নিরাপদ সড়ক বাস্তবায়ন কমিটির ১৪ দফা প্রস্তাবনা উপস্থাপন

চুয়াডাঙ্গায় আঞ্চলিক পরিবহন কমিটি জেলা সড়ক নিরাপত্তা কমিটির সভা অনুষ্ঠিত

স্টাফ রিপোর্টার: চুয়াডাঙ্গায় আঞ্চলিক পরিবহন কমিটি ও জেলা সড়ক নিরাপত্তা কমিটির মাসিক সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে। গতকাল মঙ্গলবার দুপুরে জেলা প্রশাসকের সম্মেলন কক্ষে এ সভা অনুষ্ঠিত হয়। নিরাপদ সড়ক বাস্তবায়ন কমিটির ১৪ দফা প্রস্তাবনা সভায় উপস্থাপন করা হয়েছে।

জেলা প্রশাসক সায়মা ইউনুসের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠিত সভায় পুলিশ সুপার (ভারপ্রাপ্ত) মোহাম্মদ বেলায়েত হোসেন, অতিরিক্ত জেলা ম্যাজিস্ট্রেট (এডিএম) জসিম উদ্দিন, জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আজাদুল ইসলাম, দামুড়হুদা উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান আজিজুর রহমান, কমিটির সদস্য সচিব বিআরটিএর সহকারী পরিচালক (এডি) আশরাকুর রহমান, সড়ক ও জনপথ বিভাগের উপ-বিভাগীয় প্রকৌশলী আবু বককার, পৌর প্যানেল মেয়র একরামুল হক মুক্তা, অধ্যক্ষ (অব.) এসএম ইস্রাফিল জেলা বাস-মিনিবাস মালিক গ্রুপের সভাপতি মো. সালাহ উদ্দিন, জেলা আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক মুন্সি আলমগীর হান্নান, নিরাপদ সড়ক চাই- সভাপতি অ্যাডভোকেট আলমগীর হোসেন, জেলা সড়ক পরিবহন মালিক-শ্রমিক ঐক্য পরিষদের আহ্বায়ক হাবিবুর রহমান লাভলু ও সদস্য সচিব রিপন মণ্ডল, বাস-মিনিবাস মালিক সমিতির সাধারণ সম্পাদক একেএম মইন উদ্দিন মুক্তা, বাস-মিনিবাস মালিক গ্রুপের সাধারণ সম্পাদক এ নাসির জোয়ার্দ্দার ও সহসভাপতি আব্দুল হালিম ও জেলা বাস -ট্রাক শ্রমিক ইউনিয়নের সভাপতি এম জেনারেল ইসলামসহ নেতৃবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।

নিরাপদ সড়ক বাস্তবায়ন কমিটির পক্ষে জেলা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আজাদুল ইসলাম ১৪ দফা প্রস্তাবনা পাঠ করে শোনান। প্রস্বাবনার মধ্যে রয়েছে, অবৈধ আলমসাধু, নসিমন ও করিমন চুয়াডাঙ্গা জেলার পাঁচটি আঞ্চলিক মহাসড়কে চলতে পারবে না। তবে, সন্ধ্যা ৭টা থেকে সকাল ৮টা পর্যন্ত পণ্যবাহী এসব যানবাহন সাময়িকভাবে চলাচল করতে পারবে। ১ জুলাই থেকে মিনি-ট্রাকের মাধ্যমে পণ্য পরিবহন করতে হবে ব্যবসায়ীদের। রাস্তার পাশে ইটভাটার মাটি ও সড়কে কাঠ ১০ এপ্রিলের মধ্যে সরাতে হবে। অটো রিকশার জন্য ৪ পৌরসভা রেজিস্ট্রেশন ব্যবস্থা চালু ও আলাদা রোড নির্মাণ করে দিতে হবে। সড়কে গতিরোধ নিয়ন্ত্রণ এবং সড়কে সাইন ব্যবহার করতে হবে। মোটরসাইকেল আরোহীদের পেট্রোল পাম্পে ফুয়েল নিতে হলে অবশ্যই হেলমেট ব্যবহার করতে হবে। এছাড়া, বেশকিছু প্রস্তাবনা রয়েছে।

বিআরটিএর সহকারী পরিচালক আশরাকুর রহমান সভায় অবহিত করেন, যেসকল ট্রাকের বাম্পার এবং ট্রাকে হুক লাগানো রয়েছে তা ট্রাক থেকে খুলে ফেলতে হবে। তা না হলে ফিটনেস দেয়া হবে না। তবে, আগামী ১৪ এপ্রিল পর্যন্ত সময় দেয়া আছে। এরপর আইনানুগ ব্যবস্থা নেয়া হবে।

চুয়াডাঙ্গার পুলিশ সুপার (ভারপ্রাপ্ত) মোহাম্মদ বেলায়েত হোসেন বলেন, সরকারি বিধি মোতাবেক অবৈধ যানবাহন চলাচল বন্ধে পুলিশ সব সময়ই কাজ চলেছে। তবে, যে সকল হাট বাজার রাস্তার ওপর রয়েছে তাদেরকে নিরাপদ দূরত্বে চলে যাওয়ার অনুরোধ করছি।

চুয়াডাঙ্গা জেলা প্রশাসক সায়মা ইউনুস বলেন, নিরাপদ সড়ক চাই বাস্তবায়ন কমিটি যেসকল প্রস্তাবনা দিয়েছে সেগুলো পর্যালোচনা করে দেখা হবে। বিষয়গুলোর আইনগত দিক বিবেচনা করে প্রয়োজনীয় উদ্যোগ গ্রহণ করা হবে। মর্মান্তিক সড়ক দুর্ঘটনায় ১৩ নির্মাণ শ্রমিকের মৃত্যু দেশবাসীকে নাড়া দিয়েছে। এধরনের ঘটনা কোনোভাবেই কাম্য নয়। আমি আশা করবো ট্রাকের চালক ও হেলপারদেরকে আইনে সোপর্দ করতে প্রয়োজনীয় উদ্যোগ গ্রহণ করবে পুলিশ।

 

Leave a comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *