পদত্যাগের দাবি প্রত্যাখ্যান ইংলাকের

মাথাভাঙ্গা মনিটর: বিক্ষোভকারীদের দাবির মুখে পদত্যাগে অস্বীকৃতি জানিয়েছেন থাই প্রধানমন্ত্রী ইংলাক সিনাওয়াত্রা। ব্যাংককে সরকারবিরোধীরা ব্যাপক বিক্ষোভ ও সংঘর্ষ চালিয়ে ইংলাক সিনাওয়াত্রাকে প্রধানমন্ত্রীর পদ থেকে সরে দাঁড়ানোর দাবি তোলে প্রতিবাদকারীরা। বিক্ষোভকারীদের দাবি প্রত্যাখ্যান করে ইংলাক বলেন, এ পরিস্থিতিতে এ দাবি পূরণ সম্ভব নয়। তবে তিনি সরাসরি আলোচনার পথ এখনো খুলে রেখেছেন। গতকাল সোমবার সংঘর্ষ চরম আকার ধারণ করে যখন প্রতিবাদকারীরা প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয় দখলের চেষ্টা করেন। ২০১০ সালের পর এটাই থাইল্যান্ডে সবচেয়ে বাজে রাজনৈতিক সহিংসতা বলে জানা গেছে। এরই মধ্যে এ সহিংসতায় চারজন প্রাণ হারিয়েছেন। টেলিভিশনে দেয়া সাক্ষাতকারে ইংলাক বলেন, ‘জনগণকে খুশি করার জন্য আমি সবকিছু করতে পারি। আমি খুশি হয়েই এটা করবো। কিন্তু একজন প্রধানমন্ত্রী হিসেবে বর্তমান পরিস্থিতিতে আমি কি করতে পারি।’ এদিকে আন্দোলনের নেতা সুথেপ থাউগসুবান রোববার বলেন, ‘আগামী দু দিনের মধ্যে ইংলাকের পদত্যাগ করা উচিত।’ প্রতিবাদকারীদের অভিযোগ ইংলাক সরকার তার ভাই থাকসিন সিনাওয়াত্রার দ্বারা নিয়ন্ত্রিত। সাবেক প্রধানমন্ত্রী ও বিলিওনিয়ার থাকসিনের বিরুদ্ধে দুর্নীতির অভিযোগে ব্যাপক গণআন্দোলনের পর ২০০৬ সালে সামরিক অভ্যুত্থানের মাধ্যমে ক্ষমতাচ্যুত হন থাকসিন। ইংলাকের বিরুদ্ধে ২৪ নভেম্বর থেকে শুরু হওয়া লাগাতার আন্দোলন শনিবার থেকে সহিংস রূপ ধারণ করে।

Leave a comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *