দৌলতপুরে ৬ মাস ধরে স্থায়ী বন্ধাকরণ অপারেশন কার্যক্রম বন্ধ

 

দৌলতপুর প্রতিনিধি: কুষ্টিয়ার দৌলতপুরে পরিবার পরিকল্পনার আওতায় মহিলাদের স্থায়ী বন্ধাকরণে লাইগেশন অপারেশন কার্যক্রম দুর্নীতি ও অনিয়মের কারণে ৬ মাস ধরে বন্ধ রয়েছে। ফলে অপরিকল্পিত জন্ম নিয়ন্ত্রণে সরকারি সুবিধা গ্রহণ থেকে বঞ্চিত হচ্ছে উপজেলার প্রত্যন্ত অঞ্চলের শ শ সাধারণ গৃহিনীরা। গত ৬ মাস ধরে এ অচলাবস্থা চললেও কর্তৃপক্ষের উদাসীনতার কারণে মুখ থুবরে পড়েছে বন্ধাকরণে এ স্থায়ী পদ্ধতিটি।

অনুসন্ধানে জানা গেছে, উপজেলার সরকারি-বেসরকারি স্বাস্থ্যসেবা প্রতিষ্ঠানগুলোর মাধ্যমে মহিলাদের স্থায়ী বন্ধাকরণে লাইগেশন অপারেশন করা হয়ে থাকে। পদ্ধতি গ্রহণকারীদের সরকারি অনুদান হিসাবে নগদ ২ হাজার টাকা ও বস্ত্রপ্রদান করা হয়। চলতি বছরের মাঝামাঝি সময়ে অডিট রিপোর্টে এ খাতের ৭৩ লাখ ৫ হাজার টাকা আত্মসাতের ঘটনা ধরা পড়লে আত্মসাতের বিষয়টি ধামাচাপা দিতে এ দায়িত্বে থাকা ডা. আবু সাইদ দৌলতপুরে এ অপারেশন বন্ধ করে দেন বলে সংশ্লিষ্টরা জানান। অথচ পার্শ্ববর্তী ভেড়ামারা উপজেলায় এ কার্যক্রম চললেও দৌলতপুরে ৬ মাস ধরে বন্ধ থাকায় জন্মনিয়ন্ত্রণ কার্যক্রমে পিছিয়ে পড়ছে এ উপজেলা। এ ব্যাপারে জানার জন্য ডা. আবু সাইদের মোবাইলফোনে বারবার চেষ্টা করলেও তিনি ফোন রিসিভ করেননি।

Leave a comment

Your email address will not be published. Required fields are marked *