্রকাশ্যে ধূমপান ও পানাহার বন্ধের সিদ্ধান্ত নেয়া হয়। এছাড়াও খাদ্যে ভেজাল ও কোনো যৌতিক কারণ ছাড়াই খাদ্য দ্রব্যের দাম বাড়িয়ে রোজাদারদের কষ্টের পরিমাণ না বাড়ানোর জন্য ব্যবসাদারদের প্রতি আহ্বান জানানো হয়। আলোচনাসভায় রোজার মাসে সকল অনিয়ম রোধে মাসব্যাপী ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনারও সিদ্ধান্ত নেয়া হয় বলে জানা গেছে।

Leave a comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *